নীড় পাতা » ব্রেকিং » দুইদিনের পর এবার তিনদিনের অবরোধ !

দুইদিনের পর এবার তিনদিনের অবরোধ !

321444রাঙামাটির বরকল উপজেলার ভূষনছড়ার একটি ভোটকেন্দ্রের ফলাফল বাতিল করে পুননির্বাচনের দাবিতে জনসংহতি সমিতির ডাকা দুইদিনের অবরোধ শান্তিপূর্ণভাবে শেষ হতেই এবার আবার পবিত্র রমজানের মধ্যেই তিনদিনের অবরোধ কর্মসূচী ঘোষণা করেছে সন্তু লারমার  নেতৃত্বাধীন সংগঠনটি। আগামী ১৯,২০ এবং ২১ জুন প্রতিদিন সকাল  ৬টা থেকে বিকাল ৫ টা পর্যন্ত এই অবরোধের ডাক দিয়েছে সংগঠনটি।

বিকালে শহরে বিক্ষোভ মিছিল করে অবরোধের আনুষ্ঠানিক সমাপ্তি ঘোষণাকালে দক্ষিন কালিন্দীপুরের সংগঠনটির জেলা কার্যালয়ের সামনে অনুষ্ঠিত এক সমাবেশ থেকে আবারো এই তিনদিনের অবরোধের ঘোষণা দেয়া হয়। এসময় বক্তব্য রাখে উদয়ন ত্রিপুরা,জোনাকী চাকমা,বাচ্চু চাকমা,ত্রিজিনাদ চাকমা এবং কিশোর কুমার চাকমা।02

সমাবেশে বলা হয়,অবিলম্বে বরকল উপজেলার ছোট হরিণা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের ভোট বাতিল করে পুনরায় ভোট গ্রহণের দাবি জানানো হয়। অন্যথায় আরো কঠোর এবং কঠিন কর্মসূচীর  হুঁশিয়ারি দেয়া হয়েছে।

এর আগে অবরোধের দ্বিতীয় দিনে সকাল থেকেই শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে পিকেটিং করে জনসংহতি সমিতি ও এর সহযোগি সংগঠন পাহাড়ী ছাত্র পরিষদের নেতাকর্মীরা।  কড়া এই অবরোধে তারা শহরে কোন  যানবাহন তো দূরে থাক মোটর সাইকেলও চলতে দেয়নি। কড়া পিকেটিং এর কারণে বিপাকে পড়ে শহরের বিভিন্ন প্রান্তের অফিসগামি মানুষ। সবচে বেশি দুর্ভোগ পোহাতে হয়, রমজানে রোজদার মানুষদের। শহরের আভ্যন্তরীন চলাচলের একমাত্র বাহন অটোরিক্সা চলাচল সম্পূর্ণ বন্ধ থাকায় রোজা রেখেও দীর্ঘপথ পায়ে হেঁটে গন্তব্যে পৌঁছাতে হয়েছে।01

Micro Web Technology

আরো দেখুন

স্বাস্থ্য বিভাগকে সুরক্ষা সামগ্রী দিলো রাঙামাটি রেড ক্রিসেন্ট

নভেল করোনাভাইরাসের (কভিড-১৯) সংক্রমণ প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণে রাঙামাটির ১২টি সরকারি হাসপাতাল ও স্বাস্থ্য কেন্দ্রসমূহে স্বাস্থ্য …

৭ comments

  1. এইটা বাড়াবাড়ী করতেছে জে এস এস। মনে হয় তাড়া একটি সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা বাজানোর জন্য চেষ্টা করিতেছে।

  2. জে এস এস বেশি বাড়াবাড়ি করছে

  3. জে এস এস যদি মনে করে থাকে, এ ধরনের উসকানি মুলক কর্মসুসী দিয়ে তারা একটা সাম্প্রদায়িক দাঙা বাঁধিয়ে,অন্যায় সুবিধা আদায় করবে, এটা তাদের ভুল ধারনা, সাধারন জনতা জখন ফুসে উঠবে তখন তাদের অবৈধ অস্ত্র নিয়ে পালাবার পথ থাকবে না।মনে রাখতে হবে এই দেশের মানুষ তৎকালিন সময়ের পৃথীবির সবচেয়ে আগ্রাসী পাক সেনাদের বিরুদ্বে যুদ্ব করে এই দেশ স্বাধীন করেছে। আর এই সামান্য কয়েক জন অবৈধ চাঁদার টাকায় কেনা অস্ত্রধারী নিয়ে এত উসৃংখল হওয়া উচিৎ হবে না।

  4. ফেসবুকে কুত্তার মতো ঘেউ ঘেউ না করে বাপের বেটা হলে একবার পাহাড়ে এসে দেখ কি হাল করে দিই তোদের।।।

Leave a Reply

%d bloggers like this: