নীড় পাতা » ব্রেকিং » চলে গেলেন মাহবুবুর রহমান

চলে গেলেন মাহবুবুর রহমান

Mahabubur-Rahmanবৃহস্পতিবার দুপুরে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে ইন্তেকাল করেছেন রাঙামাটি জেলা আওয়ামীলীগের সহসভাপতি ও পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদ সদস্য মাহবুবুর রহমান (ইন্নালিল্লাহে….রাজেউন)। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিলো ৬৫ বছর। তিনি দুই পুত্র সন্তানের জনক।
মাহবুববুর রহমানের দীর্ঘদিনের ঘনিষ্ঠজন ও রাঙামাটি চেম্বারের সভাপতি বেলায়েত হোসেন ভূইয়া জানিয়েছেন, দুপুরে খাবার পর তিনি হঠাৎ অসুস্থতা উপলদ্ধি করেন এবং দাঁড়ানো অবস্থা থেকে পড়ে যান। তাকে তাৎক্ষনিক রাঙামাটি সদর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

রাঙামাটি সদর হাসপাতালের জরুরী বিভাগের চিকিৎসক আকাই প্রু মারমা জানিয়েছেন, হাসপাতালে যখন ওনাকে আনা হয়,তখনই তিনি মৃত। দুপুর পৌনে দুইটার দিকে তাকে হাসপাতালে আনা হয় বলেও জানান এই চিকিৎসক।

মরহুম মাহবুবুর রহমান রাঙামাটি পৌরসভার সাবেক চেয়ারম্যান, রাঙামাটি চেম্বার অব কমার্সের সাবেক সভাপতি ও বর্তমান পরিচালক,পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদ সদস্য,রাঙামাটি কমিউনিটি পুলিশিং ফোরামের সভাপতি,রাঙামাটি জেলা আওয়ামীলীগে দীর্ঘদিন সহসভাপতির দায়িত্ব পালন করে আসছেন। এছাড়াও তিনি বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠনের সাথেও জড়িত ।
মাহবুবুর রহমানের মৃত্যুর সংবাদ শুনে হাসপাতালে ছুটে যান বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী,জেলা পুলিশ সুপার সাঈদ তারিকুল হাসানসহ উর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তা,জেলা প্রশানের কর্মকর্তা,রাঙামাটি জেলা বিএনপির সভাপতি হাজী মো: শাহ আলমসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার বিপুল সংখ্যক মানুষ।

শোক ও আর শ্রদ্ধা
এদিকে মাহবুবুর রহমানের আকস্মিক মৃত্যুতে গভীর শোক ও সমবেদনা জানিয়েছে বিভিন্ন সামাজিক,সাংস্কৃতিক,রাজনৈতিক ও ব্যবসায়ি সংগঠন।
রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ  চেয়ারম্যান বৃষকেতু চাকমা,রাঙামাটি জেলা আওয়ামীলীগের পক্ষে সাধারন সম্পাদক মো: মুছা মাতব্বর,পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি সোলায়মান চৌধুরী ও সাধারন সম্পাদক মনসুর আলী, জেলা যুবলীগের পক্ষে পৌর মেয়র ও সভাপতি আকবর হোসেন চৌধুরী ও সাধারন সম্পাদক নুর মোহাম্মদ কাজল,জেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি সাইফুল আলম রাশেদ ও সাধারন সম্পাদক প্রকাশ চাকমা,পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি  এইচ এম আলাউদ্দিন ও সাধারন সম্পাদক অপু শ্রীং লেপচা,কলেজ ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক আহমেদ ইমতিয়াজ রিয়াদ, সদর থানা ছাত্রলীগের সভাপতি নজরুল ইসলাম ও সাধারন সম্পাদক সুপায়ন চাকমা, শ্রমিক লীগের সাধারন সম্পাদক সামসুল আলম, মাহবুবুর রহমানের মৃত্যুতে  গভীর শোক ও সমবেদনা জানিয়ে বলেছেন, তার মৃত্যুতে আওয়ামীলীগ একজন নিবেদিতপ্রাণ ও পরীক্ষিত নেতাকে  হারালো,যার শূণ্যতা কোনভাবেই পূরণ করা সম্ভব নয়।

এদিকে রাঙামাটি জেলা বিএনপির সভাপতি মো: শাহ আলম ও সাধারন সম্পাদক দীপন তালুকদার দীপু,পৌর বিএনপির সভাপতি এসএম শফিউল আজম ও সাধারন সম্পাদক মাহবুবুল বাসেত অপু,সাবেক পৌর মেয়র সাইফুল ইসলাম ভূট্টো, জেলা ছাত্রদলের সভাপতি আবু সাদাত মো: সায়েম ও পৃথক বিবৃতিতে  মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করেছেন।

mahbub
এ ছবি এখন কেবলই স্মৃতি…..

রাঙামাটি চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি বেলায়েত হোসেন ভূঁইয়া, বৃহত্তর বনরূপা ব্যবসায়ি কল্যাণ সমিতির সভাপতি  আবু ছৈয়দ ও সাধারন সম্পাদক তাপস দাশও  মরহুমের রুহের মাগফেরাত কামনা করে তার শোক সন্তপ্ত পরিবারের  প্রতি সহানুভূতি জানিয়েছেন।

শুক্রবার জানাজা ও দাফন
এদিকে পরিবারের কিছু সদস্যের রাঙামাটির বাহির থেকে এসে মরহুম মাহবুবুর রহমানকে শেষ বারের মতো দেখার বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে তার দাফন শুক্রবার করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে তার পরিবার। শুক্রবার সকাল ১০ টায় জেলা আওয়ামীলীগ কার্যালয়ে তার মৃতদেহ আনা হবে,সেখানেই শেষ শ্রদ্ধা জানাবেন দলীয় নেতাকর্মীরা। এরপর সকাল ১১ টায় কোতয়ালি থানা মাঠে  তার নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত  হবে।

আওয়ামীলীগের দুইদিনের শোক
দলের জেলা কমিটির জৈষ্ঠ্য সহসভাপতি ও পরীক্ষিত নেতা মাহবুবুর রহমানের মৃত্যুতে দুইদিনের শোক ঘোষণা করেছে  রাঙামাটি জেলা আওয়ামীলীগ। শুক্রবার ও শনিবার এই দুইদিনের শোক উপলক্ষ্যে দলীয় কার্যালয়ে কালো পতাকা উত্তোলন এবং নেতাকর্মীদের  কালো ব্যাচ ধারণ ও মরহুমের মরদেহে পুস্পস্তবক অর্পণ করা হবে বলে জানিয়েছেন রাঙামাটি জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক মো: মুছা মাতব্বর।
অন্যদিকে দেশের বাইরে  থাকা জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি  ও সাবেক পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী দীপংকর তালুকদার ইতোমধ্যেই দেশে এসেছেন এবং তিনি রাঙামাটির উদ্দেশ্যে শুক্রবার বিকালেই রওনা হয়েছেন বলে জানিয়েছেন আওয়ামীলীগ সম্পাদক।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

জুরাছড়িতে গুলিতে নিহত কার্বারির ময়নাতদন্ত সম্পন্ন

রাঙামাটির জুরাছড়ি উপজেলায় স্থানীয় এক কার্বারিকে (গ্রামপ্রধান) গুলি করে হত্যা করেছে অজ্ঞাত বন্দুকধারী সন্ত্রাসীরা। রোববার …

Leave a Reply