নীড় পাতা » ব্রেকিং » দেশকে নতুন দিগন্তে নিয়ে যেতে কাজ করছে সরকার

দেশকে নতুন দিগন্তে নিয়ে যেতে কাজ করছে সরকার

chinuবাংলাদেশ সরকার একটি নতুন রূপরেখা স্বপ্ন নিয়ে কাজ করছে, যার মধ্য দিয়ে সরকার চেষ্টা করছে দেশকে উন্নত করতে। দেশকে একটি নতুন দিগন্তে পৌঁছে দিতে। এই স্বপ্ন বাস্তবায়নে কিশোর কিশোরীদেরকে কাজ করতে হবে। তারা এটি বাস্তবায়নে বিশেষ ভূমিকা রাখতে পারে।

‘বাল্য বিবাহ রোধ করি, ছেলে মেয়ে সমান ভাবে এগিয়ে যাবার স্বপ্ন দেখি’ এই শ্লোগানকে সামনে রেখে ক্লাব সংগঠিত করে সমাজের ইতিবাচক পরিবর্তনে কিশোর-কিশোরীদের ক্ষমতায়ন শীর্ষক কর্মসূচির আওতায় জেলা ভিত্তিক কিশোর-কিশোরী সম্মেলন উপলক্ষে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মহিলা সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য ফিরোজা বেগম চিনু এসব কথা বলেন।

শুক্রবার সকালে সম্মেলন উপলক্ষে রাঙামাটি সরকারি কলেজ প্রাঙ্গণ থেকে একটি র‌্যালি শুরু হয়ে রাঙামাটির প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠি সাংস্কৃতিক ইনস্টিটিউ প্রাঙ্গণে গিয়ে শেষ হয়। পরে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠি সম্মেলন কক্ষে আলোচনা সভা ও বিভিন্ন কিশোর কিশোরী ক্লাবের সদস্যদের অংশগ্রহণে বিভিন্ন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়।

আলোচনা সভায় রাঙামাটি অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আবু শাহেদ চৌধুরীর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন রাঙামাটির জেলা প্রশাসক মোঃ সামসুল আরেফিন, মহিলা অধিদপ্তর উপ-পরিচালক শামিমা আক্তার। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন রাঙামাটি জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা হোসনে আরা বেগম।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে এমপি ফিরোজা বেগম চিনু আরো বলেন, এই কিশোর-কিশোরীরা একদিন বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দিবে। তাদের দিকে চেয়ে আছে আমাদের এই দেশ। তাদের সঠিক নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে যাবে এটা আমাদের প্রত্যাশা। কিশোর-কিশোরীদের সচেতন হওয়ার আহ্বান জানিয়ে তিনি আরো বলেন, সমাজের বর্তমান যে সামাজিক সমস্যাগুলো আমারা দেখি যেমন ইভটিজিং, বাল্য বিবাহ, মাদকসেবনস বিভিন্ন অপকর্ম প্রতিরোধে এই কিশোর-কিশোরীকে কাজ করতে হবে। তাদেরকে নিজেরা সচেতন হয়ে সমাজের অন্যকে সচেতন করতে হবে। তবেই সমাজ ও রাষ্ট্র সঠিক ধারায় সামনের দিকে এগিয়ে যাবে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক মোঃ সামসুল আরেফিন বলেন, বিশ্বে অন্য সকল দেশের দিকে তাকালে দেখা যাবে আমাদের বাংলাদেশে যে পরিমাণে কিশোর-কিশোরী আছে তাদের দেশের সে পরিমাণে মোট জনসংখ্যা আছে। সে দিকে লক্ষ্য করলে আমরা জনসংখ্যার দিকে অনেক দূর এগিয়ে। তাই আমাদের প্রয়োজন এই জনসংখ্যাকে জনসম্পদে পরিণত করতে হবে। তিনি আরো বলেন, কিশোর-কিশোরী বয়স হচ্ছে এমন একটি বয়স যে সময়ে নিজেকে নিধার্রণ করতে হবে তুমি কি হবে? কি করা প্রয়োজন তোমার বাকি জীবনটার জন্য? তাই এই সময়টাকে ভালোভাবে কাজে লাগিয়ে সঠিক চিন্তা ধারা বাস্তবায়ন করে কিশোর-কিশোরীদেরকে সামনের দিকে এগিয়ে যেতে হবে। আলোচনা সভার শেষে অনুষ্ঠিত প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদেরকে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

জুরাছড়িতে গুলিতে নিহত কার্বারির ময়নাতদন্ত সম্পন্ন

রাঙামাটির জুরাছড়ি উপজেলায় স্থানীয় এক কার্বারিকে (গ্রামপ্রধান) গুলি করে হত্যা করেছে অজ্ঞাত বন্দুকধারী সন্ত্রাসীরা। রোববার …

Leave a Reply