নীড় পাতা » বান্দরবান » ফিরে দেখা ‘সম্প্রীতির’ বান্দরবান

সালতামামি - ২০১৯

ফিরে দেখা ‘সম্প্রীতির’ বান্দরবান

নানা ঘটনা-দুর্ঘটনার মধ্যে দিয়ে বিদায় নিল ২০১৯ সাল। এসেছে নতুন বছর ২০২০। বিদায়ী বছর জুড়ে পার্বত্য জনপদ বান্দরবানে বহু ঘটনা ঘটেছে, যা দেশের সীমানা ছাড়িয়ে আলোচনা সমালোচনার ঝড় তুলেছে আর্ন্তজাতিক অঙ্গনেও।

আধিপত্য বিস্তারের ফল লাশ: সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির জেলা বান্দরবানেও আধিপত্য বিস্তারের দ্বন্দ্বে রক্তক্ষয়ী সংঘাতে পড়ছে লাশ। বিদায়ী বছর মার্চ মাসে রাজবিলা ইউনিয়নে আঞ্চলিক রাজনৈতিক সংগঠন জনসংহতি সমিতির ইউনিয়ন শাখার সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক অংক্যচিং মারমাকে মাথায় গুলি করে হত্যা করা হয়। মে মাসে জেএসএস কর্মী বিনয় তঞ্চঙ্গ্যাকে গুলি করে হত্যা এবং রাবার বাগানের শৈলতন পাড়া থেকে পুরাধন তঞ্চঙ্গ্যাকে অপহরণের পর হত্যা করা হয়। ওই মাসেই জনসংহতি সমিতির কর্মী পুত্রকে খোঁজে না পেয়ে পিতা জয়মনি তঞ্চঙ্গ্যাকে গুলি করে হত্যা করে সন্ত্রাসীরা।

অপরদিকে আওয়ামীলীগের কর্মী ক্যচিং থোয়াই মারমাকে গুলি করে হত্যা করে সন্ত্রাসীরা। একই মাসে বান্দরবান আওয়ামীলীগের পৌর কমিটির সহ-সভাপতি চথোয়াই মং মারমাকে অপহরণের পর হত্যা করে সন্ত্রাসীরা। জুনমাসে রোয়াংছড়ি উপজেলায় বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে জেএসএস কর্মী অংথুই চিং মারমাকে গুলি করে হত্যা করা হয়। জুলাই মাসে লামা উপজেলার সরই ইউনিয়নে মোটর-সাইকেল চালিয়ে খামারবাড়ি থেকে বাড়িতে যাবার সময় ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে আওয়ামীলীগনেতা মো. আলমগীরকে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় জনসংহতি সমিতির শীর্ষ নেতাদের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা করা হয়।

সীমান্তে উত্তেজনা: জেলার নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুম ইউনিয়নের তুমব্রু সীমান্তের নোম্যান্স ল্যান্ডের দিকে শতাধিক রাউন্ড ফাকা গুলি ছুঁড়ে মিয়ানমারের সীমান্তরক্ষী বাহিনী বর্ডার গার্ড পুলিশ (বিজিপি)। মধ্যরাতে গোলাগুলির শব্দে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে সীমান্তের শূণ্যরেখায় আশ্রয় নেয়া মিয়ানমারের রোহিঙ্গাদের মধ্যে। এসময় আতঙ্কে কিছু রোহিঙ্গা বাঁশের সাকো পেরিয়ে বাংলাদেশের ভুখ-ে চলে আসে। নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা সীমান্তের বিভিন্ন পয়েন্টে বাংলাদেশ বর্ডার গার্ড (বিজিবি) নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়। ঘুমধুম সীমান্তে মাইন বিস্ফারণে ২ জন রোহিঙ্গা যুবকের মৃত্যু হয়েছে। নাইক্ষ্যংছড়ির ঘুমধুম মিয়ানমার সীমান্তে বিজিবি সঙ্গে চোরাকারবারী চক্রের গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে। এসময় ২ বিজিবি সদস্য গুলিবিদ্ধ হওয়ার ঘটনাও ঘটে। পরের মাসে নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুম সীমান্তে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) সঙ্গে মাদক চোরাকারবারীর গোলাগুলিতে ২ জন চোরকারববারীর মৃত্যু হয়।

কারাগারেই কয়েদির মৃত্যু: বান্দরবান কারাগারে আটক ৬ মাসের সাজাপ্রাপ্ত কয়েদি আব্দুর শুক্কুর হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েন। কারাগারের হেলথ সেন্টার থেকে ওষুধ নিয়ে ওয়ার্ড রুমে ফেরারপথে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে তার মৃত্যু হয়। কক্সবাজার কারাগারে আসামির সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায় নিহত কয়েদি আব্দুর শুক্কুরকে ২০১৮ সালের ডিসেম্বর অন্যবন্দিদের সঙ্গে বান্দরবান কারাগারে হস্তান্তর করা হয়।

পর্যটকের মৃত্যু: জেলার রুমায় বেড়াতে গিয়ে খালের পানিতে ডুবে নৌ-বাহিনীর কর্মকর্তা লেফটেন্যান্ট মো. সাইফুল্লাহ এবং কলেজ ছাত্রী জান্নাতের মৃত্যু হয়। অপরদিকে ঝুরঝুড়ি ঝর্ণায় গোসল করতে গিয়ে পানিতে ডুবে রাজধানী আইডিয়াল কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্র মো. তাহাসান আহমেদ মারা যায়। অপরদিকে পর্যটক ধর্ষণের অভিযোগে মো. রাসেল নামে ট্যুরিস্ট গাড়ীর চালককে এক চালককে গ্রেফতার করা হয়। লামায় অটোরিকশা উল্টে মো. রাজন মিয়া নামে এক পর্যটকের মৃত্যু হয়।

সড়কে মড়ক: লামায় বেটারিচালিত টমটমের সঙ্গে ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে নারীসহ ৩ জনের মৃত্যু হয়। থানচিতে চাঁদের গাড়ি উল্টে ২ জনের মৃত্যু হয়। থানচিতে জীবননগরে সেনাবাহিনীর মাইক্রোবাস খাদে পড়ে সার্জেন ওবাদুল্লাহের মৃত্যু হয়। লামায় সড়ক দুর্ঘটনায় পুলিশ কনস্টেবলের মৃত্যু।

গোলা বিস্ফোরণে সেনা সদস্য নিহত: বান্দরবানের সূয়ালক ইউনিয়নে সেনাবাহিনীর প্রশিক্ষণ অঞ্চলে পরিত্যক্ত গোলা বিস্ফোরণে এক সেনা সদস্য নিহত হয়। এসময় আরও ১১ জন সেনা সদস্য আহত হয়।

ডেঙ্গু : বান্দরবানের রুমায় ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে আওয়ামীলীগ নেত্রী ডমেচিং মারমা’র মৃত্যু হয়। এছাড়াও অর্ধশতাধিক লোকজন আক্রান্ত হয়।

অপমৃত্যু : থানচি উপজেলার সদর ইউনিয়নের চমিপাড়া পাহাড়ের ঝিরির পাশ্ববর্তী জঙ্গল থেকে অর্ধগলিত অবস্থায় ফেরিওয়ালা মোহাম্মদ আইয়ুবের লাশ উদ্ধার করা হয়। পাহাড়ের সংগীতা তারকা পঙ্কজ দেবনাথের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার। নাইক্ষ্যংছড়িতে নারীর লাশ উদ্ধার। যাত্রী ছাউনি থেকে রিকশা চালকের লাশ উদ্ধার। পুকুর থেকে স্কুল দপ্তরির লাশ উদ্ধার করা হয়।

বন্যপ্রাণীর মৃত্যু : আবাসস্থল এবং খাদ্য সংকটে লোকালয়ে নেমে আসছে বন্য হাতিরা। ২০১৯ সালে বান্দরবানে পাঁচটি বন্য হাতির মৃত্যু হয়। তারমধ্যে নভেম্বর মাসে লামা উপজেলার ফাসিয়াখালী ইউনিয়নের হরিরঞ্জন বাবুর রাবার বাগানে ১টি, কুমারী ইসকাটার ঝিড়ি এলাকায় ১টি এবং ইয়াংছা চাককাটা ঝিরি এলাকায় ১টি এবং এপ্রিল মাসে বান্দরবান সদর উপজেলার সূয়ালক ইউনিয়নের প্রান্তিক লেক পর্যটন কেন্দ্রের লেকের পানিতে ১টি, সেনাবাহিনীর ফায়ারিং রেঞ্জের অভ্যন্তরে কদুখোলায় ১টি।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

দীঘিনালায় কৃষকের কাছ থেকে ধান কেনায় অনিয়ম

খাগড়াছড়ির দীঘিনালায় কৃষকের কাছ থেকে ন্যায্যমূল্যে ধান ক্রয়ে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। গত সোমবার উপজেলার মেরুং …

Leave a Reply