ছাত্রনেতাদের ‘আসল চেহারা’ দেখলো নবীন শিক্ষার্থীরা !

college-pic011রাঙামাটি সরকারি কলেজে উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাজীবনের প্রথম ক্লাশ করতে এসে প্রথম দিনই ছাত্রনেতা বড়ভাইদের রূদ্রমূর্তি দেখলো একাদশ শ্রেণীর নবীন শিক্ষার্থীরা। কলেজ কর্তৃপক্ষ ওরিয়েন্টশন ক্লাশে ছাত্রনেতাদের গুরুত্ব দেয়নি এমন অভিযোগ এনে ওরিয়েন্টশন ক্লাস বর্জন করে কলেজের সক্রিয় তিন ছাত্র সংগঠন ছাত্রলীগ,ছাত্রদল ও পাহাড়ী ছাত্র পরিষদ। একই কারণে নবীন শিক্ষার্থীদের ওরিয়েন্টশন ক্লাশ থেকে বের হয়ে যেতেও বাধ্য করেন ছাত্রনেতারা,এমন অভিযোগ খোদ নবীন শিক্ষার্থীদের। এনিয়ে হতাশা ও ক্ষোভের কথা জানিয়েছেন শিক্ষার্থীরা। তবে ছাত্রনেতারা বলছেন,তারা কাউকেই জোর করেননি,তারা না থাকায় শিক্ষার্থীরাই স্বইচ্ছায় বেরিয়ে এসেছে।

কলেজ সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো জানিয়েছে, রাঙামাটি কলেজে বৃহস্পতিবার সকালে একাদশ শ্রেণির ওরিয়েন্টশন ক্লাস চলাকালিন সময়ে কলেজের বিভিন্ন ছাত্র সংগঠনের নেতৃবৃন্দদেরকে অনুষ্ঠানে বক্তব্য দিতে না দেওয়ার বিষয় নিয়ে সমস্যার সৃষ্টি হলে এক পর্যায়ে অনুষ্ঠানস্থল ত্যাগ করেন ছাত্রনেতারা এবং নবীন শিক্ষার্থীদের অনেককেই জোর করে অনুষ্ঠানস্থল ত্যাগে বাধ্য করেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। তবে ছাত্রনেতারা বলছেন,ওরিয়েন্টশন ক্লাশের ব্যাপারে তাদের কিছুই জানায়নি কলেজ কর্তৃপক্ষ।

এই বিষয়ে একাদশ শ্রেণীর একাধিক শিক্ষার্থী জানান,ওরিয়েন্টশন ক্লাস শুরু হলে হঠাৎ কিছু রাজনৈতিক কর্মী নবীন শিক্ষার্থীদের অনেকটা জোর করে অনুষ্ঠানস্থল থেকে বের করে নিয়ে যাওয়া শুরু করে,এতে অনুষ্ঠানস্থলে বিশৃংখলা দেখা দেয়। এসময় অনুষ্ঠান সংক্ষিপ্ত করে নিজের বক্তব্য দিয়ে দ্রুত কর্মসূচী শেষ করেন কলেজ অধ্যক্ষ।

এই বিষয়ে জানতে চাইলে কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি সুলতান মাহামুদ বাপ্পা বলেন, ছাত্রলীগ একটি সুশৃংখল ছাত্র রাজনীতিতে বিশ্বাসি। আমরা কলেজের বিভিন্ন কাজে শিক্ষকদেরকে সহযোগিতা করি ভর্তির সময়ও আমরা সাহায্য করেছি। কলেজ প্রসাশন ওরিয়েন্টশন ক্লাসের আগে আমাদের সাথে কথা বলে কিন্তু এই বার কলেজ প্রশাসন আমাদেরকে কিছুই জানায়নি এবং আমাদের গুরুত্বও দেয়নি,তাই নবীন শিক্ষার্থীরা নিজেরাই অনুষ্ঠান থেকে বেরিয়ে চলে আসে।

ছাত্রদল এর সভাপতি ইমরান চৌধুরী সুজন ও সাধারণ সম্পাদক মো: অলি আহাদ বলেন, কলেজের সকল কাজে আমরা সহযোগিতা করি, কিন্তু আজকে এই অনুষ্ঠানের কথা আমাদেরকে জানানো হয়নি আর আমরা ছাত্রদের প্রতিনিধিত্ব করি তাই ছাত্ররা আমাদেরকে অনুষ্ঠানস্থলে না দেখে, নিজেরাই বেরিয়ে চলে এসেছে।

পিসিপি কলেজ কমিটির সভাপতি সমিত্র চাকমা বলে, আমরা কাউকে বের করিনি, ছেলেরা নিজেরাই বেরিয়ে যায়। তারা যখন জানতে পারে তাদের প্রতিনিধিদেরকে জানানো হয়নি, তাই তারা হল রুম ত্যাগ করে।

তবে প্রথম বর্ষের একাধিক শিক্ষার্থী নাম প্রকাশ না করার শর্তে ক্ষুদ্ধ প্রতিক্রিয়া ও ক্ষোভ জানিয়ে বলেছেন, ছাত্রনেতা বড় ভাইদের সাথে কলেজ কর্তৃপক্ষের কি সমস্যা সেটাতো আমরা জানিনা,কিন্তু ওনারা যেভাবে জোর করে আমাদের অনুষ্ঠানস্থল থেকে বের করে নিয়েছেন,সেটা আমাদের কারোই ভালো লাগেনি। নবীন শিক্ষার্থীরা সবাইতো আর রাজনীতি করেনা। আমাদের নিয়ে সবকিছুতেই রাজনীতি করাও উচিত নয়। তারা বলেন, ছাত্রনেতা বড়ভাইদের আসল চেহারা দেখেছি এদিন।

একাদশ শ্রেণির ভর্তি কমিটির আহবায়ক ও ওরিয়েন্টশন ক্লাসের সভাপতি ড. লক্ষী কান্ত শ্যাম বলেন, ১ই জুলাই থেকে ক্লাস শুরু হওয়ার কথা কিন্তু আমরা ২ই জুলাই ক্লাস শুরু করি। তিনি আরো বলেন, নবীন বরণ অন্য কোন কলেজে হয় না। কিন্তু এই কলেজে করা হয়েছে। বিভিন্ন ছাত্র সংগঠনের কর্মীরা ভর্তির সময় কলেজ প্রশাসনকে সাহায্য করেছে কিন্তু তারা এখন এমন কাজ কেন করেছে তা বুঝতে পারছি না।

রাঙামাটি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর বাঞ্ছিতা চাকমা বলেন, তারা আমাদের সন্তানের মত, তাদের কোন আবদার থাকলে আমাদের কাছে এসে বলতে পারতো তারা। তারা আমাদেরকে বিভিন্ন কাজে সাহায্য করছে, কিন্তু তাদের কাছ থেকে এই রকম কাজ আমরা আশা করিনি। তিনি আরো বলেন,আমরাতো কোন দল করিনা। তাছাড়া বিভিন্ন সংগঠন নিজ উদ্যোগে নবীন বরণ করে থাকে, কিন্তু এইভাবে কলেজের নিজস্ব অনুষ্ঠানে সমস্যা সৃষ্টি করা তাদের কাছ থেকে আশা করা যায়না।

অন্যদিকে অনুষ্ঠান শুরু হওয়ার আগেই বিভিন্ন ছাত্র সংগঠনের পক্ষ থেকে নবীন বরণে আয়োজন এবং কলেজ ক্যাম্পাসে নবীনদের বরণে মিছিল ও সমাবেশ করতে দেখা যায়।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

কারাতে ফেডারেশনের ব্ল্যাক বেল্ট প্রাপ্তদের সংবর্ধনা

বাংলাদেশ কারাতে ফেডারেশন হতে ২০২১ সালে ব্ল্যাক বেল্ট বিজয়ী রাঙামাটির কারাতে খেলোয়াড়দের সংবধর্না দিয়েছে রাঙামাটি …

৩ comments

  1. Ja korce, valoi korce. RMT govt collage er teacher ra janoar er thekeo kharap. Vab dekhe mone hoy, ora sara r kew BCS pass kore nai. Kuttar jat.

Leave a Reply

%d bloggers like this: