নীড় পাতা » বান্দরবান » বিদ্যুৎ বিভাগের ৩ কোটি টাকার কাজ ভাগবাটোয়ারা !

বিদ্যুৎ বিভাগের ৩ কোটি টাকার কাজ ভাগবাটোয়ারা !

Bandarban-Biddut-PiC_2বান্দরবানে বিদ্যুৎ বিভাগের প্রায় ৩ কোটি টাকার উন্নয়ন কাজের টেন্ডার ভাগবাটোয়ারা করে নিয়েছেন ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীরা। থানছি উপজেলা বিদ্যুৎ সংযোগ লাইনের কাজের আহ্বানকৃত উন্নয়ন কাজের ক্রয় করা টেন্ডার ফরম জমা দিতে দেয়নি আওয়ামীলীগ নেতাকর্মীরা। মঙ্গলবার দুপুরে বারোটার সময় বান্দরবান বিদ্যুৎ বিতরণ বিভাগের অফিসে এই ঘটনা ঘটে।

ঠিকাদাররা জানায়, মঙ্গলবার জেলার থানছি উপজেলায় বিদ্যুৎ সংযোগ লাইন স্থাপন, সার্বস্টেশন নির্মাণ’সহ দুই কোটি ৭৭ লক্ষ টাকার ৭টি উন্নয়ন কাজের টেন্ডার ফরম জমা দেয়ার শেষদিন ছিল। কিন্তু চট্টগ্রাম ও ঢাকা থেকে টেন্ডার ফরম ক্রয় করা ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান প্রতিভা করপোরেশন, জিএম ইঞ্জিনিয়ারিং, ইউনাইটেড বিল্ডার্স, চৌধুরী এ্যান্ড কোং, এমএম ইঞ্জিনিয়ারিং’সহ অনেক ঠিকাদারদের ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীরা টেন্ডার ড্রপিং করতে (ফরম জমা দিতে) দেয়নি। সিডিউল ড্রপিংএ বাঁধা দেয়া ছাড়াও ফরম ক্রয়কারী ঠিকাদার’দের নানাভাবে হেনস্তা করা হয়েছে। উন্নয়ন কাজগুলো হচ্ছে-ওয়াইজংশন থেকে বলিপাড়া পর্যন্ত ৩৫ কিলোমিটার ৩৩ কে.বি বিদ্যুৎ লাইন স্থাপন, বলিপাড়া থেকে থানছি সদর পর্যন্ত ১৯ কিলোমিটার ১১ কে.বি বিদ্যুৎ সংযোগ লাইন স্থাপন, ৩৩/১১ কে.বি বিদ্যুৎ সাবস্টেশন স্থাপন।

চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি আলতাফ হোসেন বাচ্চু’র হয়ে স্থানীয় ও চট্টগ্রাম দক্ষিণ আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা উন্নয়ন কাজের টেন্ডারগুলো দখল করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। টেন্ডার দখলের নেতৃত্ব দিয়েছেন বান্দরবান জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক হ্লা থোয়াই হ্রি মারমা, জেলা শ্রমিকলীগের সভাপতি সুগত প্রিয় বড়–য়া এবং দক্ষিণ জেলা যুবলীগের সদস্য জিয়াউল হক জিয়া ।

ঠিকাদার এস.বি চৌধুরী, আকতার এবং গিয়াস উদ্দিন’সহ অনেকে জানান, ঢাকা, চট্টগ্রাম থেকে টেন্ডার ফরম ক্রয় করে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র’সহ ফরম জমা দিতে গিয়ে আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের বাঁধার মুখে টেন্ডার ফরম ড্রপিং করতে (জমা দিতে) পারিনি। জেলা আওয়ামীলীগ নেতা হ্লা থোয়াই হ্রি এবং জেলা শ্রমিকলীগের সভাপতি সুগত প্রিয় বড়–য়া’সহ ক্ষমতাসীন দলের লোকজনেরা কাজগুলো আমরা করবো বলে আমাদের ড্রপিং করতে দেয়নি। সাতটি উন্নয়ন কাজের বিপরীতে প্রায় একশ থেকে দেড়শ সিডিউল (ফরম) বিক্রি হলেও জমা পড়েছে মাত্র ২৪টি। মুষ্ঠিমেয় কয়েকজন ঠিকাদার সমঝোতার মাধ্যমে বিভিন্ন নামে ২৪টি ফরম জমা দিয়েছেন। তবে অভিযোগগুলো অস্বীকার করে জেলা আওয়ামীলীগের যুুগ্ন সম্পাদক হ্লা থোয়াই হ্রি ও জেলা শ্রমিকলীগের সভাপতি সুগত প্রিয় বড়–য়া বলেন, টেন্ডার ফরম ড্রপিংএ বাঁধা দেওয়া হয়নি। রাঙামাটি ও চট্টগ্রামের দলীয় নেতাকর্মীরা বিদ্যুৎ অফিসে আসার খবরে তাদের সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিলাম। কিন্তু টেন্ডারের ব্যাপারে আমরা কিছুই জানিনা।

এ বিষয়ে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিদ্যুৎ বিতরণ উন্নয়ন প্রকল্পের নির্বাহী প্রকৌশলী অতিক্রম চাকমা জানান, থানছি উপজেলায় বিদ্যুৎ সংযোগ লাইন স্থাপন, সাবস্টেশন নির্মাণ’সহ দুই কোটি ৭৭ লক্ষ টাকার ৭টি উন্নয়ন কাজের টেন্ডার জমা পড়েছে,কোনো ধরণের অনিয়ম হয়নি,টেন্ডার ফরম জমা দেওয়ায় সময় কাউকে বাধা দেয়ার কোনো অভিযোগও পায়নি।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহ্বান কুজেন্দ্রের

কভিড-১৯ মহামারী উত্তরণে পার্বত্য চট্টগ্রামবিষয়ক মন্ত্রণালয় থেকে প্রাপ্ত প্রধানমন্ত্রীর ইফতার সামগ্রী বিতরণ করেছে খাগড়াছড়ি পার্বত্য …

Leave a Reply