নীড় পাতা » খেলার মাঠ » বরুন দেওয়ান আবার সাধারন সম্পাদক নির্বাচিত

বরুন দেওয়ান আবার সাধারন সম্পাদক নির্বাচিত

DSA-pic-01রাঙামাটি জেলা ক্রীড়া সংস্থার নির্বাচনে সহসভাপতি হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন যথাক্রমে শফিকুল ইসলাম মুন্না,প্রীতম রায় হিরো এবং সুনীল কান্তি দে। সাধারন সম্পাদক হিসেবে দ্বিতীয়বারের মতো নির্বাচিত হয়েছেন সাবেক জাতীয় ফুটবলার বরুন বিকাশ দেওয়ান। সহ সাধারন সম্পাদক হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন সাবেক ক্রিকেটার আবু সাদাত মো: সায়েম। যুগ্ম সম্পাদক হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন সাবেক জাতীয় ফুটবলার কিংশুক চাকমা ও শেখর সেন। অর্থ সম্পাদক হয়েছে মো: মনিরুল ইসলাম। ১২ টি সদস্য পদে নির্বাচিত হয়েছেন যথাক্রমে শফিকুল ইসলাম চৌধুরী,রনেল চাকমা,মো: মামুন মিন্টু,জয়জিৎ খীসা নতুন,টনক চাকমা,মো: শাহ আলম,ফজলুল করিম ফজল,মনোজ কুমার ত্রিপুরা,মো: আব্দুল শুক্কুর, মো: আব্দুল করিম লালু,মো: বাদশা আলমগীর ও মো: রমজান আলী।
এর আগে বিনাপ্রতিদ্বন্ধিতায় নির্বাচিত হয়েছিলেন দুই নারী ক্রীড়া সংগঠক বীনা প্রভা চাকমা ও মনোয়ারা জসীম এবং উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সাহাবউদ্দিন আজাদ ও সুদর্শন বড়ুয়া।

সহ সভাপতি : সহসভাপতির তিনটি পদেও জন্য লড়েছেন ছয় হেভিওয়েট প্রার্থী। এরা হলেন বিদায়ী কমিটির দুই সহসভাপতি সুনীল কান্তি দে ও হাজী কামালউদ্দিন,সাবেক কৃতি ফুটবলার শফিকুল ইসলাম মুন্না,এ্যাথলেটিক কোচ আবুল বশর চৌধুরী ও ক্রীড়াবিদ প্রীতম রায় হিরো । এখানে প্রীতম রায় এবং শফিকুল ইসলাম মুন্না সর্বাধিক ৫০ টি করে ভোট পান। লটারিতে শফিকুল ইসলাম মুন্না সিনিয়র সহসভাপতি হন। বিজয়ী অন্য জন হলেন রাঙামাটি প্রেসক্লাবের সভাপতি ও ক্রীড়া সংগঠক সুনীল কান্তি দে। তার প্রাপ্ত ভোট ৪৫। পরাজিত অন্য তিন প্রার্থী হাজী কামালউদ্দিন ৪১ ভোট,আবুল বশর চৌধুরী ৩৭ ভোট এবং মঈনউদ্দিন সেলিম ২০ ভোট পেয়েছেন।

সাধারন সম্পাদক : সাধারন সম্পাদক পদে লড়াই করেছেন বিদায়ী কমিটির সম্পাদক ও সাবেক জাতীয় ফুটবলার বরুন বিকাশ দেওয়ান,সাবেক ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক মামুনুর রশীদ মামুন,ও বিদায়ী কমিটির যুগ্ম সম্পাদক শফিউল আজম। সর্বোচ্চ ৩৩ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন বর্তমানে মায়ের চিকিৎসার জন্য ভারতে অবস্থান করা বরুন বিকাশ দেওয়ান। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধি শফিউল আজম পেয়েছেন ৩১ ভোট এবং আরেক প্রতিদ্বন্ধি মামুনুর রশীদ মামুন পেয়েছেন ২৫ ভোট।

সহ সাধারন সম্পাদক : সহ সাধারন সম্পাদক পদে দুই সাবেক ক্রিকেটার আবু সাদাত মো: সায়েম এবং নাছিরউদ্দিন সোহেল এর লড়াইয়ে আবু সাদাত সায়েম ৫৬ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার প্রতিদ্বন্ধি নাছিরউদ্দিন সোহেল পেয়েছেন ২২ ভোট।

যুগ্ম সম্পাদক : যুগ্ম সম্পাদক পদে লড়েছেন সাবেক ক্রিকেটার ইঞ্জিনিয়ার ইকবাল করিম, সাবেক জাতীয় ফুটবলার কিংশুক চাকমা,ক্রীড়া সংগঠক শেখর সেন ও নিবানন চাকমা। এখানে কিংশুক চাকমা এবং শেখর সেন ৫০ টি করে ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। পরে লটারিতে কিংশুক চাকমা সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন। অন্য দুই প্রার্থী নিভানন চাকমা ৩৯ ভোট এবং ইঞ্জিনিয়ার ইকবাল করিম ২৮ ভোট পেয়েছেন।

অর্থ সম্পাদক : এখানে মো: মনিরুল ইসলাম ৪৯ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার একমাত্র প্রতিদ্বন্ধি দেবেশ চাকমা পেয়েছেন ২২ ভোট।

সদস্য : সদস্য পদে সর্বোচ্চ ৬৭ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন মো: শফিকুল ইসলাম চৌধুরী। নির্বাচিত বাকীরা হলেন রনেল চাকমা (৬৬),মো: মামুন মিন্টু (৬ ২),জয়জিৎ খীসা নতুন (৫৬),টনক চাকমা (৫৩),মো: শাহ আলম (৫০),ফজলুল করিম ফজল(৫০),মনোজ কুমার ত্রিপুরা(৪৮),মো: আব্দুল শুক্কুর(৪৮), মো: আব্দুল করিম লাল(৪৮),মো: বাদশা আলমগীর(৪৬) ও মো: রমজান আলী(৪৫)। এখানে মৌমিত বড়ুয়া এবং রমজান আলী একই পরিমাণ ভোট পাওয়ায় লটারিতে রমজান আলী বিজয়ী হন।
সদস্য পদে পরাজিত অন্য প্রার্থীরা হলেন আশীষ কুমার চাকমা নব (৪৩),মো: আলী বাবর (৪২),তাপস চাকমা (৩০),আহম্মদ ফজলুর রশীদ সেলিম (৪১),আহম্মদ হুমায়ুন কবির (৩৯),স্বর্ণেন্দু ত্রিপুরা (৪০),মৌমিত বড়ুয়া (৪৫)।

এর আগে সকাল নয়টা থেকে বিকাল তিনটা পর্যন্ত টানা ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। রাঙামাটি জেলা ক্রীড়া সংস্থার কার্যালয়ে ভোটগ্রহণ চলে। রাঙামাটির অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট সাইফউদ্দীন আহম্মেদ নির্বাচন কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

বিবর্ণ পাহাড়ের রঙিন সাংগ্রাই

নভেল করোনাভাইরাসের আগের বছরগুলোতে এই সময় উৎসবে রঙিন থাকতো পাহাড়ি তিন জেলা। এই দিন পাহাড়ে …

Leave a Reply