নীড় পাতা » খাগড়াছড়ি » প্রেমের ফাঁদে জীবন দিলো মহালছড়ির বিলকিছ বেগম

প্রেমের ফাঁদে জীবন দিলো মহালছড়ির বিলকিছ বেগম

আরো একটি নারী নির্যাতনের ঘটনা; এবার প্রতারকমূলক প্রেমের ফাঁদে জীবন দিল বিলকিছ বেগম (১৮) নামের গৃহবধূ। আইনী বিয়ের মাত্র ছয়দিনের মাথায় রবিবার সন্ধ্যায় খাগড়াছড়ি হাসপাতালে চিকিৎসধীন অবস্থায় মৃত্যু ঘটেছে তার। জেলার মহালছড়ির চোংড়াছড়ি গুচ্ছগ্রামে এই ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর থেকে স্বামী রঞ্জু হামিদ পলাতক রয়েছে। পুলিশ এখনো কাউকে আটক করতে পারেনি। এটি হত্যা; নাকি আতœহত্যা, তা নিশ্চিত করেনি পুলিশ।
মেয়ের পিতা জাফর আহমেদ অভিযোগ করেন, ‘শারীরিক নির্যাতনের পর হলুদে মেশানো রাসায়নিক ঔষধ জোরপূর্বক খাইয়ে আমার মেয়ে বিলকিছ বেগমকে হত্যা করা হয়েছে।’ মেয়ের মাতা শাহানারা বেগম জানান, তাঁর মেয়েকে প্রতারণামূলক প্রেমের অজুহাত দেখিয়ে প্রথমে বিয়ে এবং পরে বাড়ীতে নিয়ে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে।
বিলকিস আক্তারের পিতা আরো অভিযোগ করেছেন, গত বুধবার দুপুরে রঞ্জু হামিদ (৩২) নামক এক ব্যক্তি দলবল নিয়ে তার মেয়ে বিলকিছ বেগমকে একই উপজেলার শান্তিনগর এলাকা থেকে জোরপূর্বক ধরে নিয়ে যায়। রবিবার বিকালে তার মেয়েকে গুরুতর অসুস্থ্য অবস্থায় প্রথমে স্থানীয় হাসপাতাল ও পরে খাগড়াছড়ি আধুনিক হাসপাতালে নিয়ে আসে ওই পরিবারের সদস্যরা। চিকিৎসাধীন অবস্থায় বিলকিস আক্তার সন্ধ্যায় মারা যায়।
রঞ্জু হামিদের পিতা মৌমেনশাহী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মো. শামসুল হক। তিনি জানান, ঘটনার সময় তারা বাড়ীতে ছিলেননা। ঘটনার কিছুই তারা জানেন না।

রঞ্জু হামিদের প্রথম স্ত্রী আয়েশা বেগম জানান, দ্বিতীয় বিয়ে করার আগে তার স্বামী কোন অনুমতি নেয়নি। পরে সে চাপে পড়ে মেনে নিতে বাধ্য হন। ঘটনা সম্পর্কে আয়েশা বেগমও  কথা বলতে রাজি হননি।

মহালছড়ি থানার পুলিশ জানিয়েছে, চোংড়াছড়ি গুচ্ছগ্রামের বাসিন্দা তিন সন্তানের জনক রঞ্জু মিয়া (৩২) নিজেকে অবিবাহিত পরিচয় দিয়ে শান্তিনগরের বাসিন্দা জাফর আহমেদের মেয়ে বিলকিস আক্তারের সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলে। গত ২০ জানুয়ারী তারা খাগড়াছড়িতে এসে আইনী বিয়ে (কোর্ট ম্যারেজ) করে। কিন্তু স্বামীর বাড়ীতে এসেই আগের স্ত্রী ও তিন সন্তানকে দেখে প্রতিবাদ জানায় বিলকিছ বেগম। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক প্রতিবেশিরা জানিয়েছেন, এ ঘটনায় ক্ষুব্দ হয়ে স্বামী রঞ্জু হামিদসহ পরিবারের লোকজন নববধুকে শারিরীকভাবে নির্যাতন চালায়। এতে গুরুতরভাবে আহত হলে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়।

এদিকে সোমবার বিলকিছ বেগমের সুরতহাল শেষে ময়না তদন্ত হয়েছে। খাগড়াছড়ি হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক সনজিব ত্রিপুরা জানান, পিএম রিপোর্ট পাওয়ার পরই মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে।

মহালছড়ি থানার দায়িত্বশীল কর্মকর্তা এসআই শীষ মোহাম্মদ জানান, নিহত গৃহবধুর মাতা শাহানারা বেগম বাদী হয়ে মহালছড়ি থানায় মামলা দায়ের করেছেন। চিকিৎসক বিলকিস আক্তারকে মৃত ঘোষনার পর স্বামী রঞ্জু মিয়া পালিয়ে গেছে। এ ব্যাপারে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

নারীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় অবদান রাখবে কিশোরী ক্লাব

রাঙামাটির বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা (এনজিও) প্রোগ্রেসিভের বাস্তবায়নে ‘আমাদের জীবন, আমাদের স্বাস্থ্য, আমাদের ভবিষ্যৎ’ এই প্রকল্পের …

Leave a Reply