নীড় পাতা » ব্রেকিং » চিরতরে নিষ্ক্রিয় হয়ে গেলো আরো একটি ফেসবুক একাউন্ট !

চিরতরে নিষ্ক্রিয় হয়ে গেলো আরো একটি ফেসবুক একাউন্ট !

kislu-bhaiছোট্ট শহর রাঙামাটি। চারদিকেই জল থৈ থৈ কাপ্তাই হ্রদে মোড়ানো এই শহরে মানুষের বাস মাত্র লক্ষের কোটায়। শহরজুড়ে বিস্তৃত পৌরসভাটির ভোটারও মাত্র ষাট হাজার !ছোট্ট ছিমছাম এই শহরে প্রায় সবাই সবার পরিচিত। কি পাহাড়ী , কি বাঙালী সবাই পরস্পরকে কম বেশি চেনেন। চেনা এই শহরের চেনা মানুষদেরই একজন কিছলু ভাই, হাসানউদ্দিন আহম্মেদ কিছলু।

রাঙামাটি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের ১৯৮৯ সালের বিখ্যাত ব্যাচের ছাত্র ছিলেন কিছলু। ভীষণ বন্ধু অন্তপ্রাণ,স্মার্ট এবং চলনে বলনে আভিজাত্যের কারণে বন্ধুমহল,এমনকি পাড়ার ছোট ভাইদের কাছেও জনপ্রিয় ছিলেন কিছলু। মাত্রইতো ৪৩ বছর বয়স। বিয়ে করেছেন,সংসারে তিন কন্যা সন্তান তার। শ্বশুড় বাড়ীও শহরেই। প্রেম করেই বিয়ে করেছেন কিছলু একই এলাকার সাব্বির আহম্মেদের মেয়েকে।

কর্মজীবনের শুরুতে ইন্সুরেন্স ব্যবসা করা কিছলু,থিতু হয়েছে প্রযুক্তি পণ্য ব্যবসায় গিয়ে। শহরের বনরূপায় কম্পিউ-হার্ট নামের তার প্রতিষ্ঠানটি ইতোমধ্যেই বেশ সুনামও কুড়িয়েছে। তিনিও নানান সামাজিক কাজে জড়িয়ে ছিলেন। ছিলেন কমিউনিটি পুলিশিং ফোরামের সাথেও। বাবা ছিলেন পুলিশ কর্মকর্তা,ছোটভাই পিপলুও সরকারি চাকুরিজীবি।

সেই কিছলু আর নেই ! ৩১ অক্টোবর মধ্যরাতে শহরের মাস্টার কলোনী এলাকায় নিজ বাসায় হঠাৎ বুকে ব্যাথা উঠে কিছলু’ল। দ্রুত পরিবারের সদস্য ও বন্ধুরা হাসপাতালে নিয়ে যেতে বের হয়। কিন্তু হাসপাতালে পৌঁছানোর আগেই সব শেষ ! চলে গেলেন এই শহরের সুঠামদেহের স্মার্ট এক তরুন,যে এই শহরটাকে সত্যিই ভালোবাসতো।

কিছলুর মৃত্যুতে শোকে আর কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন তার বন্ধুরা। কিছলুর বন্ধু ও বৃহত্তর বনরূপা ব্যবসায়ি কল্যান সমিতির সভাপতি আবু সৈয়দ কান্নাভেজা কন্ঠে বলেন, ও এভাবে যেতে পারেনা ! আমি বিশ্বাস করিনা কিছলু নেই। ভীষণ বন্ধু অন্তপ্রাণ ছিলো সে,বন্ধুদের বিপদে সবার আগে যে ঝাঁপিয়ে পড়তো,তাদেরই একজন কিছলু।’

কিছলুর বন্ধু ফারুক ফেসবুক লিখেন, ‘অনাকাংখিত খবরে মনটাই কষ্টে ভরে উঠে..কিসলু আর এই দুনিয়াতে নেই…’

দুবাই প্রবাসি টিটু বাঙালী ফেসবুকে লিখেন, ‘কিছু দিন আগেও কিসলু ভাইয়ের সাথে মোবাইলে আমার কথা হয়েছে অনেক্ষন অনেক আন্তরিকতার সাথে…পারিবারিক ভাবে আমাদের পরিবারের খুবই ভালো সম্পর্ক আছে আমাদের…শুনে খুবই খারাপ লাগলো….খুব ভালো মনের মানুষ ছিল কিসলু ভাই….’

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মোটামুটি সক্রিয় কিছলুর ফেসবুক একাউন্টে ঢুকে রবিবার রাতে দেখা গেছে,পরিচিত স্বজন আর বন্ধুদের হাহাকার আর বেদনাভরা রোদন। কিন্তু কিছলুর কোন পোস্ট নেই,সম্ভবও না আর পোস্ট দেয়া তার। চিরকালের জন্যই নিষ্ক্রিয় হয়ে গেলো একটি ফেসবুক একাউন্ট,একজন হাসানউদ্দিন কিছলু,রাঙামাটি শহরকে ভালোবাসা এক তরুণ।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নির্মাণে বিরোধীতার প্রতিবাদ রাঙামাটিতে

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য নির্মাণে বিরোধীতার নামে ‘উগ্রমৌলবাদ ও ধর্মান্ধগোষ্ঠীর জনমনে বিভ্রান্তির …

Leave a Reply

%d bloggers like this: