নির্বাহী প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে অভিযোগের পাহাড়

Rangamati-28.08.2015রাঙামাটি শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী নওজেশ আলীর বিভিন্ন অনিয়ম এবং তাকে অপসারণের দাবিতে আন্দোলনে নেমেছে ঠিকাদাররা। তাদের অভিযোগ বিগত ৪/৫ বছর ধরে রাঙামাটি ও খাগড়াছড়ি জেলায় শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরে অধিনে কোনো উন্নয়ন কাজ করতে পারছেন না ঠিকাদাররা। নির্বাহী প্রকৌশলীর স্বেচ্ছাচারিতা চরম পর্যায়ে পৌঁছেছে বলেও ঠিকাদাররদের অভিযোগ।

ঠিকাদাররা অভিযোগ করেন, নির্বাহী প্রকৌশলী নওজেশ আলী রাঙামাটি দায়িত্ব গ্রহণের পর তার অধীনস্থ রাঙামাটি ও খাগড়াছড়ি জেলায় কোনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অবকাঠামোর কাজ ঠিকাদাররা ঠিকমত করতে পারছেন না। নিজের ঘুষের টাকা নেয়ার পরেও ঠিকাদাররদের কাছ থেকে অতিরিক্ত টাকা দাবি করেন তিনি। তার এই অনিয়মের কারণে কোনো ঠিকাদাররই ঠিকমত কাজ করতে পারছেন না।

তারা আরো অভিযোগ জানায়, ২০১২ সালে সরকার সারাদেশে তিনশত মডেল স্কুলের অবকাঠামো নির্মাণের জন্য প্রকল্প গ্রহণ করে। এই প্রকল্পে রাঙামাটি ও খাগড়াছড়ির মোট ১২টি স্কুল অর্ন্তভুক্ত ছিলো। কিন্তু দেশের সব স্কুলের কাজ সম্পন্ন হলেও এখনো পর্যন্ত এই ১২টি স্কুলের কাজ শেষ করা যায়নি। প্রতিটি স্কুলের সংস্কার ব্যয় এক কোটি থেকে দেড় কোটি টাকা পর্যন্ত। রাঙামাটি সরকারি কলেজের নতুন ভবন নির্মাণের কাজেও চারবার টেন্ডার হওয়ার পরেও ঠিকাদারদের ওয়ার্ক অর্ডার দিচ্ছেন না নওজেশ আলী। ফলে দীর্ঘদিন ধরেই ঝুলে আছে রাঙামাটি সরকারি কলেজের নতুন ভবন নির্মাণ কাজ। একই অবস্থা জেলার কাউখালী, নানিয়ারচর ও খাগড়াছড়ির আরো দুইটি কলেজের নতুন ভবন নির্মাণের ক্ষেত্রেও একই অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। এসব অবকাঠামো নির্মাণ না হওয়ার কারণে ব্যাহত হচ্ছে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষা কার্যক্রম।
অভিযোগে জানা যায়, বরকল, নানিয়ারচর, কাউখালী ও বিলাইছড়ি উপজেলার মডেল স্কুল নির্মাণের টেন্ডার চারবার করা হলেও চুড়ান্ত করেনি কোনোটিই।

সপ্তাহের শুক্র ও শনিবার ছাড়া তাকে অফিসে পাওয়া যায় না। তিনি অফিসের বাইরে তালা ঝুলিয়ে ভিতরে চোরের মত অফিস করেন বলে ঠিকাদাররা অভিযোগ করেন। সরেজমিনে রাঙামাটি শিক্ষা প্রকৌশলী অফিসে গিয়েও তাকে পাওয়া যেতো না। ফোন করেও তাকে পাওয়া যায় না।

বৃহস্পতিবার রাঙামাটির ঠিকাদাররা তার অপসারণের দাবিতে শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের সামনে মানববন্ধন করে। শুক্রবার সকালে রাঙামাটি প্রেসক্লাবে একই দাবিতে তারা সাংবাদিক সম্মেলন করেন।

রাঙামাটি ঠিকাদার কল্যাণ সমিতি, শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তর ঠিকাদার সমিতি ও উপজাতীয় ঠিকাদার সমিতির ঠিকাদাররা যৌথভাবে এই সাংবাদিক সম্মেলন করেন।

এসময় রাঙামাটি বাঙালি ঠিকাদার সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোঃ শাহ আলম, শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তর ঠিকাদার সমিতির সাধারণ সম্পাদক যতীন্দ্র বিহারী চাকমা, উপজাতীয় ঠিকাদার কল্যাণ সমিতির সাধারণ সম্পাদক দেবজ্যোতি চাকমা, নুরুন্নবী, গিয়াস উদ্দিন, রহিম খান, কাজী নোমান, পেয়ার আহম্মেদ উপস্থিত ছিলেন।

সংরক্ষিত মহিলা সংসদ সদস্য ফিরোজা বেগম চিনু, সংসদ সদস্য ঊষাতন তালুকদার, সাবেক রাঙামাটি জেলা প্রশাসক মোঃ মোস্তফা কামাল একাধিকবার উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করার পরেও অজ্ঞাত কারণে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। এছাড়াও ঠিকাদাররা তার বিরুদ্ধে নৈতিক স্থলনেরও অভিযোগ করেন।

এসব বিষয় নিয়ে তার সাথে কথা বলার জন্য মুঠোফোনে কল করলেও সাংবাদিক পরিচয় পাওয়ার পর কোনো কথা বলেননি।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

কারাতে ফেডারেশনের ব্ল্যাক বেল্ট প্রাপ্তদের সংবর্ধনা

বাংলাদেশ কারাতে ফেডারেশন হতে ২০২১ সালে ব্ল্যাক বেল্ট বিজয়ী রাঙামাটির কারাতে খেলোয়াড়দের সংবধর্না দিয়েছে রাঙামাটি …

Leave a Reply