পর্যটকে মুখর অরণ্যসুন্দরী রাঙামাটি

parzatan-01ঈদে টানা ছুটি। তাতেই ভ্রমণ পাহাড়, হ্রদ ও ঝর্ণার দেশ রাঙামাটিতে। বৃৃষ্টিও থামাতে পারেনি ভ্রমণপ্রিয় মানুষের দৌঁড়। ঈদের দিন ও পরের দিন বৃষ্টিতে তেমন পর্যটক না এলেও ঈদের ৩য় দিন সোমবার থেকে রাঙামাটিতে আসতে শুরু করেছে পর্যটকরা। রাঙামাটির শহর যেনো এখন পর্যটকদের দখলে।

রাঙামাটির বাইরে থেকে আসা পর্যটকরা ভিড় করছে পর্যটন কর্পোরেশনের ঝুলন্ত সেতু, রাজবন বিহার ও সুবলং ঝর্ণায়। অন্যদিকে স্থানীয়রা ভিড় করছে ডিসি বাংলো এলাকায়। সোমবার বিকেলে ডিসি বাংলো পার্কটি ছিলো লোকে-লোকারণ্য। অন্যদিকে ঝুলন্ত সেতু, রাজবন বিহারেও পর্যটকদের ঢল নেমেছে।

হোটেল হিল পার্কের ব্যবস্থাপক স্বপন শীল জানান, গত রোববার থেকে মঙ্গলবার পর্যন্ত হোটেলের সব রুমই বুকিং রয়েছে। বৃষ্টিতে যে দুশ্চিন্তা করেছিলো ব্যবসায়ীরা, তেমন কোনো সমস্যাই হয়নি বলে জানান তিনি।

রাঙামাটি হোটেল মালিক সমিতির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নেছার আহমেদ জানান, শহরের অর্ধ শতাধিক হোটেল রয়েছে। তাতে কম-বেশি আগামী শুক্রবার-শনিবার পর্যন্ত বরাদ্দ রয়েছে। এতে হোটেলগুলোর আয় হয় দৈনিক ১০ থেকে ১২ লাখ টাকা হবে।

বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশনের রাঙামাটি কেন্দ্রের ব্যবস্থাপক আলোক বিকাশ চাকমা জানান, ঈদের প্রথম দু’দিন পর্যটক কম আসলেও সোমবার থেকে রাঙামাটি আসতে শুরু করেছে পর্যটকরা। আগামী ২৪ জুলাই পর্যন্ত মোটেলের সব কক্ষ বুকিং রয়েছে। তিনি জানান, ঝুলন্ত সেতুতে এখন প্রতিদিন ৫-৭ হাজার পর্যটক ভ্রমণ করছে।

পাশাপাশি ভ্রমণকারীদের টেক্সটাইল পণ্য ক্রয়ের একটা ঝোঁক থাকে। ঈদে পর টেক্সটাইল মার্কেটে কিছুটা ক্রেতা দেখা যাচ্ছে।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

কারাতে ফেডারেশনের ব্ল্যাক বেল্ট প্রাপ্তদের সংবর্ধনা

বাংলাদেশ কারাতে ফেডারেশন হতে ২০২১ সালে ব্ল্যাক বেল্ট বিজয়ী রাঙামাটির কারাতে খেলোয়াড়দের সংবধর্না দিয়েছে রাঙামাটি …

Leave a Reply