নীড় পাতা » পাহাড়ে নির্বাচনের হাওয়া » প্রার্থী ছয়,মাঠে চার,লড়াই দু’য়ের

প্রার্থী ছয়,মাঠে চার,লড়াই দু’য়ের

2-picআর মাত্র কয়েকটা দিন বাকী দশম সংসদ নির্বাচনের। দেশের অর্ধেক আসনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়ায় নির্বাচনী আমেজ না থাকলেও রাঙামাটি আসনে বিএনপি ছাড়াও আঞ্চলিক দলগুলোর সক্রিয় অংশগ্রহণে উত্তেজনা একটুও কমেনি। বরং অন্যান্য আসনে বিএনপির প্রার্থী না থাকাতে আওয়ামী লীগের জয়ের ক্ষেত্রে কোনো প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি না হলেও রাঙামাটি আসনে এর উল্টো ঘটনা ঘটছে। এই আসনে বিএনপির প্রার্থী না থাকায় আওয়ামী লীগের প্রার্থী আরো বেশি চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েছে।

রাঙামাটি আসনে ছয় প্রার্থীর মনোনয়ন গৃহীত হলেও মাঠে রয়েছেন চার প্রার্থী। আর এর মধ্যে লড়াইয়ে থাকবে দুই প্রার্থী। ছয় প্রার্থীর মধ্যে আওয়ামী লীগের দীপংকর তালুকদার, পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি সমর্থিত প্রার্থী ঊষাতন তালুকদার, ইউপিডিএফের সমর্থিত প্রার্থী সচিব চাকমা, জনসংহতি সমিতি(এমএনলারমা)সমর্থিত সুধাসিন্ধু খীসা, এডভোকেট আবছার আলী ও জাতীয় পার্টির প্রার্থী ডাঃ রূপন দেওয়ান কাগজে কলমে প্রার্থী রয়েছেন। তবে এর মধ্যে রূপন দেওয়ান তাঁর মনোনয়ন প্রত্যাহার করার আবেদন করলেও সই মিল না থাকায় মনোনয়নপত্র বাতিল হয়নি। মনোনয়নপত্র বাতিল না হলেও তিনি নির্বাচন করবেন না বলে আগেই জানিয়ে রেখেছিলেন। অন্যদিকে রাঙামাটি আসনে ইউপিডিএফের স্বতন্ত্র প্রার্থী সচিব চাকমা আরেক স্বতন্ত্র প্রার্থী সুধাসিন্ধু খীসাকে সমর্থন দিয়েছেন বলে শোনা গেলেও কেউ প্রকাশ্যে এটি স্বীকার করিনি। তবে সচিব চাকমারও কোনো প্রচারণা চোখে না পড়ায় বিষয়টি একপ্রকার নিশ্চিত বলে মনে করছেন রাঙামাটিবাসী। তাই মাঠে এই দুই প্রার্থীর প্রচারণা বাদে বাকী চার প্রার্থীর প্রচারণা চলছে জোরসে। তবে এর মধ্যে লড়াই সীমাবদ্ধ থাকবে নৌকা প্রতীকে দীপংকর তালুকদার ও হাতী প্রতীকে ঊষাতন তালুকদারের মধ্যে।

বিএনপির প্রার্থীবিহীন রাঙামাটির নির্বাচন বিশ্লেষন করে দেখা যায়, রাঙামাটি আসনে দুই তালুকদারের মধ্যে লড়াই সীমাবদ্ধ থাকবে। তবে এক্ষেত্রে বাকী যে দুইজন মাঠে রয়েছেন তাদের ভোট পাওয়ার সংখ্যার ওপর নির্ভর করবে এই দুইজনের জয়ের হিসাব-নিকাশ। দীপংকর তালুকদার চুক্তির বিষয়ে কোনো কাজ করেনি এমন অভিযোগ এনে বেশিরভাগ পাহাড়ি ভোটার তাকে ভোট নাও দিতে পারেন। আবার অন্যদিকে এই ভোটগুলো ঊষাতন তালুকদার কিংবা সুধাসিন্ধু খীসার বাক্সে পড়বে। তবে তুলনামূলক ঊষাতন তালুকদার ভালো অবস্থানে থাকায় সুধাসিন্ধু খীসার যত ভোট বাড়বে ততই ঊষাতন তালুকদারের জয়ের সম্ভাবনা কমবে। অন্যদিকে বাঙালি ভোটের দিকে তাকিয়ে তাকা দীপংকর তালুকদারও ভালো অবস্থানে রযেছেন। তবে বাঙালি প্রার্থী হিসেবে দাবি করা এডভোকেট আবছার আলী বাক্সে যত ভোট পড়বে ততই কমবে দীপংকরের পুনরায় সংসদ সদস্য হওয়ার স্বপ্ন।

ঊষাতন তালুকদারের নির্বাচনী এজেন্ট উদয়ন ত্রিপুরা জানান, যদি সুষ্ঠু নির্বাচন হয়, তবে আমরা অবশ্যই জয়ী হবো। সবার জন্য লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরি করতে পারলে জনগণ যাকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করবে আমরা তাঁকে মাথা পেতে নেবো। আঞ্চলিক দলের অন্যান্য প্রার্থী ভোটে কোনো প্রভাব ফেলবে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এখানে সবাই স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে অংশগ্রহণ করছে। কোনো আঞ্চলিক দল হিসেবে নয়। তাই ব্যক্তি হিসেবে যে যোগ্য, জনগণ তাঁকে ভোট দেবে।

দীপংকর তালুকদারের নির্বাচনী এজেন্ট মোঃ জাকির হোসেন চৌধুরী জানান, রাঙামাটি আসনে যারাই প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন তা সবাই শক্ত প্রতিদ্বন্দ্বী। এখানে কাউকেই এককভাবে প্রতিদ্বন্দ্বী ভাবার সুযোগ নেই। তবে নির্বাচনে জয়ের ব্যাপারে তিনি শতভাগ আশাবাদী।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

কাপ্তাই হ্রদ ব্যবস্থাপনা কমিটির সচিবের অনুপস্থিতে ক্ষেপেছেন ডিসি !

রাঙামাটির কাপ্তাইয়ে অবস্থিত কর্ণফুলী জলবিদ্যুৎ কেন্দ্রের ব্যবস্থাপক ও কাপ্তাই হ্রদ ব্যবস্থাপনা কমিটির সদস্য সচিব এটিএম …

Leave a Reply