নীড় পাতা » আলোকিত পাহাড় » পাহাড়ে জুমের সাথে বাড়ছে পান চাষ

দীঘিনালা

পাহাড়ে জুমের সাথে বাড়ছে পান চাষ

খাগড়াছড়ির দীঘিনালায় এবার অনেক জুমচাষি জুম চাষের পাশাপাশি করেছেন পান চাষ। পাহাড়ে পান চাষ করে এক চাষি গত বছর সফল হওয়ার পর এ বছর বেড়েছে পান চাষির সংখ্যা। এর আগে সমতল জমিতে পান চাষ করা হলেও পাহাড়ের ঢালু জমিতে পান চাষের খবর পাওয়া যায়নি।

উপজেলার নয়মাইল এলাকার মিলন কার্বারি পাড়ায় এবছর ১৮জন চাষি পানের বরজ করেছেন। পান ধরেছেও অনেক ভাল।

স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা যায়, উপজেলার বাবুছড়া ইউনিয়নের নুনছড়ি এলাকার দুর্গম বদনকুমার কার্বারি পাড়ায় বসবাস করতেন বিনয় ত্রিপুরা (৩৮)। তিনি গত দুই বছর আগে সপরিবারে মিলন কার্বারি পাড়ায় বসবাস শুরু করেন। মিলন কার্বারি পাড়ার দরিদ্র অধিবাসিদের অনেকেরই জীবন জীবিকা জুমচাষ নির্ভর। বিনয় ত্রিপুরাও জুমজাষ শুরু করেন। গত বছর বিনয় জুম চাষের পাশাপাশি করেন পানের বরজ। ভাল ফলন হওয়ায় বিনয়ের থেকেই চারা সংগ্রহ করে এবছর সে পাড়ার ১৮জন পানের বরজ করে শুরু করেছেন পান চাষ।

সরেজমিনে দেখা যায়, পানের ফলন এবছরও ভালই হয়েছে। এ বছর পান চাষ করেছেন সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডের প্রাক্তন মেম্বার হতেন্দ্রলাল ত্রিপুরা (৫০)। হতেন্দ্রলাল জানান, প্রায় ২০ শতক জায়গাতে তিনি পান চাষ করেছেন। গত বছর বিনয়ের পান চাষের সফলতা দেখে তার নিকট থেকেই চারা সংগ্রহ করে এবছর থেকে তিনিও পান চাষ শুরু করলেন। এর আগে শুধু জুম চাষ করতেন। হতেন্দ্রলাল আরো জানান, এ পান মিষ্টি জাতের, তাই বাজারে এ পানের চাহিদা বেশি থাকে। তিনি ২হাজার ৩০০ চারা লাগিয়েছেন। প্রতিটি চারা ক্রয় করেছেন ১টাকা ৫০পয়সা দরে। এ পর্যন্ত ঘেরা বেড়া এবং বরজ করাসহ তাঁর খরচ হয়েছে ১০ হাজার টাকা। লক্ষ্য অর্জন হলে তাঁর ধারণামতে বিক্রয় মূল্য আসবে ৫৫ হাজার থেকে ৬০হাজার টাকা।

বিনয় ত্রিপুরা জানান, গত বছর তিনি পান চাষ করেছিলেন মাত্র ২০ শতক জায়গাতে; আর এছর ৮০ শতক জায়গাতে ২টি বরজ করেছেন। বিনয় আরো জানান, প্রথমে তিনি পান চাষ শুরু করলেও তাঁকে দেখে এখন পাড়ার অনেকেই পান চাষ শুরু করেছেন।

উপজেলা কৃষি বিভাগের উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা সুপন চাকমা জানান, পাহাড়ে ভাল মানের পান চাষ করে সফলতা অর্জন সম্ভভ। পাহাড়ের মিষ্টি পানের চাহিদাও অনেক বেশি। এর আগে থেকে নৌকাছড়া এলাকায় কিছু পান চাষি কৃষি বিভাগের পরামর্শ নিয়ে পান চাষ করছেন; কিন্তু সেটি নিচু জায়গার সমতল জমিতে। তবে পাহাড়ের উপরে পান চাষ করেও ভাল ফলন সম্ভব; মিলন কার্বারি পাড়ার চাষিদের উদ্যোগটি প্রশংনীয়। খোঁজ নিয়ে ভাল ফলনের জন্য তাদের কৃষি বিভাগের পক্ষ থেকে সার্বিক পরামর্শ প্রদান করা হবে।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

বান্দরবানে ২ পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে তদন্তের নির্দেশ আদালতের

বান্দরবানে ব্যবসায়ীর কাছ থেকে টাকা ছিনতাইয়ের অভিযোগে পরিদর্শকসহ ২ পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে র‌্যাবকে তদন্তের নির্দেশ …

Leave a Reply