নীড় পাতা » পৌরসভা নির্বাচন ২০১৫ » পৌর নির্বাচনের হাওয়া লেগেছে পাহাড়ে

পৌর নির্বাচনের হাওয়া লেগেছে পাহাড়ে

BBN-electionপৌর নির্বাচনের হাওয়া লেগেছে পাহাড়েও। বান্দরবানে দুটি পৌরসভায় সম্ভাব্য প্রার্থীদের দৌড়ঝাপ শুরু হয়েছে।
লামা ও বান্দরবান দুটি পৌরসভায় মেয়র পদে আওয়ামীলীগ এবং বিএনপির একাধিক সম্ভাব্য প্রার্থীর নাম শোনা যাচ্ছে। এছাড়াও জামায়াত ইসলামী, জাতীয়পার্টি এবং পার্বত্য চট্টগ্রামের আঞ্চলিক রাজনৈতিক সংগঠন জেএসএস ও ইউপিডিএফ নেতাকর্মীরাও নড়ে চড়ে উঠেছে। সম্ভাব্য প্রার্থীদের ঘরে ঘরে কর্মী-সমর্থকদের আনাগোনা বেড়েগেছে। দলীয় মনোনয়ন লাভে শীর্ষ নেতাদের আর্শীবাদ নিতে দৌড় ঝাপ শুরু করেছে সম্ভাব্য প্রার্থীরা।

রাজনৈতিক সূত্রগুলো জানায়, পৌর নির্বাচনে বান্দরবান পৌরসভায় সম্ভাব্য মেয়র প্রার্থীর সংখ্যা ৯ জন এবং লামা পৌরসভায় ৪ জন। তারমধ্যে আওয়ামীলীগে ছয়’জন এবং বিএনপি’র ৩ জন। এছাড়াও জাতীয় পার্টি, জামায়াত ইসলামী, পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক রাজনৈতিক দল জনসংহতি সমিতি (জেএসএস), ইউনাইটেড পিপলস্ ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ) এবং সচেতন নাগরিক কমিটির ব্যানারে আরো কয়েক’জনের নাম শোনা যাচ্ছে। তবে সম্ভাব্য প্রার্থীদের মধ্যে প্রবীনদের সংখ্যায় বেশি। বর্তমান মেয়র দুজন ছাড়াও সাবেক-বর্তমান মেয়র এবং কয়েকজন পৌর কাউন্সিলরের নামও সম্ভাব্য মেয়র প্রার্থীদের তালিকায় রয়েছে। আওয়ামীলীগ দুটি মেয়র পদটি ছিনিয়ে নিতে মরিয়া হয়ে উঠেছে। আর বিএনপি পৌরসভা দুটি নিজেদের দখলে রাখতে কৌশলে এগুচ্ছে। কিন্তু জোটগতভাবে আওয়ামীলীগ এবং বিএনপি নির্বাচন করলে হিসাব-নিকাশটা অন্যরকম হতে পারে। তবে লামা পৌরসভার বর্তমান মেয়র আমির হোসেন (লামা উপজেলা বিএনপির সভাপতি) এবং বান্দরবান পৌরসভায় বর্তমার মেয়র মোহাম্মদ জাবেদ রেজা (জেলা বিএনপির ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক) দুজনের জনপ্রিয়তা রয়েছে। সেক্ষেত্রে বিএনপি’র আওয়ামীলীগের চেয়ে শক্ত অবস্থানে রয়েছেন। কিন্তু জেলা বিএনপি’র সভাপতি সাচিং প্রু জেরীর সঙ্গে বিরোধের জের ধরে বান্দরবান বিকল্প প্রার্থীর কথা চিন্তা করছেন জেরী গ্রুপের নেতাকর্মীরা। সম্ভাব্য বিকল্প প্রার্থী হচ্ছেন- পৌর বিএনপির সভাপতি নাছির চৌধুরী। তবে লামা পৌরসভায় বিএনপির একক মেয়র প্রার্থী বর্তমান মেয়র আমির হোসেন।

অপরদিকে বান্দরবান পৌরসভায় আওয়ামীলীগের বেশকয়েকজন প্রার্থীর নাম শোনা যাচ্ছে। সম্ভাব্য প্রার্থীদের মধ্যে রয়েছেন জেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ইসলাম বেবী, জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোজাম্মেল হক বাহাদুর এবং পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি অমল কান্তি দাশ। জেলা আওয়ামীলীগের বৈঠকে তিনজনের নাম প্রাথমিকভাবে চূড়ান্ত করা হয়েছে। এদের মধ্যে গনভোটের মাধ্যমে একজনকে চূড়ান্ত করে দলীয় মনোনয়ন দেয়া হবে। আর জাতীয় পার্টি সম্ভাব্য প্রার্থীর তালিকায় রয়েছেন সাবেক পৌর মেয়র মিজানুর রহমান বিপ্লব। দীর্ঘদিন আওয়ামীলীগের রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকার পর জাতীয় পার্টিতে যোগ দিয়ে পৌরশাখা কমিটির আহবায়কের দায়িত্ব পালন করছেন তিনি।

অন্যদিকে লামা পৌরসভায় আওয়ামীলীগের সম্ভাব্য প্রার্থীরা হচ্ছেন লামা উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জহিরুল ইসলাম, পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক তাজুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ন সম্পাদক মোস্তফা জামান। সম্ভাব্য প্রার্থীরা দলীয় মনোয়ন লাভের জন্য সংগঠনের শীর্ষ নেতাদের দ্বারে দ্বারে ছুটছেন। প্রাথমিকভাবে লামা পৌরসভায়ও সম্ভাব্য তিনজন প্রার্থীর নাম চূড়ান্ত করেছে দলীয়ভাবে। নির্বাচনে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের আগমুহুর্তে দলীয় প্রার্থীর নাম আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা করবে আওয়ামীলীগ এমনটাই দাবী দলের শীর্ষ নেতাদের। তবে দুটি পৌরসভায় জামায়াত এবং আঞ্চলিক রাজনৈতিক সংগঠনগুলোর কোনো প্রার্থী এখনো মাঠে নামেনি। সাবেক পৌর চেয়ারম্যান আইয়ুব চৌধুরী, জামায়াতনেতা মাহাবুবুল আলম’সহ সম্ভাব্য কয়েকজন প্রার্থীর নাম শোনা গেলেও দলীয় সিদ্ধান্তের পরই তারা মাঠে নামবে বলে জানিয়েছেন। এদিকে মেয়র প্রার্থীদের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে দলীয় মনোনয়নের জন্য সম্ভাব্য কাউন্সিলর এবং সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর প্রার্থীরাও প্রচেষ্ঠা চালাচ্ছেন। পাড়া মহল্লা এবং চায়ের দোকানের আড্ডায় গিয়ে ভোটারদের সঙ্গে কুশোল বিনিময় করছেন। দোয়া চাইছেন নির্বাচনী এলাকার মানুষজনদের। এখন পাহাড়ের পাড়া-মহল্লা এবং চায়ের দোকান থেকে অফিস-আদালত সর্বত্র পৌর নির্বাচনের আলাপ-আলোচনা চলছে। লোকজনের মুখে মুখে এখন সম্ভাব্য প্রার্থীদের নাম। ঝড় উঠছে চায়ের কাপে। কর্মী-সমর্থকেরাও নেমেছে বাক যুদ্ধে। এখন অপেক্ষার পালা কারা পাচ্ছে দলীয় মনোনয়নের সোনার চাবি। তবে বর্তমান পৌর মেয়র মোহাম্মদ মোহাম্মদ জাবেদ রেজা এবং জেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ইসলাম বেবী বলেন, দলীয় সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত। দলীয় মনোনয়ন পেলে মেয়র পদে নির্বাচনে দাড়াবো। দলীয় সিদ্ধান্তের বাইরে যাবো না।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নির্মাণে বিরোধীতার প্রতিবাদ রাঙামাটিতে

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য নির্মাণে বিরোধীতার নামে ‘উগ্রমৌলবাদ ও ধর্মান্ধগোষ্ঠীর জনমনে বিভ্রান্তির …

Leave a Reply