নীড় পাতা » ফিচার » ক্যাম্পাস ঘুড়ি » ঘরে বসেই উপার্জনের কৌশল জেনে খুশি পাহাড়ের শিক্ষার্থীরা

ঘরে বসেই উপার্জনের কৌশল জেনে খুশি পাহাড়ের শিক্ষার্থীরা

khagrachari-pic--(2)ঘরে বসেই অর্থ উপর্জনের কলাকৌশল জেনেছে পাহাড়ের শিক্ষার্থীরা। কৌশলটি আর কিছুই নয়; তা হলো আউটসোর্সিং। তথ্য প্রযুক্তি বা অনলাইনের জামানায় খুবই নবীন পার্বত্য চট্টগ্রামের মানুষ। পাহাড়ে মোবাইল নেটওয়ার্কও এসেছে এই তো সেদিন। এমন প্রেক্ষাপটে দৈনিক কালেরকন্ঠ, বাংলাদেশ ইন্সটিটিউট অব ডিজাইন এন্ড ডেভেলপমেন্ট (বিআইডিডি) ও ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির উদ্যোগে সোমবার দুপুরে খাগড়াছড়ি সরকারী কলেজে আউটসোর্সিং বিষয়ক কর্মশালার আয়োজন করা হয়। কর্মশালায় অংশ নিতে পেরে এখানকার ছাত্রছাত্রীরা খুবই উৎফুল্ল, অনুপ্রাণিত।
তথ্য প্রযুক্তি সম্পর্কে এখনো স্পষ্ট ধারণা নেই পাহাড়ের মানুষের। অন্যদিকে অনলাইন ব্যবসা সম্পর্কে ধারণাও নতুন। বিশেষত: স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের মধ্যে অনলাইন ব্যবসা বা আউট সোর্সিং বিষয়ে জানার আগ্রহ থাকলেও সুযোগ ছিলনা। কিন্তু আউট সোসির্ং বিষয়ে কর্মশালা আয়োজনে ছাত্রছাত্রীর মাঝে ব্যাপক আগ্রহ ও আশার আলো জাগিয়েছে।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন খাগড়াছড়ির জেলা প্রশাসক মাসুদ করিম। খাগড়াছড়ি সরকারী কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আব্দুল লতিফের সভাপতিত্বে আরো বক্তব্য রাখেন বিআইডিডি‘র চেয়ারম্যান সুব্রত রাহা, কলেজের প্রভাষক রাশেদুল হক, কালেরকন্ঠের প্রতিনিধি ও খাগড়াছড়ি প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক আবু দাউদ, বিআইডিডি‘র ফ্যাকাল্টি রাশেদুজ্জামান খান ও আবু নাঈম।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসক মাসুদ করিম বলেছেন, আউটসোর্সিং হলো বাংলাদেশের একটি সম্ভাবনাময় আয়ের উৎস। এক্ষেত্রে তিনি দক্ষতা উন্নয়ন, ইংরেজি শিক্ষা এবং প্রযুক্তি বিদ্যার ওপর গুরুত্বারোপ করেছেন।
জেলা প্রশাসক মাসুদ করিম বলেন, তথ্যপ্রযুক্তিতে বিশ্ব এগিয়ে যাচ্ছে। এগিয়ে চলছে বাংলাদেশও। সারা দুনিয়ার মধ্যে আউট সোর্সিং এখন আলোচিত এবং জনপ্রিয় ব্যবসা। এই ব্যবসায় বাংলাদেশের এগিয়ে যাওয়ার বেশ সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। এরিই মধ্যে ফিলিপাইন ও ভারতের পরই বাংলাদেশের অবস্থান। আর শহরের দিক দিয়ে ঢাকা শহরই পৃথিবীর মধ্যে প্রথম; যে শহরের আউটসোর্সিং ব্যবসায়ীরা সবচেয়ে বেশি টাকা আয় করেন।
জেলা প্রশাসক বলেন, বর্তমান সরকার আউটসোর্সিং ব্যবসার ওপর বিশেষ গুরুত্ব দিয়েছে। তার অংশ হিসেবে কম্পিউটার ও অনলাইন জ্ঞান বৃদ্ধির জন্য কাজ চলছে। খাগড়াছড়িতেও তথ্যপ্রযুক্তি ইন্সটিটিউট স্থাপন করা হয়েছে। নামমাত্র টাকায় কম্পিউটার ও অনলাইন শিক্ষার সুযোগ তৈরী হয়েছে। তিনি প্রত্যেককেই এই সুযোগ গ্রহনের পরামর্শ দিয়েছেন।
এদিকে কর্মশালায মূলত: আউটসোর্সিং সম্পর্কে প্রাথমিক ধারণা দেয়া ছাড়াও একাউন্ট খোলা, কাজ পাওয়ার প্রক্রিয়া, কাজের ধরণ, আয়ের অর্থ উপার্জন এবং টাকা উত্তোলন করার বিস্তারিত ধারণা দেয়া হয়।
নির্ধারিত দুই‘শ ছাত্রছাত্রীর জন্য প্রস্তুতি থাকলেও ব্যাপক অংশগ্রহন ও অনুরোধের প্রেক্ষিতে প্রায় ৩শ ছাত্রছাত্রীকে নিয়ে কর্মশালা করতে হয়েছে। তারা এতটাই আগ্রহী ছিল যে, উপস্থিত সব ছাত্রছাত্রীকে কর্মশালার অংশগ্রহনকারী হিসেবে অন্তর্ভূক্তি ও রেজিষ্ট্রেশনের আওতায় আনা হয়। ভর দুপুরেও খুব মনোযোগ দিয়ে ‘আউটসোর্সিং’ ধারণাটি রপ্ত করার চেষ্টা করে তারা।
কর্মশালা শেষে কলেজের একাদশ শ্রেনীর ছাত্রী অশী চাকমা তার প্রতিক্রিয়ায় বলেছে, ‘খুবই অনুপ্রানিত এবং মুগ্ধ আমি। একদিন অবশ্যই আউটসোর্সিং এর মাধ্যমে আমি স্বনির্ভর হবো। ওয়ার্কসফে অংশ নিয়ে নতুন ধারণা পেয়ে প্রচন্ড আগ্রহ তৈরী হয়েছে। সফল হবার ব্যাপারে আমি আশাবাদী।’
দ্বাদশ শ্রেনীর ছাত্র আমিনুল ইসলাম হোস্টেলে থেকে পড়াশোনা করছে। তার ইচ্ছা হলো ‘অবসর সময়কে আর হেলায় নষ্ট করা হবেনা। পড়াশোনার পাশাপাশি আউটসোর্সিং ব্যবসার মাধ্যমে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করা। অনলাইনের জ্ঞান দিয়ে ভবিষ্যতে পারিবারিক অস্বচ্ছলতাকে জয় করাই এখন আগামীদিনের স্বপ্ন।’ একই কলেজের ছাত্রী উম্মে হাবিবা জানিয়েছে, অনেক কিছু জানা হলো। শেখা হলো। আরো জেনে আউটসোর্সিং করেই স্বনির্ভর হওয়া তার পরিকল্পনা। তাদের মত একাদশ শ্রেনীর মেমাচিং মারমা‘রও প্রত্যাশা সে ভবিষ্যতে আউটসোর্সিং করে সামনের দিকে এগিয়ে যাওয়া।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

গুজবের বিরুদ্ধে সতর্ক থাকার আহ্বান

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়ানো গুজবের বিরুদ্ধে সজাগ থাকার জন্য দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে। আজ রবিবার …

Leave a Reply