নীড় পাতা » পাহাড়ের রাজনীতি » দিনমজুরদের কথা ভাবেনা কেউই

দিনমজুরদের কথা ভাবেনা কেউই

DSCN1835
কাজ নেই,ভাড়া নেই…….অলস পড়ে আছে ভ্যান,খোশগল্পেই কাটছে সময়…

দৃশ্যপট-০১ : ‘কাজ কর্ম নাই,হরতাল অবরোধ দিলে আমাগো ক্ষতি,যারা রাজনীতি করে তারা আমাগো কথা ভাবে না। তারা হুদা ক্ষমতায় যাইবার চায়। আমরা রাজনীতি করিও না, রাজনীতি বুঝি না। তারপরও কষ্ট শুধু আমাগো। যারা হরতাল দেয় তারাতো ঘরে বইয়া বইয়া খায়। ডেইলি যেহানে ৪০০/৬০০ টাকা কামাই করতাম আইজ ২০ টাকা কামাই হইছে, দিন শেষে ঘরে কি বাজার নিয়ে যামু বুজতাছি না।’-এক নিঃশ্বাসে কথাগুলোই বলে গেলেন দিনমজুর এরশাদ আলী।

দৃশ্যপট-২: ঠেলা ভ্যানচালক আলী আহম্মদ বলেন, অবরোধের কারণে ভাড়া নাই। সারাদিনে ১ টা ভাড়া পাইছি, ফার্নিচার নিয়া তবলছড়ি যামু। ভাড়া নিয়া দরদাম করি নাই,মোটে ভাড়াই নাই,দরদাম আর কি করুম।যা পামু তা দিয়া ঘরে বাজার কইরা নিতে হইব।

দৃশ্যপট-০৩: নির্মান শ্রমিক আবু সৈয়দ বলেন, কাল রাইতে হঠাৎ করে অবরোধ দিছে। আইজ সিমেন্ট আহনের কথা আছিলো আহে নাই, যা আছিলো হেগুলা দিয়ে কাজ করতাছি। অনেকের বাড়ি তবলছড়ি হেরাও আহে নাই। কি করুম মালিক তো বুঝবা না, তারে তো কাম বুঝাইয়া দিতে হইবো। তাই রাত দিন কাজ শেষ করার চেষ্টা করতাছি।

DSCN1839
অবরোধে নৌপথে বোট চলেনা….আসছেনা মাছ……তবুও অপেক্ষা…

দৃশ্যপট-০৪: বরফ শ্রমিক রাজিব সেন বলেন, ভাই দূর থেকে মাছ আসে নাই, তাই বরফের চাহিদা নাই। যেখানে আগে দিনে ৫০০ টাকা বেতন পেতাম আজ বেশী হলে ২০০-২৫০ টাকার বেশী পাওয়া যাবে না। আরেক শ্রমিক লিটন জানালেন,আমার মালিক মিটিংয়ে গেছে, সেখানে সিন্ধান্ত নিবে গাড়ি রাতে চলবে কিনা। যে পরিমাণ মাছ আসার কথা ছিল, এখন পর্যন্ত তার অর্ধেক মাছও এসে পৌছায়নি। আস পাশ যে সব জেলে আছে তাদের মাছগুলো পাওয়া গেছে। কিন্তু আমাদের মাছ আসে লংগদু, বরকল সুবলং থেকে সেখান থেকে কোন বোট আসে নাই। বিকালে কোন বোট আসে কি না জানি না।

বিরোধীজোটের ডাকা অবরোধের দিনে রাঙামাটির কয়েকজন খেটেখাওয়া দিনমজুর এর জীবনচিত্র এটিই। এইসব শ্রমিকদের কেউ ধানেরশীষের সমর্থক,কেউবা নৌকার। কিন্তু রাজনৈতিক কর্মসূচীর কারণে তাদের দৈনন্দিন আয় আর জীবনযাপনে প্রতিবন্ধকতা তৈরি হওয়ায় হতাশ এবং ক্ষুদ্ধ তারা।

এরশাদ আলী,আলী আহম্মদ,আবু ছৈয়দ,রাজীব সেন কিংবা লিটন…..হরতাল কিংবা অবরোধে তাদের জীবনচিত্র প্রায় একই। সারাদিন ইতিওতি ঘোরাফেরা করে দিনশেষে শূণ্যহাতেই বাড়ী ফিরতে হয় এদের। হরতাল কিংবা অবরোধ তাই এদের জীবনে অভিশাপ হয়েই আসে। ভোটের রাজনীতিতে এদের গুরুত্ব হয়তো আছে,কিন্তু রাজনীতির কারণে এইসব সাধারন মানুষ জীবন ও জীবিকা বিপন্ন হলেও,সে খবর কে রাখে ?

Micro Web Technology

আরো দেখুন

‘পুলিশ পরিচয়ে’ অপহরণের পর মুক্তিপণে মিলল ছাড় !

সাদা পোষাকে পুলিশ পরিচয়ে একজন নির্মাণ শ্রমিককে অপহরণের পর মুক্তিপণের বিনিময়ে ছেড়ে দেয়ার ঘটনা ঘটেছে …

Leave a Reply