নীড় পাতা » ফিচার » পর্বতকন্যা » ‘পাহাড়ে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষায় অবশ্যই লেখকদের ভুমিকা রয়েছে’

‘পাহাড়ে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষায় অবশ্যই লেখকদের ভুমিকা রয়েছে’

protiva-tripura‘একজন লেখকের লেখার মাধ্যমে কিন্তু আমরা অনেক কিছু শিখতে পারি, লেখকের লেখা পড়ে অনেক বিষয়ে জানতে পারি এবং তাদের লেখা পড়ে উজ্জীবিতও হই। যারা আদিবাসী লেখক আছেন তারা তিন পার্বত্য জেলায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছেন। এ ধরনের লেখক সম্মেলনের মাধ্যমে নিজেরা বসে যদি একে অপরের বিষয় ও ভাবনাগুলো শেয়ারিং করে লিখতে পারা যায়, তাহলে বোধ হয় সমাজের জন্য লেখকরা আরো অগ্রণী ভুমিকা পালন করতে পারবো।’
রাঙামাটিতে ১ নভেম্বর অনুষ্ঠিত প্রথম আদিবাসী লেখক সম্মেলনে অংশ নিতে এসে খাগড়াছড়ির তরুণ কবি ও লেখিকা প্রতিভা ত্রিপুরা পাহাড়টোয়েন্টিফোর ডট কম’কে এসব কথা বলেন। তার সাথে কথা বলেছেন পাহাড়টীমের সদস্য বিজয় ধর

পেশায় শিক্ষক এই লেখিকা আরো বলেন, এই সম্মেলনে যোগ দেয়ার উদ্দেশ্য হচ্ছে, যেহেতেু আমরা অনেকের লেখা পড়েছি এবং তাদের লেখা পড়ে অনুপ্রাণিত হয়েছি, তাদের অনেকেই এখানে এসেছে তাই এ অনুষ্ঠানে যোগ দেয়া। যেমন আমি নিজেও টুকটাক লেখালেখি করি, কিন্তু অনেকের সাথে দেখা হয়নি, এখন দেখা হলো, সাক্ষাতে তাদের সাথে অনেকগুলো বিষয় সম্পর্কে আলোচনা করতে পারছি। সত্যিকার অর্থে এ সম্মেলন সব লেখকের একটা আড্ডার সম্মিলন হয়েছে। এ আডায় লেখার অনেকগুলো বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে। পরবর্তীতে এই আলোচনা ধরেই আমাদের নিজস্ব লেখা চর্চা করতে পারবো,লেখায় বৈচিত্র্য আনতে পারবো।

তিনি বলেন, পাহাড়ে অনেক কিছু নিয়ে লেখার বিষয় আছে। আবার লেখকও আছেন অনেক লেখালেখিও হয়। কিন্তু যথার্থ প্রকাশনার অভাবে অনেক মেধাবী লেখক নিজেকে বিকশিত করতে পারছেন না। এ লেখক সম্মেলনের মাধ্যমে আমরা যদি ত্রৈমাসিক প্রকাশনা করতে পারি, তাহলে অনেক লেখক তাদের লেখা নিয়মিত ছাপাতে পারবে। এতে করে তাদের চর্চাটাও হবে এবং মেধার বিকাশও ঘটবে।

পাহাড়ে সাম্প্রদায়িক-সম্প্রীতির বন্ধন রক্ষার জন্য লেখক সাহিত্যিকদের কি ভূমিকা রাখা প্রয়োজন এমন প্রশ্নের জবাবে প্রতিভা ত্রিপুরা বলেন,লেখকের লেখা পড়ে কিন্তু আমাদের অনেক মানুষ তাদের দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হয় এবং তাদের চেতনার জাগ্রত হয়। লেখা থেকে আমরা অনেক বিষয় সম্পর্কে জানি এবং উপলব্ধি করতে পারি। পার্বত্য চট্টগ্রামের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষার ক্ষেত্রে লেখকদের ভুমিকা অবশ্যই রয়েছে। কারণ তারা তাদের লেখনীর মাধ্যমে যে সমস্যাগুলো আছে সেগুলো তুলে ধরতে পারে। হয়তো অনেকে বিষয়গুলো সম্পর্কে জানেনা অথবা ভুল বুঝে থাকে। যদি তারা তাদের লেখনীতে বিষয়গুলো স্পষ্টভাবে তুলে ধওে, তাহলে প্রত্যেক পাঠক বিষয় সম্পর্কে জানতে পারবে, বুঝতে পারবে এবং সাম্প্রদায়িকতার বোধটা কেটে যাবে।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

লকডাউনে ফাঁকা খাগড়াছড়ি, বাড়ছে শনাক্ত

সারা দেশের মতো দ্বিতীয় দফায় সরকারের ঘোষিত লকডাউন চলছে পার্বত্য জেলা খাগড়াছড়িতে। প্রথম দফার লকডাউন …

Leave a Reply