নীড় পাতা » ব্রেকিং » ‘জান দেব, তবু মান দেব না’

‘জান দেব, তবু মান দেব না’

DSC00182‘জান দেব, তবু মান দেব না, জাতিসত্তা ধ্বংসের পাঁয়তারা ও সামাজিক অবক্ষয় রোধে সংগঠিত হোন, প্রতিরোধ গড়ে তুলুন”এই শ্লোগানকে সামনে রেখে ঘিলাছড়ি নারী নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটির প্রথম সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শনিবার রাঙামাটির নানিয়ারচর উপজেলার ঘিলাছড়ি বাজার মাঠে অনুষ্ঠিত সম্মেলনে বিপুল সংখ্যক নারী-পুরুষ অংশ নেন। নারী নেত্রী শান্তিপ্রভা চাকমার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ইউপিডিএফ সমর্থিত ৮ সংগঠনের কনভেনিং কমিটির আহবায়ক অংগ্য মারমা, ল্যাম্প পোস্টের সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য ফারহানা হক শামা, ঘিলাছড়ি ইউপি চেয়ারম্যান অমর জীবন চাকমা, গণতান্ত্রিক যুবফোরামের যুগ্ম সম্পাদক সর্বানন্দ চাকমা, সাজেক ভূমিরক্ষা কমিটির সভাপতি জ্ঞানেন্দু চাকমা, সাজেক নারী সমাজের সভাপতি নিরূপা চাকমা, পার্বত্য চট্টগ্রাম নারী সংঘের সভাপতি সোনালী চাকমা, হিল উইমেন ফেডারেশনের সভাপতি নিরূপা চাকমা, নারী নেত্রী কামনা চাকমা, বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি বাবলু চাকমা প্রমুখ। DSC00179
সম্মেলনে বক্তারা বলেন, সরকার ৫ দফা দাবি মেনে নেয়ার আশ্বাস দিলেও আজ পর্যন্ত তা মেনে নেয়নি এ অঞ্চলে প্রথমিক ও মাধ্যমিকস্তরের শিক্ষার মান উন্নয়ন না করে কার স্বার্থে উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান করা হচ্ছে , আমরা মনে করি শিক্ষার নামে আমাদের ভূমি থেকে উচ্ছেদের পায়তারা করা হচ্ছে। যার নজির আমরা কাপ্তাই বাধ ও কর্ণফুলী পেপার মিল স্থাপন কালে দেখেছি। আমরা জানতে পেরেছি গুইমারার নাকরাইলে বাঁধ দেয়ার পায়তারা করা হচ্ছে, যার ফল কাপ্তাই বাধের মতই হবে, ভূমি হারাবো আমরা। তাই এই বাঁধ দেওয়া থেকে বিরত থাকার জন্য আমরা সরকোরে প্রতি আহবান জানাচ্ছি।

বক্তারা আরো বলেন, ৫ জানুয়ারী নির্বাচনের পর সরকার আমাদের সংবিধানের মাধ্যমে ক্ষুদ্র জাতী সত্তার পরিচয়ে না দিয়ে ক্ষুদ্র নৃ গোষ্টি হিসাবে পরিচয়ে সংবিধানে অন্তভুক্ত করেন। একটা জাতী কি পরিচয়ে স্বাচ্ছন্দ বোধ করতে তা তারাই ঠিক করবে অন্য কেউ নয়। ভুমি বেদখন এ অঞ্চলে মহামারি আকারে ধারন করেছে। সরকার বিভিন্ন অজুহাতে আমাদের ভুমি থেকে উচ্ছেদ করছে। ভুমির সাথে নারীর সম্পর্ক অভিন্ন। তাই নারীদের নিজেদের অধিকার ও ভুমি রক্ষার জন্য সচেষ্ট হতে হবে।DSC00188

বিভিন্ন নারী সংগঠনের নেত্রীরা বলেন, সন্তু লারমা আমাদের ফেলে গেছেন। আমরা আমাদের অস্তিত্ব ও অধিকার রক্ষার জন্য আন্দোলন করছি। জেএসএস বা ইউপিডিএফ এর জন্য নয়। পাহাড়ে বা সমতলে দেশের যেখানে নারীর উপরে নির্যাতন হবে তা প্রতিবাদ নয় প্রতিহত করা হবে। নারীদের অধিকার নারীদেরকেই প্রতিষ্ঠিত করতে হবে। পার্বত্য চট্টগ্রামের বিভিন্ন এলাকায় নারীদের ওপর যে নির্যাতন, নিপীড়ন, চলছে তার বিরুদ্ধে রুখে দাড়াতে হবে বলেও মন্তব্য করেন তারা।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

কাপ্তাইয়ে করোনা সংক্রমণ কমছে

প্রশাসনের কঠোর নজরদারি এবং থানা পুলিশের তৎপরতায় রাঙামাটির কাপ্তাইয়ে করোনা সংক্রমন হার কমছে। কাপ্তাই উপজেলা …

Leave a Reply