নীড় পাতা » খেলার মাঠ » চ্যাম্পিয়ন রাঙামাটি সদর

চ্যাম্পিয়ন রাঙামাটি সদর

Munna-Asam
ম্যাচের একমাত্র গোলদাতা মুন্না আসাম
1
গ্যালারিভরা দর্শক যেনো আবার ফিরিয়ে এনেছে রাঙামাটির ফুটবল ঐতিহ্য

00টানটান উত্তেজনা আর উত্তাপ ছড়ানো ফাইনালে বিলাইছড়ি উপজেলাকে ১-০ গোলে হারিয়ে টানা পঞ্চম বারের মত চ্যাম্পিয়ন হয়েছে রাঙামাটি সদর উপজেলা দল। খেলার শুরু থেকেই উভয় দল আক্রমন পাল্টা আক্রমনে মরিয়া হয়ে খেলে। শুরু থেকেই উভয় দলের রক্ষণভাগের খেলোয়াড়দের ছিল শক্ত প্রতিরোধ। ফলে প্রথমার্ধে কোনো দলই গোল করতে পারেনি। পাল্টাপাল্টি আক্রমনে দর্শকদের মাঝে ছড়ায় বাড়তি উত্তেজনা। মুহুর্মুহু করতালিতে গ্যালারিসহ স্টেডিয়ামের আশপাশের এলাকা মুখরিত হয়ে উঠে। গ্যালারিভর্তি পাহাড়ি-বাঙালি নারী-পুরুষের সরব উপস্থিতিতে ফাইনাল ম্যাচটি হয়ে উঠে আরো প্রানবন্ত।
রাঙামাটি চিং হ্লা মং চৌধুরী মারী স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত রাঙামাটি জেলাপ্রশাসক গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনালে প্রতিদ্বন্দিতা করেন রাঙামাটি সদর উপজেলা ও বিলাইছড়ি উপজেলা দল।
খেলার দ্বিতীয়ার্থেও উভয় দলের খেলোয়াড়দের মাঝে এতটুকু ক্লাান্তির ছাপ দেখা যায়নি। উভয় দলই প্রতিপক্ষের রক্ষনভাগ ভেঙ্গে জালে বল জড়াতে মরিয়া হয়ে  খেলে। সুযোগও আসে একাধিক। খেলার এক পর্যায়ে বিলাইছড়ি উপজেলা দলের সম্মিলিত আক্রমন প্রতিপক্ষের রক্ষনভাগ ভেদ করে বল ছুটে যায় জালের দিকে। কিন্তু রাঙামাটি সদর উপজেলার দলের চৌকষ গোলরক্ষক মাস্তান ত্রিপুরা বিচক্ষণতার সাথে গোলটি প্রতিরোধ করেন। তবে খেলা শেষ হওয়ার আট মিনিট আগে রাঙামাটি সদর উপজেলা দলের ১১নং জার্সি পরিহিত খেলোয়াড় মুন্না আসাম দর্শনীয় এক গোল করে দলকে ১-০ গোলে এগিয়ে নেয়। মাঠের চারপাশ ঘিরে হাজারো ফুটবলপ্রেমি উল্লাসে ফেটে পড়েন এসময়। এ গোলের পর অফসাইডের অভিযোগ এনে বিলাইছড়ি উপজেলা দলের খেলোয়াড়রা মাঠ থেকে বেরিয়ে যেতে চায়। কিন্তু টিম ম্যানেজার ও আয়োজকদের হস্তক্ষেপে তাদের আবারো মাঠে পাঠানো হয়। ফলে ৫ মিনিট খেলা বন্ধ থাকে। রেফারির  শেষ বাঁশি বাজার আগ পর্যন্ত আক্রমনে প্রানান্তর চেষ্টা চালায় উভয় দল। কিন্তু উভয় দলের গোল রক্ষকের কারণে সকল প্রচেষ্টা ব্যর্থ হয়ে যায়। ফলে উত্তাপ ছড়ানো ফাইনালে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করে রাঙামাটি সদর উপজেলা দল।
ফাইনালে খেলায় পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার মোহাম্মদ আবদুল্লাহ। রাঙামাটি জেলা প্রশাসক মোঃ মোস্তফা কামালের সভাপতিত্বে এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন রাঙামাটি রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোঃ সরোয়ার হোসেন এইচডিএমসি,পিএসসি ও রবি’র এরিয়া ম্যানেজার মোজাম্মেল হক। স্বাগত বক্তব্য রাখেন জেলা ক্রীড়া সংস্থার ফুটবল উপ-কমিটির আহবায়ক  ও পুলিশ সুপার আমেনা বেগম। এছাড়াও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) ড. মুস্তাফিজুর রহমান, জেলা ফুটবল ক্রীড়া এসোসিয়েশনের সভাপতি ও পৌর মেয়র সাইফুল ইসলাম চৌধুরী। এছাড়া দশ উপজেলার উপজেলা নির্বাহী অফিসার। স্পন্সর প্রতিষ্ঠান রবি’র পক্ষ থেকে চ্যাম্পিয়ন দলকে তাৎক্ষণিক ১০ হাজার ও রানার্সআপ দলকে ৫ হাজার টাকার নগদ প্রণোদনা তুলে দেয়া হয়।

 

 

Micro Web Technology

আরো দেখুন

সাপছড়িতে স্বাধীনতা কাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের উদ্বোধন

ইউনিয়ন পর্যায়ে ফুটবল অনুশীলনে যুব সমাজকে সম্পৃক্ত করে জাতীয় মানের খেলোয়াড় তৈরির প্রয়াসে রাঙামাটি সদর …

Leave a Reply