নীড় পাতা » ব্রেকিং » ত্রাস সৃষ্টি করে চুক্তি বাস্তবায়ন সম্ভব নয় !

ত্রাস সৃষ্টি করে চুক্তি বাস্তবায়ন সম্ভব নয় !

brisketuu‘অসহযোগ আন্দোলনের নামে পার্বত্য এলাকায় ত্রাস সৃষ্টি করে শান্তিচুক্তি বাস্তবায়ন করা সম্ভব নয়, শান্তি চুক্তি বাস্তবায়ন একটি চলমান প্রক্রিয়া, আওয়ামী লীগ সরকার শান্তি চুক্তি করেছে এবং এ চুক্তির পূর্ণ বাস্তবায়ন আওয়ামী লীগ সরকারই করবে।’
শনিবার জুরাছড়ি উপজেলায় রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ কর্তৃক ৫০ লক্ষ টাকা ব্যয়ে নির্মিত বিশ্রামাগার উদ্বোধন শেষে উপজেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে বিশ্রামাগারের হল কক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমা এ কথা বলেন।

এ সময় তিনি পাহাড়ের আঞ্চলিক সংগঠনের নেতা-কর্মীদের উদ্দেশ্য করে বলেন, অস্ত্রের রাজনীতি ছেড়ে সরকারের উন্নয়ন ও চুক্তির পূর্ন বাস্তবায়নে সহযোগিতায় সকলকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।

একই অনুষ্ঠানে জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ও জেলা পরিষদ সদস্য মো: মুছা মাতব্বর বলেন, পার্বত্যবাসি বিগত সংসদ নির্বাচনে বহু আশা-প্রত্যাশা নিয়ে জনসংহতি সমিতির মনোনিত প্রার্থী ঊষাতন তালুকদারকে বিপুল ভোটে জয়ী করেছে। কিন্ত এখন সে আশা-প্রত্যাশা যেন একটি দুঃস্বপ্ন ! সুষম উন্নয়নের নামে হচ্ছে পার্বত্য চট্টগ্রামজুড়ে চাঁদাবাজি, অস্ত্র আর গোলাবারুদে পাহাড়ের মানুষ এখন দিশেহারা।
জুরাছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান প্রবর্তক চাকমার সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য হাজী মোঃ মুছা মাতব্বর, সদস্য অমিত চাকমা রাজু, রেমলিয়ানা পাংখোয়া, জ্ঞানেন্দু বিকাশ চাকমা, জুরাছড়ি উপজেলা আওয়ামীগের সাধারণ সম্পাদক প্রমথ কান্তি চাকমা, উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদিকা মিতা চাকমা, জুরাছড়ি মৈদং ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান বরুন তালুকদার, উপজেলা আওয়ামীলীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক ও কুসুমছড়ি মৌজার হেডম্যান মায়ানন্দ দেওয়ান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক লাল বিহারী চাকমা, উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রাক্তন সভাপতি বনবিহারী চাকমা, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রিকো চাকমা প্রমুখ।
জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আরো বলেন, উন্নয়নের পূর্বশর্ত শান্তি ও সহযোগিতা। পারস্পরিক সহযোগিতার মাধ্যমে উন্নয়ন করা সম্ভব।

প্রসঙ্গত, পাহাড়ের আঞ্চলিক রাজনৈতিক দল জনসংহতি সমিতির নিয়ন্ত্রিত এই উপজেলায় সাম্প্রতিক সময়ে বেশ বেকায়দায় আছে জাতীয় রাজনৈতিক দলগুলো। সম্প্রতি পুরো জেলার সবগুলো উপজেলাতেই বিএনপির সম্মেলন অনুষ্ঠিত হলেও এই উপজেলায় সম্মেলন ছাড়াই কমিটি ঘোষিত হয়েছে। আর দীর্ঘদিন পর ঘরোয়া পরিবেশেই অনুষ্ঠিত হলো ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগের এই আলোচনা সভা। এই উপজেলায় সর্বশেষ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে রেকর্ড পরিমাণ কম ভোট পায় আওয়ামীলীগ।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নির্মাণে বিরোধীতার প্রতিবাদ রাঙামাটিতে

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য নির্মাণে বিরোধীতার নামে ‘উগ্রমৌলবাদ ও ধর্মান্ধগোষ্ঠীর জনমনে বিভ্রান্তির …

Leave a Reply