নীড় পাতা » ব্রেকিং » ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের ঘটনায় যুবক আটক

ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের ঘটনায় যুবক আটক

রাঙামাটির কাপ্তাইতে মুসলমানদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দেয়ার ঘটনায় অং সিং মং মারমা (১৭) নামের এক যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সে উপজেলার বড়ইছড়ি এলাকার বাসিন্দা ও নটরডেম কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র। মঙ্গলবার রাতে তাকে কাপ্তাই থেকে গ্রেফতার করা হয়। সে বড়ইছড়ি পাড়ার জনৈক চাইলাপ্রু মারমার পুত্র।

তার বিরুদ্ধে আইসিটি আইনের ৫৭ ধারায় কাপ্তাই থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলা নং-০২/০৭-১০-২০১৪।

এর আগে মঙ্গলবার সকালে ইসলাম ধর্ম, পবিত্র কোনআন শরীফ অবমাননা করে দুইটি ছবি পোস্ট করা হয় অংসিং মং এর ফেসবুক আইডি থেকে। বিষয়টি ছড়িয়ে পড়লে ‘পবিত্র কোরআন শরীফ’ অবমাননার অভিযোগে বিক্ষুদ্ধ হয়ে উঠে কাপ্তাই এলাকার মানুষ। সেখানে ধর্মপ্রাণ কয়েকশ মানুষ মিছিল সমাবেশ করে। তারা ইসলাম ধর্ম ও পবিত্র কোরআন অবমাননার অভিযোগ এনে অংসিং মং কে গ্রেফতারের দাবি জানাতে থাকে। তারা কাপ্তাই-চট্টগ্রাম সড়ক অবরোধ করে।

কাপ্তাই উপজেলা চেয়ারম্যান দিলদার হোসেন জানিয়েছেন,সে (অংসিংমং) ফেসবুকে যে পোস্ট করেছে তা অনেকের কাছ থেকে আমি নিজেও দেখেছি,বিষয়টি খুবই আপত্তিকর এবং অগ্রহনযোগ্য। তাই বিষয়টি দ্রুত ছড়িয়ে পড়লে এলাকার মানুষ বিক্ষুদ্ধ হয়ে উঠে। পরে আমরা জনপ্রতিনিধিরা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে মাঠে নামি।

তাৎক্ষনিকভাবে রাঙামাটির জেলা প্রশাসক মো: মোস্তফা কামাল, পুলিশ সুপার আমেনা বেগমসহ প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা দ্রুত কাপ্তাই উপজেলায় যান এবং পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে বিক্ষুদ্ধ মানুষ ও এলাকার জনপ্রতিনিধিদের সাথে দফায় দফায় বৈঠক করেন। পরে স্থানীয় মারমা সমাজের নেতৃবৃন্দকে জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার একঘন্টার মধ্যে অভিযুক্ত অংসিং মং মারমাকে হাজির করার নির্দেশ দেন অন্যথায় গ্রেফতার অভিযান পরিচালনার হুমকী দিলে একঘন্টা পর রাতে আনুমানিক নয়টার দিকে মারমা নেতৃবৃন্দ অভিযুক্তকে হাজির করলে জেলা প্রশাসক তাকে তার গাড়ীতে করে রাঙামাটি নিয়ে আসেন। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

গ্রেফতারকৃত অংসিং মং মারমা পুলিশকে জানিয়েছে, সে ফেসবুকে ভিন্ন ভিন্ন নামে চারটি আইডি পরিচালনা করলেও সম্প্রতি তার একটি আইডি হ্যাক হয়। সেই আইডি থেকেই ওই অবমাননাকর ছবিটি পোস্ট করা হয়েছে বলে দাবি করে সে। যদিও বিকেলের পর থেকেই তার ওই আইডিতে আর ছবিগুলো দেখা যাচ্ছেনা বলে জানিয়েছে পুলিশ  ও অভিযোগকারিরা ।

রাঙামাটির জেলা প্রশাসক মো: মোস্তফা কামাল জানিয়েছেন,পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে বিক্ষুদ্ধ মানুষের দাবির প্রেক্ষিতে তাকে গ্রেফতার করে রাঙাাটি নিয়ে আসা হয়েছে । এখন আইসিটি বিশেষজ্ঞরা পরীক্ষা করে দেখবেন আসলেই কি হয়েছে। কোন ধরণের উস্কানিতে পা না দেয়ার জন্য তিনি সবাইকে অনুরোধ জানিয়ে বলেছেন, সে যদি সত্যিই দোষী হয়,প্রচলিত আইনেই শাস্তি হবে আর নির্দোষ প্রমাণিত হলে মুক্তি পাবে।

রাঙামাটির পুলিশ সুপার আমেনা বেগমও জানিয়েছেন, অভিযুক্তকে আটক করা হয়েছে এবং মামলাও হয়েছে। এখন আইন তার নিজস্ব গতিতে চলবে। তিনি সবাইকে ধৈর্য্য ধরে পরিস্থিতি মোকাবেলায় সহযোগিতার জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন। এলাকায় পুলিশ,সেনাবাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

বান্দরবানে ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা

বান্দরবানের লামা উপজেলার রুপসীপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাচিং প্রু মারমার বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা দায়ের করা …

One comment

  1. Aung Sun is guilty so police arrest him. But what about our great minster Abdul Latif Siddique? What is government rule at Abdul Latif Siddique? He is sacked from ministry it is not enough. Government yet to filed any case against him, why? He must be hanged for violating our constitution.

Leave a Reply

%d bloggers like this: