বাল্য বিয়ে থেকে রক্ষা স্কুল ছাত্রীর

মাটিরাঙ্গা থানা পুলিশের সময়োচিত পদক্ষেপের কারণে বাল্য বিবাহ থেকে রক্ষা পেলো মাটিরাঙ্গার শান্তিপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেণির ছাত্রী মোসাম্মদ নুরজাহান। সে গোমতি ইউনিয়নের সাতভাইয়া পাড়া গ্রামের দিনমজুর মো: নুরুল অমিনের মেয়ে।

জানা গেছে, পারিবারিকভাবেই তার বিয়ের কথাবার্তা চূড়ান্ত করা হয় মাটিরাঙ্গা পৌরসভার ২নং ওয়ার্ডের মো: লাতু মিয়ার ছেলে গার্মেন্টকর্মী মোঃ নুর নবী (২৪)’র সাথে। দিনক্ষণ অনুযায়ী গতকাল বৃহস্পতিবার কনের পিত্রালয়ে বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা শেষ হওয়ার কথা। এরই মধ্যে নুর জাহান বিয়েতে তার অনিচ্ছার কথা জানিয়ে শান্তিপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষকসহ তার বান্ধবীদের কাছে সহায়তা চায়। তার বান্ধবীরা বিষয়টি বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো: মোস্তফা কামালকে জানিয়ে এ বিয়ের বিরুদ্ধে মানববন্ধনের ঘোষণা দিলে বিষয়টি জানাজানি হয়।

স্থানীয়দের মাধ্যমে বিষয়টি মাটিরাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ মো: শাহাদাত হোসেন টিটো জানার পর বুধবার রাতে মেহেদী অনুষ্ঠান শুরুর প্রাক্কালেই গোমতি ইউনিয়ন পরিষদের মাধ্যমে গ্রাম পুলিশ পাঠিয়ে প্রথমে কনের বাবা ও পরে পুলিশ পাঠিয়ে বরের বাবাকেও থানায় নিয়ে আসেন। তিনি মেয়েটির ভবিষ্যতসহ বাল্যবিবাহের কুফল সম্পর্কে তাদের ধারণা প্রদান করেন। অবশেষে মেয়ের বয়স ১৮ বছর পূর্ণ না হলে বিয়ে দিবে না এই মর্মে মেয়ের বাবা ও অপ্রাপ্তবয়স্ক মেয়ে বিয়ে করাবে না মর্মে বরের বাবার কাছ থেকে মুছলেকা নিয়ে তাদের ছেড়ে দেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে মাটিরাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ মো: শাহাদাত হোসেন টিটো বলেন, বাল্যবিবাহ একটি সামাজিক ব্যাধি। এ ব্যাধির কুফল সম্পর্কে না জানার কারনেই প্রতিনিয়ত বাল্যবিবাহ হচ্ছে। এজন্য তিনি রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ ও সাংবাদিকসহ সবমহলের সহযোগিতা কামনা করেন।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

কারাতে ফেডারেশনের ব্ল্যাক বেল্ট প্রাপ্তদের সংবর্ধনা

বাংলাদেশ কারাতে ফেডারেশন হতে ২০২১ সালে ব্ল্যাক বেল্ট বিজয়ী রাঙামাটির কারাতে খেলোয়াড়দের সংবধর্না দিয়েছে রাঙামাটি …

Leave a Reply