নীড় পাতা » ফিচার » অরণ্যসুন্দরী » বান্দরবানের আকাশে মেঘ, পর্যটকেরা বিমোহিত

বান্দরবানের আকাশে মেঘ, পর্যটকেরা বিমোহিত

বাংলাদেশের ভূ-স্বর্গ পার্বত্য জেলা বান্দরবান। এখানে রয়েছে অসংখ্য পর্যটন কেন্দ্র। শান্তি আর সম্প্রীতিতে রয়েছে এই জেলার বেশ সুনাম। আর এই পর্যটন জেলায় বিভিন্ন পর্যটন কেন্দ্রের সৌন্দর্যের পাশাপাশি পাহাড়ের বিভিন্ন স্থানে দেখা মিলে মেঘের ছোয়া, তাইতো সময় অসময়ে পর্যটকেরা মেঘের সৌন্দর্য্য উপভোগে ছুটে যাচ্ছে পার্বত্য জেলা বান্দরবানে।

বান্দরবান শহর থেকে দক্ষিণ-পূর্ব দিকে বান্দরবান-থানচি সড়কের পথ ধরে ছুটে চললে সড়কের দুধারে বিভিন্ন স্থানে দেখা মিলবে মেঘের। এখানে আকাশ-মেঘ ভ্রমণপিপাসু মানুষকে যেন হাতছানি দিয়ে ডাকছে। অবারিত সবুজ প্রান্তর যেখানে মিশে যায় মেঘের ভেলায়। এখানে মেঘের সাথে পাহাড়ের যেন আজন্ম বন্ধুত্ব। প্রকৃতি যেন সাজিয়েছে আপন মনের মাধুরী মিশিয়ে। এখানে ইচ্ছে করলেই ছোঁয়া যায় মেঘ,আকাশকেও মনে হয় বেশ কাছে, তাইতো পর্যটকদের কাছে দিন দিন জনপ্রিয় হয়ে ওঠছে এই জেলা।

ঢাকা থেকে বান্দরবানে বেড়াতে আসা পর্যটক মো. খালেকুর রহমান। পেশায় একজন বেসরকারি চাকুরীজীবি, কথা হলো তার সাথে। মো. খালেকুর রহমান জানান, তিনি প্রতিবছরই বান্দরবানে বেড়াতে আসেন। বান্দরবানের পাহাড়, নদী আর মেঘের ছোঁয়া খুবই মনোমুগ্ধকর।

যশোর থেকে বান্দরবানের পর্যটন কেন্দ্র চিম্বুক পাহাড়ে বেড়াতে আসা পর্যটক হামিদুর রহমান বলেন, বান্দরবানের সৌন্দর্য্য দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। প্রতিটি জায়গা যেন দেখার মত। সড়কের আকাঁবাঁকা মোড়, পাহাড়ের গায়ে পাহাড়ের ভাঁজ আর মেঘের ছড়াছড়িতে মন ভরে যায়। বিশেষ করে বান্দরবান থানচি সড়কের দুধারে যে মেঘ দেখা যায় তা সত্যিই অপূর্ব।

পাহাড়ি আঁকাবাঁকা সড়কের পথ পাড়ি দিয়ে সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে অনেক উচুঁতে পাহাড়ের চূড়ায় অবস্থিত বিভিন্ন পর্যটন কেন্দ্র। নীলগীরি,চিম্বুক পাহাড়,নীল দিগন্ত আর নীলাচল পর্যটন কেন্দ্রে ভ্রমণে এসে উঁচু পাহাড়ের চূড়ায় দাঁড়িয়ে এমন প্রাকৃতিক দৃশ্য প্রকৃতি প্রেমীদের করছে আরো বিমোহিত।

বান্দরবানের গাছগাছালি ঘেরা বিস্তীর্ণ পাহাড়, নদী, ঝর্ণার সৌন্দর্যের পাশাপাশি মেঘের দিগন্ত জোড়া সৌন্দর্য্য ভ্রমণ পিপাসু প্রতিটি মানুষকে করে উৎফুল্ল। তবে এই পর্যটন শিল্পকে সুন্দরভাবে গড়ে তুলতে প্রশাসনের আরো বেশি নজর দেয়া প্রয়োজন বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা।

বান্দরবানের বিশিষ্ট কবি, সংস্কৃতিকর্মী চৌধুরী বাবুল বড়ুয়া বলেন, বান্দরবান সত্যিই অপূর্ব একটি জেলা। তবে এই পর্যটন জেলাকে আরো সুন্দরভাবে সাজাতে প্রশাসনকে আরো দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা গ্রহণ করতে হবে।

এদিকে প্রশাসনের কর্মকর্তারা জানান, পর্যটন জেলা বান্দরবানকে সুন্দরভাবে সাজিয়ে পর্যটকদের আরো বেশি বিনোদন দেওয়ায় জন্য নতুন নতুন পরিকল্পনা গ্রহণ করছে জেলা প্রশাসন।

বান্দরবান জেলা প্রশাসনের নেজারত ডেপুটি কালেক্টর (এনডিসি) অরুণ কৃষ্ণ পাল বলেন, আমরা জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে বান্দরবানকে সুন্দর একটি পর্যটন জেলা হিসেবে গড়ে তুলতে কাজ করে যাচ্ছি। আমাদের জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে মেঘলা, নীলাচল, চিম্বুকসহ অসংখ্য পর্যটন কেন্দ্র গড়ে তোলা হয়েছে। এনডিসি অরুণ কৃষ্ণ পাল আরো বলেন, বান্দরবান আসলেই একটি সুন্দর শহর। এখানকার মনোরম পরিবেশ আসলেই সত্যিই সুন্দর। বিশেষ করে পাহাড় আর মেঘ দু’চোখ ভরে অনুভব করে পর্যটকেরা।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

প্রেমিকের সঙ্গে বিয়েতে পরিবারের অসম্মতি, অতপর…

বান্দরবানের আলীকদম উপজেলায় মুবিনা আক্তার নয়ন (১৬) নামের এক তরুনী গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছে …

Leave a Reply