নীড় পাতা » পাহাড়ের সংবাদ » বনভন্তের স্মৃতি রক্ষায় জমি দান এক পাহাড়ী নারীর

বনভন্তের স্মৃতি রক্ষায় জমি দান এক পাহাড়ী নারীর

Rangamati-pic,01wcরাঙামাটি রাজবনবিহারের অধ্যক্ষ প্রয়াত বনভন্তের স্মৃতি ভাবনা কেন্দ্রের নামে ৫ একর জমি দান করলেন, এক পাহাড়ি নারী জ্ঞান প্রভা চাকমা। রাঙামাটিতে শহরের টিভিষ্টেশন এলাকায় অবস্থিত ১০২নং রাঙ্গাপানি মৌজার ডা: আব্দুল হকের জমিটি খুবই সাশ্রয়মূলে কিনে নেন তিনি। তাছাড়া ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের নামে দেখে জমির মালিক মোহাম্মদ আব্দুল হক নামমাত্র দামে তার ৫ একর জায়গা বিক্রি করেন জ্ঞান প্রভা চাকমাকে।
মঙ্গলবার বিকালে আনুষ্ঠানিক ভাবে মোহাম্মদ আব্দুল হক জমি কাগজপত্র বুঝিয়ে দেন জ্ঞান প্রভা চাকমাকে। আবার একই সময় জ্ঞান প্রভা চাকমা জমিটি দান করে দেন বনভান্তে স্মৃতি ভাবনা কেন্দ্রের নামে। এসময় উপস্থিত ছিলেন, দীঘিনালা বন বিহারের কমিটির পরিচালক ও কবাখালী ইউপি চেয়ারম্যান বিশ্বকল্যাণ চাকমা, ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি ডা:মৃণাল কান্তি চাকমা, কমিটির উপদেষ্টা সাধনমনি চাকমা, সদস্য সুজন্ত দেওয়ান, সীমা দেওয়ান, রূপেন্দু বিকাশ চাকমা, সুপ্রভা তংচঙ্গ্যা প্রমুখ।
জ্ঞান প্রভা চাকমা বলেন,মোহাম্মদ আব্দুল হক আমাকে মেয়ের মতো দেখে ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের জন্য তার ৫ একর জমিটি মাত্র ২৫ লক্ষ টাকার বিনিময়ে দিয়েছেন। বনভান্তের শীষ্য নন্দপাল মহাস্থবিরকে বনভান্তে স্মৃতি ভাবনা কেন্দ্রের নামে জমিটি দান করলাম। কারণ আমার ইচ্ছা ছিল এই জমিতে একটি মন্দির করবো।
এ ব্যাপারে জমি মালিক আব্দুল হক জানান, বিগত ৫০ বছর আগে থেকে আমি ১০২নং রাঙ্গাপানি মৌজার জমির মালিক ছিলাম। এ জমিতে অনেক বাগান করেছি। এখন গাছপালাসহ জমিটি জ্ঞান প্রভা চাকমাকে বিহারের উদ্দেশ্যে খুবই সাশ্রয়মূলে নামমাত্র দামে আমি আমার ৫ একর জায়গা ২৫ লক্ষ টাকায় বিক্রি করেছি।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

লংগদুতে দুর্যোগ বিষয়ক প্রশিক্ষণ কর্মশালা

রাঙামাটির লংগদুতে উপজেলা পর্যায়ে ‘দুর্যোগবিষয়ক স্থায়ী আদেশাবলী (এসওডি)-২০১৯’ অবহিতকরণ প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার লংগদু …

Leave a Reply