নীড় পাতা » ফিচার » অরণ্যসুন্দরী » টেক্সটাইল পণ্যে আগ্রহ পর্যটকদের

টেক্সটাইল পণ্যে আগ্রহ পর্যটকদের

textileপ্রকৃতির ঘুরপাকে আবারো এলো শীত। শীতকালীন সময়ে পর্যটকের পদচারণায় মুখরিত হয় রাঙামাটির স্পটগুলো। এমনকি তার প্রভাব ঠিক টেক্সটাইল শিল্পেও ফেলে। অন্য সময়ের তুলনায় পর্যটন মৌসুমে পাহাড়ি পোশাক-আকাশ ও বার্মিজ পণ্যে ক্রেতার চাহিদা বেড়ে যায়।দেখা যায় অন্য সময়ের তুলনায় প্রায় তিনগুণ বৃদ্ধি হয় বেচাকেনায়।

ঢাকা থেকে আসা কয়েকজন পর্যটক জানায়, শীতকালীন সময়ে বেড়াতে এসে মায়ের জন্য পাহাড়ি বার্মিজ চাদর কিনে নিলাম। দামটা ঠিক নাগালের ভিতরই আছে। তবে এখানে অনেক রকম বার্মিজ পোশাক আছে, যেগুলো চাইলেও সব খানে পাওয়া যায় না। তাই স্ত্রীর জন্য একটা ভ্যানিটি ব্যাগ, বাবার জন্য ফতুয়া কিনে নিলাম।

আরেকজন ক্রেতা জানায়, আমি কিছু তাঁতের কাপড় কিনলাম। নিজের জন্য কিছু না নিলেও পরিবারের সবার জন্য ক্রয় করলাম। তবে দামটা অন্য সময়ের তুলনায় কিছুটা বেশি রাখছে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

তবলছড়ি টেক্সটাইল মার্কেট ঘুরে ফিরে দেখা যায় অন্য সময়ের তুলনায় বর্তমানে বেচাকেনায় তারা ব্যস্ত সময় পার করছেন।

বনানী টেক্সটাইলের বিক্রেতা রিপা চাকমা জানালেন, পর্যটন মৌসুম আসাতে কয়েকদিন ধরেই ভালই ব্যবসা হচ্ছে। দৈনিক প্রায় ৪০ থেকে ৫০ হাজার টাকার মত বিক্রি হয়। তিনি আরো জানান, আমাদের কাস্টমার সাধারণত পর্যটকরাই। তবে স্থানীয়রাও কম বেশি কিনছেন। আর পোশাক আমাদের কারখানাতেই তৈরি হয়। তবে কিছু পণ্য বার্মা থেকে আসে। তারমধ্যে চন্দন, সাবানটাই বেশি।

রাঙাবি টেক্সটাইলের বিক্রেতা জেসমিন জানান, প্রতিদিন প্রায় ৩০-৫০ হাজার টাকা বিক্রি হয়। তবে অন্য সময়ের তুলনায় এখন বেনাকেনার চাপ বেশি। নিজস্ব কারখানার কারণে চাহিদা অনুযায়ী পণ্যের কমতি নেই। দামটা ঠিক আগের মতই রাখা হচ্ছে।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

রামগড়ে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি

খাগড়াছড়ির রামগড়ে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটেছে। চুরি, ডাকাতি, ধর্ষণসহ নানা অপকর্মে লোকজন আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন। …

Leave a Reply