নীড় পাতা » পাহাড়ের সংবাদ » চার উপজেলা নির্বাচন নিয়ে চার ইউএনও যা বললেন…

চার উপজেলা নির্বাচন নিয়ে চার ইউএনও যা বললেন…

pic-20_61678রাঙামাটির চার উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে পর্যাপ্ত সংখ্যক আইনশৃংখলা বাহিনী নিয়োজিত করা হয়েছে। চার উপজেলার মধ্যে রাঙামাটি সদর,রাজস্থলী,লংগদু ও বিলাইছড়ি উপজেলায় সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন সম্পন্ন ও এলাকার আইনশৃংখলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে রাখার জন্য পুলিশ,বিজিবি,সেনাবাহিনী,নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট দায়িত্ব পালন করছেন।
এই প্রসঙ্গে রাঙামাটি সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও সহকারী রিটার্নিং অফিসার রুমানা রহমান শম্পা বলেন,রাঙামাটির ঝুকিপূর্র্ণ প্রতিটি ভোট কেন্দ্রে ৫ জন করে পুলিশ,কম ঝুকিপূর্র্ণ কেন্দ্রগুলোতে ৪ জন করে পুলিশ,১২ জন করে আনসার সদস্য নিয়োজিত থাকবে ।এছাড়া পানিপথে ২টি,স্থল পথে ৬টি পুলিশের মোবাইল টিম,৭ জন নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট,১ জন জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট,র‌্যাব-৭ এর টিম ও বিজিবির ১৬ টি ষ্ট্রাইকিং ফোর্স সার্বক্ষনিকভাবে দায়িত্ব পালন করবে।
বিলাইছড়ি উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা ও সহকারী রিটার্নিং অফিসার নুরুল ইসলাম জানান,বিলাইছড়ি উপজেলায় মোট ৯ টি ঝুকিপূর্ণ কেন্দ্র আছে। ঝুকিপূর্ণ প্রতিটি কেন্দ্রে ৪ জন করে পুলিশ সদস্য ও বাকী ২ টি কেন্দ্রে ৩ জন করে ৪২ জন পুলিশ সদস্য দায়িত্ব পালন করবে।এছাড়াও বিজিবির ৬১ জন সদস্য, ৩ টি ষ্ট্রাইকিং ফোর্স ও সেনাবাহিনী দায়িত্ব পালন করবে ।

রাজস্থলী উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা ও সহকারী রিটার্নিং অফিসার ছাদেকুর রহমান বলেন,রাজস্থলী উপজেলায় ১৪ টি ভোট কেন্দ্রকে ঝুকিপুর্ন হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। আইনশৃংখলা রক্ষার দায়িত্বে ২০১ জন পুলিশ সদস্য, ১৬৮ জন আনসার সদস্য, ২ প্লাটুন বিজিবি ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট দায়িত্ব পালন করবে।

লংগদু উপজেলার সহকারী রিটার্নিং অফিসার ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো: মফিজুল ইসলাম জানিয়েছেন, লংগদুতে ৬ টির মতো ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্র রয়েছে। তিনি জানিয়েছেন লংগদুর ১১ টি ভোট কেন্দ্রে সেনাবাহিনী,বিজিবি নিয়োজিত থাকবেন।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

জনপ্রিয় হচ্ছে ‘তৈলাফাং’ ঝর্ণা

করোনার প্রভাবে দীর্ঘদিন বন্ধ ছিল খাগড়াছড়ির পর্যটন ও বিনোদনকেন্দ্র। তবে টানা বন্ধের পর এখন খুলেছে …

Leave a Reply