নীড় পাতা » পাহাড়ের রাজনীতি » দীপংকর-নিখিল-ইউপিডিএফ’কে তুলোধুনো পিসিপি’র

দীপংকর-নিখিল-ইউপিডিএফ’কে তুলোধুনো পিসিপি’র

PCP-kawkhaliপার্বত্য চুক্তিকে জুম্ম জনগণের মুক্তির প্রথম ধাপ দাবি করে এর বাস্তবায়নে প্রয়োজনে আরো রক্ত ঝরানোর হুঁশিয়ারি দিয়ে পাহাড়ী ছাত্র পরিষদ ও জেএসএস নেতারা বলেছেন, সন্তু লারমার অনুসারিরা চুক্তির সময়ে অস্ত্র জমা দিলেও প্রশিক্ষণ জমা দেয়নি। প্রয়োজনে তারা আবারো সংগঠিত হতে দ্বিধা করবেনা।

সন্তু লারমার নেতৃত্বাধীন পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি-জেএসএস এর সহযোগি ছাত্র সংগঠন পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ-পিসিপি’র কাউখালী উপজেলা শাখার ১৬তম বার্ষিক শাখা সম্মেলন বক্তারা এসব কথা বলেন।

এসময় পিসিপি ও জনসংহতি সমিতির নেতারা সাবেক পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী দীপংকর তালুকদার, রাঙামাটি জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নিখিল কুমার চাকমা,পাহাড়ের আরেক আঞ্চলিক রাজনৈতিক দল ইউপিডিএফ এর কঠোর সমালোচনা ও বিষোদগার করেন।

সাবেক পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী দীপংকর তালুকদারকে ‘আটআনা মন্ত্রী’ বলে মন্তব্য করে বক্তারা ‘সামান্য রাজনীতিক’ থেকে ‘পাহাড়ের শীর্ষ ধনী’ কিভাবে হলেন তা খতিয়ে দেখার দাবি তোলেন। কোন পদপদবী না থাকা সত্বেও দীপংকর সরকারী গাড়ি আর পুলিশি প্রহরায় চলাফেরার ‘প্রটোকল’ দেয়া হচ্ছে, পাহাড়ের মানুষ তা জানতে চায় বলেও বক্তব্য রাখেন তারা। একই সাথে,‘সরকারের দালালী করায় দীপংকরকে জুম্ম জনগণ ছুড়ে ফেলে দিয়েছে সারা জীবনের জন্য’ এমন দাবি করে বক্তারা বলেন, তার মতো আরো ‘জুম্ম দালাল’ তৈরি হলে জুম্ম জাতি বিলীন হয়ে যাবে।’

‘কাঠ ব্যবসার দালাল থেকে রাঙামাটি জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হয়ে নিখিল কুমার চাকমা কী এমন আলাদিনের চেরাগ পেলেন যে, মাত্র ক’বছরেই কারিকারি সম্পত্তির মালিক বনে গেছেন ?’-এমন প্রশ্ন তুলে জনসংহতি ও পিসিপি নেতারা দ্রুত পার্বত্য জেলা পরিষদগুলোর নির্বাচনের দাবি জানান এবং অভিযোগ করেন ‘জেলা পরিষদগুলো সরকারে আজ্ঞাবহ নেতাকর্মীদের দুর্নীতির আখড়ায় পরিণত হয়েছে।’
পাহাড়ের আরেক আঞ্চলিক সংগঠন ‘ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট(ইউপিডিএফ)কে ‘উল্টা পাল্টা দাঙ্গা ফৌজ’ বলে মন্তব্য করে অবিলম্বে সংগঠনটিকে নিষিদ্ধ করারও দাবি জানান তারা।

বর্তমান সরকার পাহাড়িদের সাথে পাকিস্তানি শাসক গোষ্ঠির মতোই আচরণ করছে এমন অভিযোগ তোলে তারা বলেন, ‘ পার্বত্য শান্তিচুক্তি সই করা আওয়ামীলীগ পাহাড়িদের সাথে প্রতারণা করে চলেছে’। তারা সন্তু লারমার ঘোষিত আগামী ১ মে থেকে অসহযোগ আন্দোলন সফল করতে ছাত্র জনতা ঐক্যবদ্ধভাবে ঝাঁপিয়ে পড়ার আহবান জানান।

পিসিপি কাউখালী উপজেলা শাখার সভাপতি কাজল চাকমার সভাপতিত্বে সম্মেলনে প্রধান অতিথি ছিলেন জন সংহতি সমিতির কেন্দ্রীয় স্টাফ সদস্য উদয়ন ত্রিপুরা। কাউখালীর ঘাগড়া ইউনিয়ন পরিষদ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত সম্মেলনে এছাড়া আরো বক্তব্য রাখেন পিসিপির জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক তাপস চাকমা, কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক জুয়েল চাকমা, কাউখালী শাখার সাবেক সভাপতি হিরু চাকমা, হিল উইমেন্স ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক চম্পা ত্রিপুরা, জনসংহতি সমিতির কাউখালী শাখা সভাপতি সুভাষ চাকমা প্রমূখ।

পরে কাজল চাকমাকে সভাপতি ও চাইলাপ্র“ মারমাকে সাধারণ সম্পাদক করে ১৭ সদস্য বিশিষ্ট্য দু’বছর মেয়াদী নতুন কমিটি ঘোষণা করা হয়। পিসিপির কেন্দ্রীয় কমিটির সহসাধারণ সম্পাদক ওজেলা কমিটির সভাপতি বাচ্চু চাকমা নতুন কমিটির নাম ঘোষণা করে শপথ বাক্য পাঠ করান।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

বিবর্ণ পাহাড়ের রঙিন সাংগ্রাই

নভেল করোনাভাইরাসের আগের বছরগুলোতে এই সময় উৎসবে রঙিন থাকতো পাহাড়ি তিন জেলা। এই দিন পাহাড়ে …

১০ comments

  1. Dipongkar Talukder-Nikhil kumar-Prasit Bikash khisara tomar ma-bon saha tomar 14gustike chudese bolei aj tara jummo jatir kase kulangkar-jatio beiman hisebe bibechito@…Jom.

Leave a Reply

%d bloggers like this: