নীড় পাতা » পাহাড়ের রাজনীতি » ‘টিনটিন তো ‘সন্তুুষ’ও করেনা ‘গন্ডুষ’ও করেনা, তাকে কেন অপহরণ করা হলো ?’

‘টিনটিন তো ‘সন্তুুষ’ও করেনা ‘গন্ডুষ’ও করেনা, তাকে কেন অপহরণ করা হলো ?’

DIpankar-may-cover - CopyD-pic‘আমাদের বন্ধু সন্তু লারমা বলে থাকেন শান্তিচুক্তি বাস্তবায়ন না হওয়ায় নাকি পাহাড়ে অপহরণ ও বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকান্ড ঘটছে। সৌরভ চাকমা টিনটিন অপহরণ প্রসঙ্গ টেনে দীপংকর তালুকদার বলেন,টিনটিন তো ‘সন্তুষ’ও করেনা ‘গন্ডুষ’ও করে না, তাকে কেন অপহরণ করা হলো ? তাদেরকে অপহরণ করে শান্তিচুক্তির বাস্তবায়নের দাবি, নাকি শান্তিচুক্তি বিরোধিতা করা হলো, আমরা বুঝিনা।

বৃহস্পতিবার রাঙামাটি পৌরসভা সম্মেলন কক্ষে জেলা শ্রমিক লীগ আয়োজিত মে দিবসের জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন রাঙামাটি জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাবেক পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী দীপংকর তালুকদার।

‘অযৌক্তিকভাবে শুধুমাত্র নিজেদের টাকা আদায়ের জন্য মানুষ অপহরণ করা হয় বলেও অভিযোগ করেন এই সাবেক পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী। ‘চাঁদাবাজদের চাহিদা অনুযায়ী মালিকপক্ষ চাঁদা দিতে ব্যর্থ হলে শ্রমিকদের অপহরণ করা হচ্ছে। শ্রমিকদের কি দোষ ?- প্রশ্ন রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী এই নেতা।

‘কোনো অপহরণ কিংবা হত্যাকান্ড সংঘটিত হলে সরকারকেই জিডি করতে হবে। আইন প্রয়োগকারী সংস্থার কাছে আমাদের এটাই দাবী থাকবে। একই সাথে সাধারণ মানুষকেও প্রশাসনের পাশাপাশি এদের অপকর্মের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে। অপহরণ-হত্যাকান্ড হলে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পক্ষ থেকে বলা হয়, তাদের কাছে কেউ নালিশ করেনি বা জিডি করেনি। কেউ ডিডি না করলে সরকারকে বাদী হয়ে মামলা দায়ের করতে হবে’ বলে দাবি জানান দীপংকর তালুকদার।

 ‘বর্তমান সরকারের আমলে রাঙামাটির প্রত্যেকটা শ্রমিক সংগঠকে আর্থিক অনুদান দেয়া হয়েছে’ জানিয়ে শ্রমিকদের উদ্দেশ্যে দীপংকর তালুকদার বলেন, শ্রমজীবি মানুষদের মধ্যে হিন্দু,মুসলমান, খ্রীষ্টান বৌদ্ধ, পাহাড়ি-বাঙালি ভেদাভেদ করবেন না। আপনারা সকলেই নিজেদের বা শ্রমিকের অধিকার নিয়ে সচেতন থাকবেন। সবাইকে অসাম্প্রদায়িক চেতনায় ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে।

বিএনপির আন্দোলন প্রসঙ্গে দীপংকর তালুকদার বলেন, তাদের আন্দোলনে কোনো সারবেত্তা নেই। বিগত ৪/৫মাসে তারা আন্দোলনের নামে ‘আ’ টাও দেখাতে পারেনি। তাদের দলের মধ্যে স্থবিরতা বিরাজ করছে দাবি করে তিনি বলেন, তাই দলে দলে বিএনপির নেতাকর্মী আমাদের সংগঠনের যোগ দিচ্ছে।

মে দিবসে রাঙামাটি জেলা বিএনপি কার্যালয়ে দীপেন দেওয়ানের সাথে দলের নেতাকর্মীদের দুর্ব্যবহারের কথা উল্লেখ করে দীপংকর তালুকদার বলেন, ‘এ ধরণের ঘটনা কাম্য নয়, উচিতও নয়। তিনি বলেন, উশৃঙ্খল বিশৃঙ্খল সংগঠনের রাজনীতি এরকমই হয়ে থাকে।’

জেলা শ্রমিক লীগ সভাপতি বিদ্যুৎ জ্যোতি চাকমার সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন, আওয়ামীলীগের সহসভাপতি চিংকিউ রোয়াজা, সাধারণ সম্পাদক মো: মুছা মাতব্বর, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল মতিন, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক রফিকুল মাওলা, রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ সদস্য শামীমা রশীদ, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক হৃদয় বিকাশ চাকমা, মৎস্যজীবি লীগের আহ্বায়ক উদয়ন বড়ুয়া, জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক নুর মোহাম্মদ কাজল, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শাহ এমরান রোকন। বক্তারা বলেন,বতর্মান সরকার শ্রমিকদের কথা চিন্তা করে বিধায় ন্যুনতম মজুরি ৫ হাজার ৩শ টাকা নির্ধারণ করে দিয়েছে। শ্রমিকদের উন্নয়নের আরো বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। সুন্দর পরিবেশে যাতে তারা কাজ করতে পারে সে বিষয়ে সরকার যথাযথ ব্যবস্থা নিচ্ছে। বক্তারা বিএনপি-জামাত ও দেশবিরোধী অপশক্তির বিরুদ্ধে শ্রমিকদের ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার আহবান জানান।

সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নিখিল কুমার চাকমা, আওয়ামী লীগের সহসভাপতি মাহবুবুর রহমান, রফিক তালুকদার সহ বিভিন্ন অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের জেলা উপজেলা শাখার নেতৃবৃন্দ। এর আগে বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ থেকে একটি র‌্যালি বের হয়ে পৌরসভা চত্বরে এসে শেষ হয়। র‌্যালীতে বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী সমর্থক ও বিভিন্ন এলাকা থেকে কয়েকশ শ্রমিক অংশ নেন।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

ফুটবলের বিকাশে আসছে ডায়নামিক একাডেমি

পার্বত্য এলাকা রাঙামাটিতে ফুটবলকে আরও জনপ্রিয় করে তোলা, তৃনমূল পর্যায় থেকে ক্ষুদে ফুটবল খেলোয়াড় খুঁজে …

Leave a Reply