প্রতিবাদের ঝড় অনলাইনে-অফলাইনে

taxi-02মঙ্গলবার সন্ধ্যায় রাঙামাটি শহরে অটোরিক্সা চালকদের হাতে জেলার অন্যতম প্রবীণ সাংবাদিক সুনীল কান্তি তে সস্ত্রীক অপদস্ত হওয়ার ঘটনা মেনে নিতে পারছেন না রাঙামাটির সাংবাদিক সমাজ,প্রশাসনিক কর্মকর্তা থেকে শুরু করে সকল শ্রেণী পেশার মানুষ।

ক্ষুদ্ধ সাংবাদিককে সকল ভেদাভেদ ভুলে বুধবার রাঙামাটির জেলা প্রশাসক মো: সামসুল আরেফিন এর সাথে বৈঠকে মিলিত হন এবং দোষীদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান। এসময় সাংবাদিকরা অটোরিক্সা চালকদের জন্য নির্দিষ্ট পোষাক নির্ধারন,পরিচয়পত্র বহল,শহরে চলাচলকারি অবৈধ অটোরিক্সার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ, চালকের পাশে অতিরিক্ত যাত্রী পরিবহনে নিষেধাজ্ঞা, ভাড়ার তালিকা ঝোলানো এবং আচরণবিধি প্রণয়নের দাবি জানান এবং এসব বাস্তবায়নে নিয়মিত মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করার পরামর্শ দেন।

জেলা প্রশাসক ,প্রবীন সাংবাদিক সুনীল কান্তি দে’র অপদস্থ হওয়ার ঘটনায় দু:খ প্রকাশ করে বলেন,এটা সবার জন্যই লজ্জার যে, জেলার একজন পরিচিত ও সবমহলের কাছে শ্রদ্ধাভাজন একজন ব্যক্তিকে এভাবে অপদস্থ হতে হলো। তিনি বিষয়টি সম্পর্কে অটোরিক্সা চালক সমিতির সাথে আলোচনা করে কঠোর পদক্ষেপ নেয়ার ব্যাপারে সাংবাদিকদের আশ্বস্থ করেন।

একজন বয়স্ক এবং সবমহলে পরিচিত মানুষকে প্রকাশ্যে লাঞ্চনা ও অপদস্থ করার ঘটনাকে নজিরবিহীন মন্তব্য করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকেও ক্ষুদ্ধ প্রতিক্রিয়া জানায় অনেকে।

রাঙামাটির সন্তান ও বর্তমানে সংযুক্ত আরব আমিরাতে বাংলাভিশন এর ব্যুরো প্রধান জাহাঙ্গীর কবির বাপ্পী লিখেন, ‘দুঃখজনক ঘটনা…সরি দাদা। তবে ভাল লাগছে একজন প্রবীন সাংবাদিকের পাশে তাঁর সাংবাদিক সহকর্মীরা যেভাবে একজোট হয়ে দাঁড়ালেন তা দেখে।’

সাংবাদিক ফারুক আহম্মেদ লিখেন, ‘শুধু সুনীল দা নয়. এতে অপমানিত হলো পার্বত্য ভূমির শত সাংবাদিক. এমন ঘটনার সুষ্ঠু বিচার দাবি করছি।’

কাউখালি প্রেসক্লাবের সভাপতি জিয়াউর রহমান জুয়েল লিখেন, ‘পা ধরে ক্ষমাই শেষ নয়, বরং সাংবাদিকদের দাবী বাস্তবায়নে প্রশাসনকে তড়িৎ ব্যবস্থা নিতে হবে, যেন একটি চরম উদাহরণ হয়ে থাকে অন্য টেক্সি চালকদের কাছে।’

শহরের বিশিষ্ট ব্যবসায়ি দেবব্রত চৌধুরী কুমকুম লিখেন, ‘সাম্প্রতিক সময়ে টেক্সীচালকদের গাদ্দারিপনা চরম আকার ধারন করেছে তাতে সন্দেহ হয় তা রাংগামাটির একমাত্র গনপরিবহন কিনা। ঘটে যাওয়া ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ করছি।’

প্রকৌশলী অমিত বরণ ধাম লিখেন, That Auto Driver and Leader should push back forever from Rangamati ….Also should take step against domination of So called CNG syndicate..”

মধ্যপ্রাচ্য প্রবাসি হোসেন মোহাম্মদ ইকবাল লিখেন , ‘সুনীল দাদা একজন সম্মানিত মানুষ তার সাথে এই রকম আচরন খুব দু:খ জনক।’

উন্নয়নকর্মী রিপন ঘোষ লিখেন, ‘এটা মোটেও শুভ লক্ষণ নয়, আমার মনে হয় রাঙ্গামাটির প্রায় মানুষ এদের কাছে লাঞ্চিত হয়েছে, এটার প্রতিকার চাই, সম্মানিত মানুষ তার সাথে এই রকম আচরন খুব দু:খ জনক।’

এভাবে অসংখ্য মানুষ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নিজেদের তীব্র ক্ষোভ আর হতাশা, প্রতিবাদে কথা তুলে ধরেন।

এদিকে রাঙামাটি যাত্রী ও ভোক্তা অধিকার সংরক্ষন কমিটির সদস্যসচিব কামালউদ্দিন এক বিবৃতিতে, সাংবাদিক সুনীল কান্তি দে’কে অপদস্ত করার ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বলেছেন,কিছু টেক্সী চালকের কারণে পুরো শহরবাসি জিম্মি হয়ে আছে,এ অবস্থা চলতে দেয়া যায়না। তিনি প্রবীন সাংবাদিক সুনীল কান্তি দে’কে অপদস্ত করার ঘটনার সাথে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

কারাতে ফেডারেশনের ব্ল্যাক বেল্ট প্রাপ্তদের সংবর্ধনা

বাংলাদেশ কারাতে ফেডারেশন হতে ২০২১ সালে ব্ল্যাক বেল্ট বিজয়ী রাঙামাটির কারাতে খেলোয়াড়দের সংবধর্না দিয়েছে রাঙামাটি …

Leave a Reply