থানছি না যাওয়ার পরামর্শ পর্যটকদের

thanchiiiবান্দরবানের থানছি উপজেলায় পর্যটকদের ভ্রমন সাময়িক বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। দর্শনীয় স্থানগুলো ভ্রমন ঝুকিপূর্ণ হয়ে উঠায় পর্যটকদের সার্বিক নিরাপত্তার স্বার্থে বুধবার সকাল থেকে স্থানীয় নিরাপত্তা বাহিনী এবং প্রশাসন যৌথভাবে এ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) বান্দরবান সেক্টর কমান্ডার অলিউর রহমান জানান, থানছি উপজেলার দর্শনীয় স্থানগুলো ভ্রমন পর্যটকদের জন্য নিরাপদ নয়। বৃষ্টিতে থানছির দর্শণীয় স্থান নাফাকুম ঝর্ণা, রেমাক্রী, বড়পাথর’সহ নদীপথে প্রবল ¯্রােত এবং স্পটগুলো পিচ্ছিল হয়ে বিপদজনক হয়ে উঠেছে। সাম্প্রতিক সময়ে নৌকাডুবির ঘটনায় এক বিজিবি সদস্যও মারা গেছে। এছাড়াও বিজিবি ক্যাম্পেও সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটেছে। বিষয়গুলো চিন্তা করে পর্যটকদের নিরাপত্তার স্বার্থে সার্বিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণের জন্য থানছিতে পর্যটকদের ভ্রমন সাময়িক বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। তবে স্থানীয় প্রশাসন এবং আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ছাড়পত্র দেয়ার পর স্থানীয় বিজিবি ক্যাম্পে ভ্রমনকারীদের নাম-ঠিকানা লিখিত আকারে দেয়ার পর ভ্রমন করতে পারবে।

জেলা প্রশাসক মিজানুল হক চৌধুরী জানান, পর্যটকদের থানছি উপজেলা ভ্রমনে কোনো ধরণের নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়নি। নিরাপত্তার স্বার্থে থানছি উপজেলায় পর্যটকদের অবাদ যাতায়াত সীমিত করা হয়েছে। তবে এটি সাময়িক পদক্ষেপ। সাঙ্গু নদীর পানি কমে গেলে এবং সার্বিক পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে উঠলেই পর্যটকরা আবার থানছি ভ্রমন করতে পারবেন। প্রশাসন ও নিরাপত্তা বাহিনীর নীতিমালা অনুসরণ করে থানছির দর্শণীয় স্থানগুলো ভ্রমনে পর্যটকদের কোনো বাঁধা নেয়।

এদিকে প্রশাসন ও নিরাপত্তা বাহিনীর এ সিদ্ধান্তে বান্দরবানের থানছি উপজেলার রেমাক্রী জলপ্রপাত, তীন্দ্র বড়পাথর, নাফাকুম ঝর্ণা, বাদুরগুহা, বড়মদক, ছোট মদক’সহ থানছির উপজেলার দর্শণীয় স্থানগুলো ভ্রমন করতে পারছে না। থানছি উপজেলা সদর থেকে পর্যটকদের নদীপথে দর্শণীয় স্থানগুলোতে যেতে দেয়া হচ্ছে না। দূর্গমাঞ্চলে ভ্রমনে যাওয়া পর্যটকদেরও দর্শণীয় স্থানগুলো থেকে ফেরত পাঠানো হচ্ছে বলে পর্যটকরা জানায়।

স্থানীয় বাসিন্দার মংব্রাচিং মারমা জানান, থানছিতে অসংখ্য পর্যটকের ভীড় দেখা যাচ্ছে। ভ্রমনে আসা পর্যটকরা দর্শনীয় স্পটগুলোতে দেখতে যেতে না পেরে পুনরায় জেলা সদরের দিকে ফিরে যাচ্ছেন।
থানছি বলিপাড়া বিজিবি ব্যাটেলিয়ান কমান্ডার লে: কর্নেল কামরুল ইসলাম জানান, পর্যটকদের নিরাপত্তার স্বার্থে সতর্কতা মূলক থানছি ভ্রমন সাময়িক বন্ধ রাখা হয়েছে। এটি স্থায়ী কোনো নিষেধাজ্ঞা নয়। নদীতে পানি কমে গেলে এবং দর্শনীয় স্থানগুলো ভ্রমন পর্যটকদের নিরাপদ হয়ে উঠলে পর্যটকদের অবাদে ভ্রমন করতে পারবেন।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

কারাতে ফেডারেশনের ব্ল্যাক বেল্ট প্রাপ্তদের সংবর্ধনা

বাংলাদেশ কারাতে ফেডারেশন হতে ২০২১ সালে ব্ল্যাক বেল্ট বিজয়ী রাঙামাটির কারাতে খেলোয়াড়দের সংবধর্না দিয়েছে রাঙামাটি …

Leave a Reply