বিপুল অস্ত্র উদ্ধার দীঘিনালায়

DSC06609খাগড়াছড়ির দীঘিনালা উপজেলার কামুক্ষাছড়া এলাকার দূর্গম ছাতকছড়া এলাকায় যৌথ বাহিনীর অভিযানে ৫টি আগ্নেয়াস্ত্র ও সাড়ে চারশ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হযেছে। এসময় একজনকে আটক করা হয়। আটককৃত ব্যাক্তির নাম বড়শোভা চাকমা ওরফে নান্টু (৪০)। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন খাগড়াছড়ির রিজিয়নের অধিনায়ক স ম মাহবুবুল আলম। আটককৃত ব্যাক্তি জেএসএস (এমএন লারমা) পক্ষের কর্মী বলে জানালেও সংগঠনটির পক্ষ থেকে তা অস্বীকার করা হয়েছে।
যৌথবাহিনী সূত্র জানায়, ছাতকছড়ার দূর্গম এলাকার একটি বাড়িতে প্রায় ২৫ জনের স্বশস্ত্র সন্ত্রাসী দল অবস্থান করার গোপন সংবাদ ছিল যৌথবাহিনীর কাছে। এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রবিবার সন্ধার পর দীঘিনালা সেনাজোনের অধিনায়ক লে: কর্ণেল মাহসিন রেজার নেতৃত্বে ওই এলাকায় অভিযান শুরু করা হয়। এসময় যৌথবাহিনীর উপস্থিতি টের পেয়ে সন্ত্রাসীরা গুলি চালায়। প্রায় এক ঘন্টা উভয়পক্ষের মধ্যে গুলি বিনিময় হয়েছে বলে দাবী করেছে যৌথ বাহিনী। এক পর্যায়ে সন্ত্রাসীরা পিছু হটতে বাধ্য হয়। পরে একজনকে আটকা করা সম্ভব হলেও বাকিরা পালিয়ে যায়। এর পর ঘটনাস্থলে তল্লাশি চালিয়ে ৫টি অস্ত্র, ৯টি ম্যাগাজিন, সাড়ে৪’শ রাউন্ড গুলি, সন্ত্রাসীদের ব্যবহৃত সেনাপোষাকের আদলের ইউনিফর্ম, ৮টি মোবাইল ফোন, ১টি ডিভিডি প্লেয়ার ও সরাঞ্জামাদি উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারকৃত ৫টি অস্ত্র হলো, সাব মেশিনগান (এসএমজি) ২টি, মেশিনগান (এমজি) ১টি ও এসএলআর ২টি।DSC06605
যৌথবাহিনীর একটি সূত্র আটককৃতের বরাত দিয়ে জানিয়েছে, পাহাড়ের আঞ্চলিক রাজনৈতকি দলগুলোর অভ্যন্তরীন কোন্দলের জের ধরেই স্বশস্ত্রদলের অবস্থান। জেএসএস (সন্তু) পক্ষকে মোকাবেলা করতেই জেএসএস (এমএন লারমা) পক্ষের স্বশস্ত্রদলটি অবস্থান করছিল বলে জানা গেছে।
এব্যাপারে জানতে চাইলে জেএসএস (এমএন লারমা) কেন্দ্রীয় কমিটির সহ তথ্য ও প্রচার সম্পাদক প্রশান্ত চাকমা বলেন, ‘আমাদের সংগঠনে কোন সশস্ত্র সদস্য বা কর্মী নাই। আটককৃত ব্যক্তি আমাদের সংগঠনের কেউ নয়।’

Micro Web Technology

আরো দেখুন

কারাতে ফেডারেশনের ব্ল্যাক বেল্ট প্রাপ্তদের সংবর্ধনা

বাংলাদেশ কারাতে ফেডারেশন হতে ২০২১ সালে ব্ল্যাক বেল্ট বিজয়ী রাঙামাটির কারাতে খেলোয়াড়দের সংবধর্না দিয়েছে রাঙামাটি …

Leave a Reply