নীড় পাতা » পাহাড়ের সংবাদ » জুতা পায়ে শহীদ মিনারে রাজনৈতিক কর্মীরা !

জুতা পায়ে শহীদ মিনারে রাজনৈতিক কর্মীরা !

Juta-picমহান বিজয় দিবস উপলক্ষে দেশের বিভিন্ন স্থানের ন্যায় রাঙামাটিতেও ১৬ ডিসেম্বর প্রথম প্রহরে রাঙামাটি কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে শহীদের প্রতি সম্মান জানিয়ে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান, সংস্থা ও সংগঠন ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করে।

কিন্তু শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদনের ক্ষেত্রে বিভিন্ন রাজনৈতিক সংগঠনের নেতাকর্মীরা জুতা নিয়ে শহীদ মিন রে ওঠে যেভাবে শ্রদ্ধা নিবেদন করলেন তা দেখে অনেকে বিস্ময় প্রকাশ করেছেন। এমনকি বেশ কিছু নেতাকেও দেখা গেছে যারা জুতা নিয়ে একেবার শহীদ বেদিতে ওঠেও ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানিয়েছে!

এখানে ফুল দিয়ে সম্মান জানানোর চাইতেও দেখা গেল মহান বীর শহীদদের কিভাবে অপমান, অবমাননা করা হয়েছে তার প্রদর্শনী যেন হয়েছে শ্রদ্ধা নিবেদনের ক্ষেত্রে।

বিএনপি ও এর বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠনের বেশিরভাগ নেতাকর্মীই সরাসরি জুতা পায়ে পুষ্পস্তবক অর্পণ করতে দেখা যায়। এছাড়া আওয়ামী লীগেরও কয়েকজন কর্মীকে শহীদ বেদিতে জুতা পায়ে দেখা গেছে।

শহীদ মিনারে শৃঙ্খলার দায়িত্বে থাকা স্কাউটের তরুণদের সাথে এ বিষয়ে কথা বললে তারা জানায়, প্রথমদিকে ফুল দেওয়ার সময় শৃঙ্খলা থাকলেও পরবর্তীতে রাজনৈতিক দলগুলোর নেতা-কর্মীরা বিশাল মিছিল নিয়ে সরাসরি জুতা নিয়ে শহীদ মিনারে ওঠে যায়। তাদেরকে বাধা দিতে গেলে তারা আমাদের উল্টো ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয়। এসময় কয়েকজনের মুখ থেকে মদের গন্ধও বের হচ্ছিল। তাই স্বাভাবিকভাবে আমাদের কয়েকজনের পক্ষে তাদেরকে ঠেকিয়ে রাখা সম্ভব ছিল না। এক্ষেত্রে তারা রাজনৈতিক দলের কর্মীদের নিয়ন্ত্রণে নেতাদের আরো বেশি কার্যকর ভূমিকা পালন করার আহবান জানান।

শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা জানাতে আসা বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের একাধিক কর্মকর্তা ও কয়েকজন সংস্কৃতিকর্মী ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, শ্রদ্ধা জানিয়ে অপমান করার চাইতে শ্রদ্ধা না জানানোই অনেক ভালো। তারা আরো বলেন, এমনিতেই আমরা সারাবছর শহীদদের সম্মান জানাই না। বছরের এই একটি মাত্র দিনেও আমরা তাদেরকে শ্রদ্ধা জানাতে এসে যে নির্লজ্জের মতো জুতা পায়ে ওঠে শ্রদ্ধা নিবেদনের নমুনা দেখলাম তা আমাদেরকে ভাবিয়ে তুলছে- ‘এভাবে হলে আমরা ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে কি শিক্ষা দিবো?’

Micro Web Technology

আরো দেখুন

ঘর পেয়ে খুশি কাপ্তাইয়ের গৃহহীনরা

রাঙামাটির কাপ্তাই উপজেলার ওয়াগ্গা ইউনিয়নের মুরালি পাড়া মারমা পাড়া গ্রাম। উপজেলা সদর হতে বড়ইছড়ি-ঘাগড়া সড়কে …

Leave a Reply