নীড় পাতা » ব্রেকিং » ‘বাণিজ্যিক’ রিজার্ভবাজারে সুনশান নীরবতা

‘বাণিজ্যিক’ রিজার্ভবাজারে সুনশান নীরবতা

রাঙামাটি শহরের বাণিজ্যিক এলাকা খ্যাত রিজার্ভ বাজার এলাকাটির প্রধান সড়কে প্রত্যহ ভোর থেকে গভীর রাত পর্যন্ত নানা কাজে শহরবাসীর পদচারণায় প্রাণচঞ্চল থাকলেও এখন চারদিকে শুধুই সুনশান নীরবতা।

গতকাল বুধবার সকাল থেকে নভেল করোনাভাইরাসের সংক্রামণ না ছড়াতে প্রশাসনের ওষুধ, নিত্যপ্রয়োজনীয় ও কাঁচাবাজার ছাড়া অন্যদোকান বন্ধ রাখার ঘোষণার পর থেকে চারদিক নীরবতায় আচ্ছন্ন হয়ে পড়েছে। তবে বুধবার কয়েকটি সিএনজি অটোরিকশার আনাগোনা থাকার কারণে কিছুটা জনগণের আনাগোনা ছিল। কিন্তু বৃহস্পতিবার সকাল থেকে প্রয়োজন ছাড়া কোন মানুষ ঘর থেকে বের হচ্ছেন না। যারাই বের হচ্ছেন তারাও অতি প্রয়োজন বের হচ্ছেন, নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রী ক্রয় করতে।

এরমধ্যে সকাল থেকে যারাই কাঁচাবাজারে এসেছেন তাদের প্রায়জনকেই দেখা গেছে চৌমুহনী চত্বরের রাঙামাটি সেনা রিজিয়নের স্থাপন করা অস্থায়ী হাতধোয়ার স্থানে বার বার করে হাত ধুতে। আর তারা প্রত্যেকেই ব্যবহার করছে মাস্ক। ইতিমধ্যে শহরের বাণিজ্যিক এলাকাটির দোকান বন্ধ থাকার ঘোষণা আসার পর দোকানগুলোর অনেক চাকুরীজীবীদের ছুটি দেয়া হয়েছে। দোকান মালিকরাও চলে গেছেন নিজ নিজ বাসস্থানে। যার কারণে সকাল থেকে রাত পর্যন্ত শুধুই সুনশান নীরবতা। যে কয়েকটি নিত্যপ্রয়োজনীয় দোকান খোলা রয়েছে সে দোকানিরা অনেকে সীমিত আকারে খুলছে দোকান।

সকাল থেকে যারা অপ্রয়োজনীয় ঘুরাঘুরিতে বের হচ্ছেন তারাও প্রশাসনের কিছুক্ষণ পরপর টহলের কারণে তা থেকে বিরত হয়ে ঘরে চলে যাচ্ছেন। আইন-শৃঙ্খলাবাহিনীর টহল দেয়া সদস্যরা অপ্রয়োজনীয় ঘুরাঘুরি থেকে সবাইকে ঘরে পাঠানোর ব্যবস্থার সঙ্গে সঙ্গে যারা প্রয়োজনে ঘুরাঘুরি করছেন তাদেরও তিনফুট দূরুত্ব নিশ্চিত করতে হ্যান্ড মাইকের সাহায্যে মাইকিং করছেন। তবে তারমধ্যেও কিছু অসচেতন যুবকেরা অপ্রয়োজনীয় ঘুরাঘুরি রয়েছে।

রিজার্ভ মুখ এলাকায় বাসিন্দা সঞ্জয় জানান, সকালে কিছু নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের জন্য ঘর থেকে বের হয়ে পুলিশি জেরার মুখে পড়ি। কিন্তু প্রয়োজনের কথা জানালে তারা আমাকে যেতে দেয়। এ ধরনের পুলিশি টহলকে ধন্যবাদ জানান তিনি।

রিজার্ভ বাজারের বাসিন্দা মো. করিম জানান, কিছু কাঁচাবাজারের জন্য বের হয়েছি। বাজার করেই চলে যাব। বাজারের এসে প্রথমে হাত ধুয়েছি অস্থায়ী হাত ধোয়ার স্থানে।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

বছর না যেতেই ফের সড়কে ধস

পার্বত্য বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার বাইশারী-নারিচবুনিয়ার গ্রামীণ সড়কে পাথর বোঝাই ৩০ টনের ভারী যানবাহন চলাচল করায় …

Leave a Reply