নীড় পাতা » পাহাড়ের রাজনীতি » পদত্যাগ করেছেন লংগদু’র ‘আলোচিত’ আব্দুর রহিম !

পদত্যাগ করেছেন লংগদু’র ‘আলোচিত’ আব্দুর রহিম !

Abdur Rahim-AL Langdu

দলীয় সভাপতির বিরুদ্ধে অসৌজন্যমূলক আচরণের অভিযোগ এনে সংগঠনের সহসভাপতির পদ থেকে পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন রাঙামাটির লংগদু উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক ও বর্তমান কমিটির সহসভাপতি গুলশাখালি ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রহিম। উপজেলা সাধারন সম্পাদক মোঃ জানে আলমের কাছে তিনি পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন বলে স্বীকার করেছেন আলোচিত-সমালোচিত এই নেতা।

মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে আব্দুর রহিম পাহাড় টোয়েন্টিফোর ডট কম কে বলেন, উপজেলা সভাপতি যখন তখন, যেখানে-সেখানে অশ্রাব্য ভাষায় গালি-গালাজ করেন। তার আচরণের কারণে আমার মানসম্মান ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। তাই সম্মান রক্ষার্থে আমি পদত্যাগ পত্র জমা দিয়েছি। এখন দলের দায়িত্বশীলরা জানেন তারা কি করবেন।

তবে আব্দুর রহিমের অভিযোগ অস্বীকার করে দলের উপজেলা কমিটির সভাপতি ও মাইনীমুখ ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল বারেক সরকার পাল্টা অভিযোগ করেছেন, দলকে পুজিঁ  করে আব্দুর রহিম কোটি কোটি টাকা কামিয়েছেন। পার্বত্য প্রতিমন্ত্রীর খুব ঘনিষ্ঠজন হওয়ায় দলের কেউই তার বিরুদ্ধে কোনো উচ্চবাচ্য করেননি। একাই দলকে পুঁজি করে সে কোটি কোটি টাকার সম্পদের পাহাড় গড়েছে। এখন তার স্বার্থ ফুরিয়েছে, তাই সে দল থেকে সটকে পড়ছে। রহিমকে কোন ধরণের গালাগালি বা খারাপ ব্যবহার করার অভিযোগও অস্বীকার করেন বারেক সরকার। দলের সভাপতি হিসেবে পদত্যাগপত্র তার বাছে আসার কথা থাকলেও তিনি পদত্যাগপত্র পাননি বলেও জানান তিনি।

এই বিষয়ে কথা বলার জন্য যোগাযোগ করা হলে দলের উপজেলা কমিটির সাধারন সম্পাদক ও ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ জানে আলম এর মোবাইল ফোন বন্ধ পাওয়া গেছে।

তবে দলের উপজেলা কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক বাবুল দাশ Barek Sarakar copyজানিয়েছেন,তিনি পদত্যাগ করবেন বলে আমাদের বলেছেন,আমি তাকে ব্যক্তিগত পদত্যাগ না করে সমঝোতা করার চেষ্টা করছি,তিনি পদত্যাগ করেছেন কিনা সেই সম্পর্কে আমি নিশ্চিত নই।

প্রসঙ্গত,লংগদু উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক এই সাধারন সম্পাদক ও গুলশাখালি ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রহিম স্বাধীনতাযুদ্ধে ‘বিতর্কিত’ ভূমিকা আর স্বল্প সময়ে বিপুল অর্থবিত্তের মালিক হওয়ার কারণে ব্যাপকভাবে আলোচিত। তিনি পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী ও স্থানীয় সংসদ সদস্য দীপংকর তালুকদারেরও ঘনিষ্ঠজন হিসেবে পরিচিত। তার কারণেই বর্তমান মেয়াদে যে উপজেলাগুলোতে পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী সবচে বেশিবার সফর করেছেন তার মধ্যে অন্যতম গুলশাখালি।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

পিসিপি’র সংবাদ সম্মেলনে কর্মসূচি ঘোষণা

দেশে অনগ্রসর জাতিগোষ্ঠীর জন্য প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণীর সরকারি চাকুরীতে সংরক্ষিত ৫% কোটা পুনর্বহালের দাবিতে …

Leave a Reply