নীড় পাতা » খাগড়াছড়ি » নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা, ভোটার উপস্থিতি কম

কবাখালি ইউপি উপ-নির্বাচন

নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা, ভোটার উপস্থিতি কম

খাগড়াছড়ির দীঘিনালার কবাখালি ইউনিয়নে উপ-নির্বাচনে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা দেখা গেছে। কিন্তু কেন্দ্রগুলোতে ভোটার উপস্থিতি ছিল একেবারেই কম। তবে কোনো কেন্দ্রে কোনো ধরণের অপ্রীতিকর ঘটনা বা কোনো প্রার্থীর কোন রকম অভিযোগও পাওয়া যায়নি।

উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, কবাখালি ইউনিয়নের ৭টি কেন্দ্রে উপ-নির্বাচন হয়েছে। প্রতি কেন্দ্রে একজন করে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সার্বক্ষনিক দায়িত্ব পালন করছিলেন। পর্যাপ্ত পরিমাণে ছিলো আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের উপস্থিতি।

সোমবার সকাল থেকেই ভোট কেন্দ্রগুলোতে সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, সকালে কিছু ভোটারের উপস্থিতি থাকলেও বেলা বাড়ার সাথে সাথে ভোটার শূন্য হয়ে পড়ে কেন্দ্রগুলো। ১১টায় কবাখালি ইউনিয়ন পরিষদ কেন্দ্রে গিয়ে দেখা যায় কোন ভোটার উপস্থিতি নেই। বুথ থেকে দুইজন বয়স্ক নারী ও একজন পুরুষ ভোট দিয়ে বাহির হচ্ছেন।

কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার জীবক চাকমা জানান, ততক্ষনে ৫১ শতাংশ ভোট গ্রহণ হয়েছে। এ কেন্দ্রটি কবাখালি বাজার সংল‎গ্ন। সাড়ে ১১টায় হাজাছড়া জোড়াব্রিজ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে কেন্দ্রে গিয়েও কোন ভোটার চোখে পড়েনি। প্রিজাইডিং অফিসার জানান, ততক্ষণে ভোট গ্রহণ হয়েছে ৪৫ শতাংশ। দুপুর ১২টায় তারাবনিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে গিয়েও দেখা যায় একই চিত্র। প্রিজাইডিং অফিসার অবর্না চাকমা জানান, সেসময় পর্যন্ত ভোট গ্রহণ হয়েছে মাত্র ৩০ শতাংশ। সাড়ে ১২টায় কবাখালি হালিমীয়া মাদ্রাসা কেন্দ্রে দেখা যায় পুরো মাঠ ফাঁকা, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর উপস্থিতি চোখে পরার মতো। তবে সে কেন্দ্রে তখন দুইজন নারীকে ভোট দেওয়ার জন্য যেতে দেখা যায়। দুপুর ১টায় ১নং কবাখালি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে গিয়েও কোন ভোটার দেখা যায়নি। সে কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার সুভায়ন খীসা জানান, ততক্ষনে মাত্র ৩৭শতাংশ ভোট গ্রহণ হয়েছে।

উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা রকর চাকমা জানান, কবাখালি ইউনিয়নে ২টি সংরক্ষিত নারী ওয়ার্ডের একজন সদস্যের মৃত্যুজনিত কারণে সেটি শূন্য হয়। অপর ওয়ার্ডের নারী সদস্য উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের সময় পদত্যাগ করেন। এছাড়া ৮ নং ওয়ার্ডের সাধারণ সদস্য মারা গেলে সেটিও শূন্য হয়। এ তিনটি পদে ৭টি ওয়ার্ডে ৭কেন্দ্রে উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

ভোট গণনা শেষে বেসরকারিভাবে প্রকাশিত ফলাফলে জানা যায়, উপ-নির্বাচনে ৮ নং ওয়ার্ডে সাধারণ সদস্য পদে মোরগ প্রতীকে ৪২৫ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামীগ সমর্থিত প্রার্থী মো. জয়নাল আবেদীন। বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী মো. দুলাল হোসেন টিউবওয়েল প্রতীকে পেয়েছেন ২০৫ ভোট। অপরদিকে ১নং সংরক্ষিত আসনে নারী সদস্য হিসেবে বিজয়ী হয়েছেন সুপ্রীতি চাকমা (হেলিকপ্টার) এবং ২নং সংরক্ষিত আসনে বিজয়ী হয়েছেন বিপরীতা চাকমা (বই)।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

ঘাতক ট্রাক চালকের শাস্তি চায় শিক্ষার্থীরা

রাঙামাটি সরকারি কলেজের অর্থনীতি বিভাগের (২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষ) শিক্ষার্থী এশিনচিং মারমা সড়ক দুর্ঘটনায় নিহতের প্রতিবাদ ও …

Leave a Reply