নীড় পাতা » বান্দরবান » জলের ছন্দে মুখর সম্প্রীতির বান্দরবান

জলের ছন্দে মুখর সম্প্রীতির বান্দরবান

sangrai-01বান্দরবানে মারমা সম্প্রদায়ের প্রধান সামাজিক উৎসব সাংগ্রাই’কে ঘিরে জলকেলী উৎসবে মেতেছে তরুন-তরুণীরা। আজ শুক্রবার বিকালে স্থানীয় রাজারমাঠে জলকেলী বা মৈত্রী পানি বর্ষণ খেলায় নতুন মাত্রা যোগ করেছিল বিদেশী পর্যটকদের অংশ গ্রহণ। নারী-পুরুষ দুটি ভাবে বিভক্ত হয়ে বিদেশী পর্যটকরাও আনুষ্ঠানিকভাবে জলকেলীতে মেতে উঠে সাংগ্রাই উৎসবে।
জলকেলী উৎসবের আকর্ষণীয় দিক হচ্ছে- পানি খেলা (মৈত্রী পানি বর্ষণ) খেলায় বিবাহিতরা অংশ নিতে পারে না। মারমা তরুন-তরুণীরা একে অপরের গায়ে পানি ছিটিয়ে ভাবের আদান প্রদান করে। এই উৎসবের মাধ্যমে পাহাড়ী তরুন-তরুণীরা সর্ম্পকের সেতু বন্ধন তৈরি করে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়।sangrai-02

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ক্যশৈহ্লা বলেছেন, উৎসব কোনো জাতিগোষ্ঠী এবং সম্প্রদায়ের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকেনা, উৎসব-আনন্দ সবার। সম্প্রীতির বান্দরবানে উৎসবে পাহাড়ী-বাঙ্গালী সকলের একাকার হয়ে যায়। তিনি আরো বলেন, অতিতের সকল গ্লানী-দু:খ ভুলে গিয়ে সকলেই একে অপরের মঙ্গল কামনা করি। সকলের মাঝে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় থাকবে। আগামীতে সম্প্রীতির আরো সুদৃঢ় হবে এই কামনা করি। স্বনির্ভর বাংলাদেশ গড়বো এবং আগামী প্রজন্মের জন্য সুন্দর-সম্প্রীতির দেশ গড়ার প্রত্যয় নিয়ে এগিয়ে যাবো।sangrai-03

অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে বান্দরবান পৌরসভার মেয়র মোহাম্মদ ইসলাম বেবী, অতিরিক্ত জেলা পুলিশ সুপার জসিম উদ্দিন, পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য লক্ষি পদ দাশ’সহ স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গরা উপস্থিত ছিলেন।
এদিকে জলকেলী উৎসব পানি খেলায় ছোট-বড় কয়েকটি ভাগে বিভক্ত করে পানি খেলায় অংশ নেয় তরুন-তরুণীরা। আশেপাশের শত শত পাহাড়ী নারী-পুরুষ এবং দেশী-বিদেশী পর্যটকরা ভীড় জমায় জলকেলী উৎসব দেখতে। পুরাতন বর্ষকে বিদায় আর নতুন বর্ষকে বরণ করার এই উৎসবকে মারমা সম্প্রদায় প্রধান সামাজিক উৎসব সাংগ্রাই নামে পালন করে আসছে যুগযুগ ধরে। এদিকে সাংগ্রাই উৎসবকে ঘিরে রাজারমাঠে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান নাচে-গানে মাতিয়ে তুলেছেন মারমা তরুন-তরুনীরা। মারমা শিল্পীদের সাংস্কৃতিক পরিবেশনায় মুগ্ধ দর্শকরাও।sangrai-04
সংগ্রাই আয়োজক কমিটির সভাপতি মংচিংনু মারমা জানায়, বৃহস্পতিবার থেকে দুদিন ব্যাপী রাজগুরু ক্যায়াংএ হাজারো প্রদ্বীপ প্রজ্জলন কর্মসূচী চলছে। আর উজানী পাড়া, মধ্যমপাড়া এবং জাদীপাড়া’সহ বিভিন্ন পাহাড়ী পল্লীগুলোতে রাতব্যাপী সাড়িবদ্ধভাবে বসে তরুন-তরুনীরা হরেক রকমের পিঠা তৈরির প্রতিযোগীতায় মেতেছে। তৈরি করা পিঠাগুলো পাড়া-প্রতিবেশীদের ঘরে ঘরে বিতরণ করা হয়। এছাড়াও শনিবারও রাজারমাঠে জলকেলী বা মৈত্রী পানি বর্ষণ পানি খেলা এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হবে।sangrai-05sangrai-06sangrai-07

Micro Web Technology

আরো দেখুন

জুরাছড়িতে গুলিতে নিহত কার্বারির ময়নাতদন্ত সম্পন্ন

রাঙামাটির জুরাছড়ি উপজেলায় স্থানীয় এক কার্বারিকে (গ্রামপ্রধান) গুলি করে হত্যা করেছে অজ্ঞাত বন্দুকধারী সন্ত্রাসীরা। রোববার …

Leave a Reply