নীড় পাতা » পাহাড়ের সংবাদ » বাপ্পী বাহিনীর ৪ সদস্য চট্টগ্রাম থেকে গ্রেফতার

বাপ্পী বাহিনীর ৪ সদস্য চট্টগ্রাম থেকে গ্রেফতার

Bandarban-Chor-PiC_1বান্দরবান নকিয়া সেন্টারে চুরির মালামাল’সহ সংঘবদ্ধচক্র বাপ্পী বাহিনীর সেকেন্ডইন কমান্ড’সহ ৪ সদস্যকে চট্টগ্রাম থেকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার ভোর রাতে চট্টগ্রামের পাহাড়তলীর একটি বাসা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃতরা হলেন- বাপ্পী বাহিনীর সেকেন্ডইন কমান্ড মো: হাসান (২৬), সাদ্দাম হোসেন (২৪), আকবর (২২), কাসেম (২৩) এবং রুবেল (২২)।
পুলিশ জানায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বৃহস্পতিবার ভোরে চট্টগ্রাম পুলিশের সহায়তায় বান্দরবান সদর থানার উপ-পুলিশ পরিদর্শক এসআই নাছিরের নেতৃত্বে পুলিশের একটি চট্টগ্রামের পাহাড়তলীতে একটি বাসায় অভিযান চালায়। এসময় বান্দরবান নকিয়া সেন্টার থেকে চুরি করা মালামাল’সহ সংঘবদ্ধচক্র বাপ্পী বাহিনীর উক্ত চার সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়। তাদের কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে ১১টি মোবাইল সেট, ১০ হাজার টাকা এবং ক্যাশকার্ড ও মোবাইলের মোমেরি কার্ড। তবে অভিযানের বিষয়টি টের পেয়ে বাহিনীর মূল হোতা বাপ্পী, কালা, সুমন ও রাজিব চারজন পালিয়ে যাওয়ায় তাদের গ্রেফতার করা যায়নি।

পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদে বাপ্পীর নির্দেশের চট্টগ্রাম-বান্দরবান জেলা সদরে একাধিকস্থানে চুরির ঘটনা স্বীকার করে বাহিনীর সেকেন্ড ইন কমান্ড মো: হাসান বলেন, গত মঙ্গলবার চুরি করতে চট্টগ্রাম থেকে বাপ্পীর নেতৃত্বে সাত জন বান্দরবান আসি। চুরি করার জন্য বাজারের বিভিন্ন স্থানে ঘুরে সম্ভাব্য কয়েকটি স্থান চিহ্নিত করে অবস্থান নেয়া হয়। সন্ধ্যায় মাগরিবের নামাজ পড়তে নকিয়া সেন্টারের মালিক মসজিদে গেলে দোকানের দরজা খুলে ঢুকে ‘কালা’ মালামাল চুরি করে। অন্যরা বিভিন্নস্থানে পাহারায় নিয়োজিত ছিল। বাপ্পী তার চক্রের সদস্যদের দৈনিক তিনশ টাকা করে ভাতা দেন এবং চুরি করার মালামালের একটি অংশের ভাগ দেয় বলেও জানায় গ্রেফতার হওয়া চোরেরা। তবে কোথায় কখন কোনদিন চুরি করা হবে, সবকিছুই বাপ্পীই ঠিক করে।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইমতিয়াজ আহম্মেদ জানান, সংঘবদ্ধ চক্রটি পরিকল্পনা করে বান্দরবান এসে চুরি করার পর মালামাল নিয়ে দ্রুত পালিয়ে যান। যে কারণে তাদের ধরা সম্ভব হয়না। তবে সংঘবদ্ধ চক্রের চার জনকে চট্টগ্রাম থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে। মূল হোতা বাপ্পী পালিয়ে যাওয়ায় তাকে ধরা যায়নি, চক্রের মুলহোতা’সহ অন্যদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

প্রসঙ্গত, গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বান্দরবান বাজারের ব্যবসায়ী জাফর আহমেদের মালিকানাধীন নকিয়া সেন্টারের দ্বিতীয় তলায় দরজার তালা ভেঙ্গে নগদ টাকা, মোবাইল ফোন, রিচার্জ কার্ড’সহ প্রায় ১০ লক্ষ টাকার মালামাল চুরি করে যায় সংঘবদ্ধ চোরেরা।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

জনপ্রিয় হচ্ছে ‘তৈলাফাং’ ঝর্ণা

করোনার প্রভাবে দীর্ঘদিন বন্ধ ছিল খাগড়াছড়ির পর্যটন ও বিনোদনকেন্দ্র। তবে টানা বন্ধের পর এখন খুলেছে …

Leave a Reply