চলছে দৌঁড়ঝাঁপ, তবে ‘দাদা’ই শেষ ভরসা

bsl-flagআগামী ২ জুন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ রাঙামাটি জেলা শাখার সম্মেলন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। সম্মেলনের তারিখ ঘোষণার পর থেকেই সম্ভাব্য প্রার্থীরা দৌঁড়ঝাঁপ শুরু করেছে। প্রার্থীরা যাচ্ছেন কাউন্সিলদের দুয়ারে দুয়ারে। কাউন্সিলদের মন জয় করার জন্য চেষ্টা করছেন। নিজের যোগ্যতা ফিরিশতি টেনে চেষ্টা করছেন নিজেকে যোগ্য প্রার্থী হিসেবে উপস্থাপন করার। কাউন্সিলর ছাড়াও সিনিয়র নেতৃবৃন্দের কাছেও দৌঁড়ে যাচ্ছেন সম্ভাব্য প্রার্থীরা। যেসব প্রার্থী এতোদিন নীরবে ছিলেন, এবার তারাও চেষ্টা করছেন নীরবতা ভেঙ্গে সব পক্ষকে ম্যানেজ করে ছাত্রলীগের জেলার সর্বোচ্চ এই পদবিতে আসীন হতে। তবে যার আশির্বাদ না পেলে নয়; তিনি হচ্ছেন জেলা আওয়ামীলীগ ও এর অঙ্গ সংগঠনের নিয়ন্ত্রক দীপংকর তালুকদার। বিভিন্নভাবে সিনিয়র নেতাদের মাধ্যমে চেষ্টা করছেন দাদা দীপংকর তালুকদারের আশির্বাদ নিজের কাছে নিতে। গত কয়েকটি কমিটির ধারাবাহিকতায় ও জেলার বিভিন্ন নেতৃবৃন্দের সাথে কথা বলে জানা যায়, সাবেক প্রতিমন্ত্রী দীপংকর তালুকদারের পছন্দানুসারে সভাপতি ও সম্পাদক বাছাই করা হবে। তাই যতই কাউন্সিলদের মন জয় করুক না কেন ‘দাদা’র গুড বুকে যার নাম নেই, এই দুইটি পদে আসা কঠিন হয়ে পড়বে।

২০১০ সালের ৩০ জুলাই সম্মেলনের মাধ্যমে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকের নাম ঘোষণা করে কমিটি গঠিত হলেও পূর্ণাঙ্গ কমিটির অনুমোদন পায় তারও প্রায় এক বছর পরে। আর নেতৃত্বে আসে নতুন মুখ। প্রায় পাঁচ বছর পূর্বে সেই সম্মেলনের পর আগামী ২ জুন জেলা ছাত্রলীগের আরেকটি সম্মেলন অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

সভাপতি হিসেবে ইতোমধ্যেই রাঙামাটি শহর ও উপজেলা চষে বেড়াচ্ছে সম্ভাব্যা প্রার্থীরা। এর মধ্যে বেশ কয়েকজন প্রার্থী জেলা নেতৃবৃন্দের কাছে সিভি জমা দিয়েছে। জেলা ছাত্রলীগের দপ্তর সম্পাদক নিপ্লব গুপ্ত জানিয়েছেন, সোমবার বিকাল পর্যন্ত সভাপতি পদে ছয়জন ও সম্পাদক পদে চারজন সিভি জমা দিয়েছেন। সভাপতি পদে সিভি জমা দিয়েছেন জেলা ছাত্রলীগের শিক্ষা ও পাঠচক্র বিষয়ক সম্পাদক এম এন কাউসার রুমি, শহর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল আলম রাশেদ, কলেজ ছাত্রলীগের সদ্য বিদায়ী সভাপতি সজল দাশ, উপ-বিজ্ঞান ও তথ্য প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক জয় প্রকাশ দত্ত, উপ-ক্রীড়া সম্পাদক মোঃ ইকবাল(রাহুল) ও সদস্য শাহনেওয়াজ সুমন। এছাড়া সভাপতি পদে সদ্য বিদায়ী কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল জব্বার সুজনও সিভি জমা দেওয়ার কথা রয়েছে।

এদিকে সাধারণ সম্পাদক পদে সিভি জমা দিয়েছেন জেলা ছাত্রলীগের উপ-প্রচার সম্পাদক রুবেল চৌধুরী, উপ-স্কুল ও ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক প্রকাশ চাকমা, সাংস্কৃতিক সম্পাদক আবির চন্দ্র ঘটক, সদ্য বিদায়ী কলেজ কমিটির আইন বিষয়ক সম্পাদক মোঃ সালাউদ্দীন টিপু।

জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ সাইফুল আলম সাইদুল জানান, সিভি সংগ্রহের সময় শেষ হলেও আমরা ব্যস্ততার কারণে কয়েকজনের সিভি সংগ্রহ করতে পারিনি। আজ মঙ্গলবার পর্যন্ত সিভি সংগ্রহ করা হবে।

সাবেক জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ও বর্তমান জেলা যুবলীগের সভাপতি আকবর হোসেন চৌধুরী বলেন, জেলার তৃণমূল পর্যায়ে সৎ ও যোগ্য নেতৃত্বের মাধ্যমে দলের জন্য ত্যাগ ও শ্রম দেওয়া প্রকৃত ছাত্ররাই যাতে ছাত্রলীগের নতুন কমিটিতে স্থান পায় সেদিকে গুরুত্ব দিতে হবে। আর যারাই নেতৃত্বে আসবে, তারা আমাদের নেতা দীপংকর তালুকদারের যোগ্য নেতৃত্বে ও দলের সংবিধানের প্রতি আস্থা রেখে কাজ করে যাবেন আমি আশা করছি। নতুন নেতৃত্ব কোনো কারণে যাতে টেন্ডারবাজির সাথে যুক্ত না হয় সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে। তিনি আরো বলেন, দীপংকর তালুকদার যেহেতু আমাদের সাংগঠনিক নেতা তাই অতীতে ছাত্রলীগের যেসব কমিটি হয়েছে, তাতে তাঁর মতামত গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে তিনি যেসব কমিটি গঠনে মতামত দিয়েছেন, তাতে যোগ্য নেতৃত্ব উঠে এসেছে।

জেলা ছাত্রলীগের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক মোস্তফা নওশাদ সারোয়ার বলেন, আগামী ২ জুন ছাত্রলীগের জেলা কমিটির সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। ইতোমধ্যে উপজেলার বেশ কিছু কাউন্সিল সম্পন্ন হয়েছে। আশা করছি আগামী কয়েকদিনের মধ্যে উপজেলার সব কাউন্সিল সম্পন্ন হবে। আগামী ২ জুন সম্মেলনের মাধ্যমে ভালো একটি নেতৃত্ব উপহার দেওয়ার আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

কারাতে ফেডারেশনের ব্ল্যাক বেল্ট প্রাপ্তদের সংবর্ধনা

বাংলাদেশ কারাতে ফেডারেশন হতে ২০২১ সালে ব্ল্যাক বেল্ট বিজয়ী রাঙামাটির কারাতে খেলোয়াড়দের সংবধর্না দিয়েছে রাঙামাটি …

Leave a Reply