নীড় পাতা » পাহাড়ের সংবাদ » জয়ের খোঁজে পাহাড়ী পথে ২০ নারী প্রার্থী

জয়ের খোঁজে পাহাড়ী পথে ২০ নারী প্রার্থী

BBN-Woman-Candidate-picউপজেলা নির্বাচনে বান্দরবান চষে বেড়াচ্ছেন একজন চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ ২০ জন নারী প্রার্থী। নির্বাচনী জোয়ারে ভাসছে এখন জেলার সাত উপজেলার ৪ হাজার ৪৭৯ বর্গ কিলোমিটার এলাকা। উপজেলাগুলোতে আওয়ামীলীগ, বিএনপি, জনসংহতি সমিতি এবং বিদ্রোহী প্রার্থীরা প্রচার-প্রচারণায় ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন। ছুটে বেড়াচ্ছেন ভোটারের দ্বারে দ্বারে। পোষ্টার আর লিফলেট’এ ছেয়ে গেছে উপজেলা শহরসহ পাহাড়ী গ্রামগুলো। চলছে জোরে-শোরে মাইকিং। চায়ের দোকান থেকে অফিস-আদালত সর্বত্র চলছে নির্বাচনী আলাপ-আলোচনা। প্রার্থীরা চষে বেড়াচ্ছে নির্বাচনী অঞ্চলগুলো। বসে নেই প্রার্থীর স্বামী-সন্তানসহ আত্মীয় স্বজনেরাও। ভোটারের দ্বারে দ্বারে ছুটে বেড়াচ্ছেন রাত-দিন সমানতালে। উপজেলা নির্বাচনকে ঘিরে সরগরম এখন পাহাড়ী জেলা বান্দরবান।

নির্বাচন অফিস সূত্র জানায়, দ্বিতীয় দফায় উপজেলায় নির্বাচনে বান্দরবানে আগামী ২৭ ফেব্রুয়ারী লামা, রুমা, থানছি এবং রোয়াংছড়ি চার উপজেলায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। তৃতীয় দফা নির্বাচনে আগামী ১৫ মার্চ বান্দরবান সদর ও আলীকদম উপজেলায় নির্বাচন হবে এবং চতুর্থ দফা নির্বাচনে আগামী ২৫ মার্চ মিয়ানমার সীমান্তবর্তী নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ভোটার সংখ্যা হচ্ছে- লামা উপজেলায় ৫৮ হাজার ৪৪৮ ভোট, রোয়াংছড়ি উপজেলায় ১৬ হাজার ৬৪৪ ভোট, রুমা উপজেলায় ১৭ হাজার ৮ ভোট এবং থানছি উপজেলায় ১৩ হাজার ৮৪৫ ভোট, বান্দরবান সদর উপজেলায় ৫৪ হাজাার ৭৭১ ভোট, আলীকদম উপজেলায় ২৪ হাজার ৬৮৮ ভোট, নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলায় ৩১ হাজার ৪৪৬ ভোট। প্রার্থীরা হচ্ছেন চেয়ারম্যান পদে একমাত্র নারী প্রার্থী লামা উপজেলায় বিএনপি একাংশ সমর্থিত প্রার্থী সেতারা বেগম (আনারস)। ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীরা হলেন- বিএনপি সমর্থিত শারাবান তহুরা ত্রিপুরা (ফুটবল), আওয়ামীলীগ সমর্থিত জাহানারা বেগম (কলস), রোয়াংছড়ি উপজেলায় আওয়ামীলীগ সমর্থিত মহিলা প্রার্থী মিলি মারমা (পদ্ধ ফুল), জেএসএস সমর্থিত প্রার্থী মাউসাং মারমা (সেলাই মেশিন), রুমা উপজেলায় আওয়ামীলীগ সমর্থিত প্রার্থী জিংএংময় বম (ফুটবল), জেএসএস সমর্থিত উম্যাসিং মারমা (প্রজাপতি), স্বতন্ত্র প্রার্থী আরতি ত্রিপুরা (পদ্ধ ফুল), থানছি উপজেলায় আওয়ামীলীগ সমর্থিত কতং ম্রো (পদ্ধ ফুল) বিএনপি সমর্থিত মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী বকুলী মারমা (সেলাই মেশিন), হাবৈরং ত্রিপুরা (কলস), আলীকদম উপজেলায় বিএনপি সমর্থিত শিরিনা আক্তার, আওয়ামীলীগ সমর্থিত রোজিনা আক্তার, আয়ামীলীগ বিদ্রোহী ব্যরি মারমা ও বিএনপি বিদ্রোহী সাজেদা বেগম। নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলায় বিএনপি সমর্থিত হামিদা চৌধুরী, আওয়ামীলীগ সমর্থিত ওজিফা খাতুন রুবি, স্বতন্ত্র সাবেকুন্নাহার এবং বান্দরবান সদর উপজেলায় আওয়ামীলীগ সমর্থিত তিংতিং ম্যা, জেএসএস সমর্থিত ওয়াচিং মারমা।

নির্বাচনে বিজয়ী হলে দূর্নীতি ও মাদক মুক্ত উপজেলা প্রতিষ্ঠার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন একমাত্র নারী চেয়ারম্যান প্রার্থী লামা উপজেলার সেতারা বেগম। অপরদিকে আলীকদম উপজেলার মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী শিরিনা আক্তার ও থানছি উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী কতং ম্রো বলেন, নারীরা শিক্ষা ক্ষেত্রে পিছিয়ে আছেন। অনগ্রসর নারী সমাজকে শিক্ষা, সচেতনতা এবং আর্থসামাজিক উন্নয়নে ভূমিকা রাখবো। নারী নির্যাতন বন্ধে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নেবো।’

জেলা রিটার্নিং অফিসার ইসরাত জামান জানিয়েছেন, আগামী ২৭ ফেব্রুয়ারী, ১৫ মার্চ এবং ২৫ মার্চ তিন দফায় বান্দরবানে সাত উপজেলায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচন সুষ্ঠ-শান্তিপুর্ণ পরিবেশে ভোট গ্রহণে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হবে। রুমা, থানছি, রোয়াংছড়ি এবং আলীকদম চার উপজেলার ১৩টি ভোট কেন্দ্রে নির্বাচনী সরঞ্জাম পাঠাতে সেনাবাহিনীর হেলিকপ্টার ব্যবহার করা হবে।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

বাজার তদারকিতে রাঙামাটির জেলা প্রশাসক

নভেল করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউের সংক্রামন রোধে চলমান লকডাউনে ও রমজান মাসে দ্রব্যমূল্যের দাম নিয়ন্ত্রণে রাখতে …

Leave a Reply