নীড় পাতা » ব্রেকিং » বখাটে ‘মাথা গরম’ বাপ্পির চার মাসের জেল

বখাটে ‘মাথা গরম’ বাপ্পির চার মাসের জেল

‘মাথাটা আমার একটু বেশিই গরম ! কখন কী করি ঠিক থাকেনা। ও আমার বিরুদ্ধে কতো নালিশ দিতে পারে তাই জানতে চাইছিলাম। কিন্তু উত্তর পছন্দ না হওয়ায় চাপড়াতে চাপড়াতে দাত ফেলে দেবো বলেছি। ভবিষ্যতেও বাড়াবাড়ি যেন না করে বলে দিয়েছি আরকি ! কাউখালী ডিগ্রি কলেজের ¯œাতকের এক ছাত্রীকে উত্যক্ত করার পর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে ভয়লেশহীন এমন বয়ান দিচ্ছিল বাপ্পি চন্দ্র দাস (২০)।
যদিওবা এঘটনায় কাউখালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আফিয়া আখতার ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে তাকে চারমাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড দিয়েছেন। ফলে তার নতুন ঠিকানা এখন রাঙামাটি জেলা কারাগার।

প্রায় বছর খানেক আগে কলেজে গিয়ে ওই কলেজ ছাত্রির সহপাঠি হৃদয় ও নয়নকে মারধর করায় শ্রেণির শিক্ষার্থিরা একযোগে স্বাক্ষর দিয়ে বাপ্পির বিরুদ্ধে অধ্যক্ষের কাছে বিচার প্রার্থী হয়েছিল। তারই কৈফিয়ত নিতে বুধবার গতিরোধ করে ওই ছাত্রীর।

অবশ্য বাপ্পির এমন কীর্তির(?) ধারাবাহিকতা ক’বছর আগ থেকেই। সে উপজেলা সদরের পোয়াপাড়া মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের কারিগরি শাখা থেকে চারবারের চেষ্টায় এসএসসি পাশ করেছে। ওই সময়েই বখাটেপনার জন্য ওই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকেও দুইবার বহিষ্কৃত হয়েছিল।

সরকার দলের কতিপয় ব্যক্তির আসকারা পেয়ে লাগামহীন হয়ে পড়ায়, নিয়ন্ত্রনে রাখতে না পেরে স্কুল শাখা ছাত্রলীগ থেকেও তাকে বহিষ্কার করা হয়েছিল বছরখানেক আগে। অন্তত দশবার সামাজিক বৈঠকে নানা অপরাধের বিচার করে এরপর স্থানীয় গ্রামবাসী তাকে গ্রাম থেকে বিতাড়িত করে। এরপর মাঝে প্রায় এক বছর দেখা নেই। সর্বশেষ সোমবার বাপ্পি আবারো কাউখালীতে এসে পাতানো বন্ধুর বাড়িতে অবস্থান নেয়।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বাপ্পি উপজেলার বেতছড়ি পাইনবাগান এলাকায় দুরসম্পর্কের এক আতœীয়ের সুত্রে কাউখালীতে আসে বছর চারেক আগে। তার বাবা দুলাল চন্দ্র দাস স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের চাকুরে।

ছাত্রীটি অভিযোগ করেছেন, বুধবার (৪ ফেব্রুয়ারি) সকালে কলেজে যাওয়ার পথে উপজেলা সদরের সাঁকো এলাকায় বাপ্পি ওই ছাত্রীর গতিরোধ করে অশ্লীল আচরণ ও গালমন্দ করে। বিষয়টি কাউকে জানালে দেখে নেওয়ারও হুমকি দেয়। আকস্মিক এ ঘটনায় আতংকিত ওই ছাত্রী তিন সহপাঠিসহ উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে জানান।

বিষয়টি দ্রুত ছড়িয়ে পড়লে স্থানীয়রা বাপ্পিকে আটক করে উপজেলা নির্বাহী অফিসার আফিয়া আখতারের কার্যালয়ে নিয়ে যান। আক্রান্ত ছাত্রীর ভাষ্য, স্থানীয়দের জবানবন্দি ও আটককৃত বাপ্পি দাসের স্বীকারোক্তিতে ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে দন্ডবিধির ৫০৯ ধারায় (ইভটিজিংয়ের দায়ে) অভিযুক্ত করে চার মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করা হয়।

এসময় নিজেকে কাউখালী কলেজের ছাত্র দাবী করা বাপ্পি রোল নম্বর ও কলেজের পরিচয়পত্র দেখাতে পারেনি। এমনকি মাত্র একদিন কলেজে গিয়েছিলো বলেও দাবী করে।

তবে কাউখালী কলেজের অধ্যক্ষ আব্দুল কাদের এ দাবি নাকচ করে দিয়ে পাল্টা অভিযোগ করে বলেন, বখাটে বাপ্পিকে কলেজের ছাত্রীদের উত্যক্ত করায় একাধিকবার সতর্ক করা হয়েছে। এমনকি উপজেলা আইন শৃঙখলা সভাতেও ছাত্রীদের উত্যক্ত করার অভিযোগ করেছিলাম। তখন প্রতিকার পেলে আজ এমনটা রোধ করা যেতো।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

বিবর্ণ পাহাড়ের রঙিন সাংগ্রাই

নভেল করোনাভাইরাসের আগের বছরগুলোতে এই সময় উৎসবে রঙিন থাকতো পাহাড়ি তিন জেলা। এই দিন পাহাড়ে …

Leave a Reply

%d bloggers like this: