নীড় পাতা » পাহাড়ের সংবাদ » জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে রাজপথে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা

জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে রাজপথে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা

jongiiiসন্ত্রাস জঙ্গিবাদ নির্মূলে রাঙামাটির শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে মানববন্ধন ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার সকাল ১১টা থেকে ১২টা পর্যন্ত ঘন্টাব্যাপী রাঙামাটি শহরসহ প্রতিটি উপজেলায় সন্ত্রাস জঙ্গিবাদ নির্মূলের প্রতিবাদে মানববন্ধন ও সমাবেশ করে প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীবৃন্দ। স্ব-স্ব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে মানববন্ধন ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

মানববন্ধনে সকলে ঐক্যবদ্ধ হলেই বাংলাদেশে কোনো জঙ্গিবাদ সন্ত্রাসবাদ মাথাচাড়া দিয়ে উঠতে পারবে না বলে মন্তব্য করেন রাঙামাটি সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর জাফর আহমদ। সন্ত্রাসবাদ প্রতিরোধে শিক্ষার্থীদেরই প্রধান ভূমিকা রাখতে হবে বলে মন্তব্য করেন রাঙামাটি সরকারি মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ শফিউল আলম।

মানববন্ধন পরবর্তী জঙ্গিবাদ বিরোধী সভায় দেশকে সুন্দর শান্তিপূর্ণ রাখতে হলে তরুণ প্রজন্মকে ঐক্যবদ্ধভাবে সন্ত্রাস জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে বলে মন্তব্য করেন রাঙামাটি মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ মো: টিপু সুলতান।

Pic-03
প্রতিবাদে সামিল রাঙামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়

বনরূপা মুজাদ্দেদ-ই আল ফেসানির অধ্যক্ষ নুরুল আলম পাটোয়ারির সভাপতিত্বে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে মাবনবন্ধন ও সমাবেশে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক মো.সামসুল আরেফিন। বিশেষ অতিথি ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক)মো.আবু শাহেদ চৌধুরী ও জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা হারুন রশীদ।

এসময় সমাবেশে জেলা প্রশাসক মোঃ সামসুল আরেফিন বলেন, এই দেশ থেকে সন্ত্রাসী ও জঙ্গিবাদ নির্মূল করার লক্ষ্যে সবাইকে এক যোগে কাজ করতে হবে। শিক্ষক শিক্ষার্থী অভিভাবক ও সর্বস্তরের জনসাধারণকে জঙ্গি ও সন্ত্রাস নির্মূলে সচেতনতা এবং সজাগ থাকতে হবে।

এরপর জেলা প্রশাসক শহরের রাণী দয়াময়ী উচ্চ বিদ্যালয়ে জঙ্গি বিরোধী মানববন্ধন ও সমাবেশে অংশ গ্রহণ করেন। এসময় সেখানে আরো উপস্থিত ছিলেন রাণী দয়াময়ী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রণতোষ মল্লিকসহ প্রশাসনের কর্মকর্তা এবং বিদ্যালয়ের অন্যান্য শিক্ষক-শিক্ষার্থীবৃন্দ।

শিক্ষার্থীরাই পারে সন্ত্রাসবাদকে ‘না’ বলতে এবং তাদের ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্টায় সন্ত্রাসবাদ নির্মূল করা সম্ভব বলে মনে করে রাঙামাটি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও রাঙামাটি জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার উত্তম খীসা।

এদিকে বনরূপা আল-আমিন মডেল ফাজিল মাদ্রাসা গেইট প্রাঙ্গণে প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ মাওলানা নূরুল আলম সিদ্দিকীর সভাপতিত্বে জঙ্গি ও সন্ত্রাস নির্মূল মাবনবন্ধন এবং সমাবেশে বক্তব্য রাখেন অধ্যাপক মো.আবদুল আলীম, সহকারী অধ্যাপক মাওলানা ইসমাইল হোসেন, প্রভাষক আবদুল আলম, মাওলানা মাহতাব উদ্দিন ও সহকারি শিক্ষক আবদুল মুনাফ ও শিক্ষার্থী হাফেজ আশরাফুল ইসলাম। এছাড়া বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের চেয়ারম্যান জুয়েল সিকদার, শিক্ষক ধীমান শর্মা, ব্যবস্থাপনা বিভাগের চেয়ারম্যান সূচনা আক্তার, কম্পিউটার প্রকৌশল বিভাগের শিক্ষার্থী মোঃ আশফাক হোসেন, ব্যবস্থাপনা বিভাগের শিক্ষার্থী মঈন উদ্দীন।

medical-college
মানববন্ধনে রাঙামাটি মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থীরা

এছাড়া বায়তুশ শরফ জব্বারিয়া আদর্শ মাদ্রাসা ও উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় একযোগে মানববন্ধন ও সমাবেশ করেন।

একই ভাবে বাঘাইছড়িতে সন্ত্রাস জঙ্গিবাদ বিরোধী ও মানববন্ধন বাস্তবায়ন কমিটির আহবায়ক কাচালং দাখিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা ওমর ফারুকের সভাপতিত্বে সন্ত্রাস জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে র‌্যালি ও মানববন্ধন অনুষ্টিত হয়। র‌্যালী ও মানববন্ধনে প্রধান অতিথি ছিলেন পৌর আ’লীগের সভাপতি জমির উদ্দিন। মানববন্ধনে অংশগ্রহণ করেন কাচালং ডিগ্রি কলেজ, কাচালং উচ্চ বিদ্যালয়, কাচালং বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কাচালং দাখিল মাদ্রাসার সকল শিক্ষক ও শিক্ষার্থীবৃন্দ। এসময় সেখানে বক্তব্য রাখেন জেলা আ’লীগের সদস্য মোঃ জাফর আলী খাঁন, উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক আলী হোসেন, উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক সুজিত চক্রবর্তী, উপজেলা ছাত্রসেনা সাবেক সভাপতি শাহাজাদা মোঃ আবদুল বারী।

রাঙামাটি জেলার ১০ উপজেলা বাঘাইছড়ি, লংগদু, বরকল, নানিয়ারচর, জুরাছড়ি, কাপ্তাই, কাউখালী, বিলাইছড়ি, রাজস্থলী ও সদর উপজেলায় জঙ্গি ও সন্ত্রাস বিরোধী একইভাবে মানববন্ধন ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

জুরাছড়িতে গুলিতে নিহত কার্বারির ময়নাতদন্ত সম্পন্ন

রাঙামাটির জুরাছড়ি উপজেলায় স্থানীয় এক কার্বারিকে (গ্রামপ্রধান) গুলি করে হত্যা করেছে অজ্ঞাত বন্দুকধারী সন্ত্রাসীরা। রোববার …

Leave a Reply