নীড় পাতা » ব্রেকিং » ফ্রেন্ডস ক্লাবের অবৈধ স্থাপনা অপসারণে নাগরিক সমাজের স্মারকলিপি

রাঙামাটির জেলা প্রশাসককে

ফ্রেন্ডস ক্লাবের অবৈধ স্থাপনা অপসারণে নাগরিক সমাজের স্মারকলিপি

কাপ্তাই হ্রদের বুকে নির্মাণাধীন অভিজাত ফ্রেন্ডস ক্লাবের নির্মাণাধীন স্থাপনা অপসারন, হ্রদে বর্জ্য ফেলা বন্ধ এবং পরিবেশ দূষন বিরোধী সকল কার্যক্রম রোখার দাবিতে রাঙামাটির জেলা প্রশাসককে স্মারকলিপি দিয়েছে রাঙামাটির নাগরিক সমাজ।

বুধবার সকালে রাঙামাটির জেলা প্রশাসক একেএম মামুনুর রশিদকে দেয়া এক স্মারকলিপিতে নাগরিক সমাজের পক্ষ থেকে বলা হয়, ‘কিন্তু আমরা গভীর উদ্বেগের সাথে লক্ষ্য করছি যে, সাম্প্রতিক সময়ে হ্রদের পাড়ে ব্যাপকহারে অবৈধ স্থাপনা নির্মাণ হ্রদের নৌ প্রবাহকে বাধাগ্রস্ত ও ক্ষতিগ্রস্ত করছে, যার দীর্ঘমেয়াদী নেতিবাচক প্রভাব ইতোমধ্যেই পড়ছে। সাম্প্রতিক সময়ে রিজার্ভমুখে শহীদমিনারের পাশে একটি অভিজাত হোটেল নির্মাণের অপচেষ্টা আপনার উদ্যোগে বন্ধ করে দেয়ার পর আবারও শহরের তবলছড়ি লঞ্চঘাটের নৌপ্রবাহে একটি অভিজাত ক্লাবের বহুতল ভবন নির্মাণের চেষ্টা অত্যন্ত বেদনাদায়ক। একই সময়ে আসামবস্তি, রিজার্ভবাজার এবং বনরূপা এলাকায়ও একাধিক ভবন নির্মিত হতে দেখা যাচ্ছে হ্রদের বুকে। বিষয়টি অত্যন্ত হতাশাজনক।’

স্মারকলিপিতে আরও বলা হয়, ‘ষাটের দশকে কাপ্তাই পানিবিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণের পর সৃষ্ট কাপ্তাই হ্রদ রাঙামাটির পুরো জেলা এবং খাগড়াছড়ি জেলার কিছু অংশের মানুষের খাবার ও ব্যবহার্য পানির প্রধান উৎস। দেশের অন্যতম নদী কর্ণফুলি,কাচালংও এই হ্রদের বুকে বিলীন হওয়ায় এই জলাধারটি এই অঞ্চলের অর্থনৈতিক কর্মকান্ডেরও প্রধান মাধ্যম। এখানকার জীবন ও জীবিকার সাথে এই হ্রদের সম্পর্ক গভীরতর। এই জেলায় বেড়াতে আসা পর্যটকদের নৌবিহারের অন্যতম আকর্ষন এবং দেশের মিঠাপানির মাছের অন্যতম প্রধান ভান্ডারও এই হ্রদ।’

একই সাথে বলা হয়, ‘কাপ্তাই হ্রদের পাড়ে নির্মিতব্য সকল অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করে হ্রদের পানিপ্রবাহ স্বাভাবিক রাখার উদ্যোগ নেয়ার বিনীত আবেদন করছি। একই সাথে হ্রদে বর্জ্য ফেলাসহ পরিবেশ দূষণবিরোধী সকল কার্যক্রম বন্ধেও আপনার হস্তক্ষেপ কামনা করছি।’

স্মারকলিপিতে সাক্ষর করেন,রাঙামাটি জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট দীননাথ তঙ্গচঙ্গ্যা,দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি মো. ওমর ফারুক, সাধারণ সম্পাদক ললিত সি চাকমা, গণসঙ্গীত শিল্পী কালায়ন চাকমা, গবেষক ও লেখক শাওন ফরিদ, রাঙামাটি নাগরিক অধিকার সংরক্ষণ কমিটির সদস্য সচিব ও জেলা যুব ইউনিয়নের সভাপতি এম বখতেয়ার উদ্দিন, জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক আবু সাদাৎ মো. সায়েম, দৈনিক পার্বত্য চট্টগ্রাম সম্পাদক ফজলে এলাহী, গ্লোবাল ভিলেজের সাধারণ সম্পাদক হেফাজত সবুজ, উন্নয়নকর্মী সুচরিতা চাকমা, নুকু চাকমা, জেলা খেলাঘর আসরের সভাপতি জাহেদ আবেদীন, সাধারণ সম্পাদক সৈকত রঞ্জন চৌধুরী, রাঙামাটি রিপোর্টার্স ইউনিটির সহসভাপতি ও সিনিয়র সাংবাদিক চৌধুরী হারুনুর রশীদ, আবৃত্তিশিল্পী ও উপস্থাপক লিটন দেব, উন্নয়নকর্মী সুব্রত খীসা, গোর্কি চাকমা, তন্বী দেওয়ান, এপ্পি চাকমা, গণমাধ্যমকর্মী ও বর্ণমালার সভাপতি শংকর হোড়, স্বেচ্ছাসেবক ইয়াছিন রানা সোহেল, জেলা ছাত্র ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক প্রান্ত দেবনাথসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার বিশিষ্টজনরা।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

লংগদুতে বিজ্ঞান মেলা

‘তথ্য প্রযুক্তির সদ্বব্যবহারঃ আসক্তি রোধ’ প্রতিপাদ্য বিষয়ের আলোকে ৪২তম জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সপ্তাহ উপলক্ষে …

Leave a Reply