নীড় পাতা » খাগড়াছড়ি » গুইমারায় ‘খুনের’ পর লাশ নিয়ে গেছে দুর্বৃত্ত

গুইমারায় ‘খুনের’ পর লাশ নিয়ে গেছে দুর্বৃত্ত

খাগড়াছড়ির জেলার গুইমারা উপজেলার হাফছড়ি ইউনিয়নের কার্বারি পাড়ায় সোমবার গভীর রাতে জেন্দ্র ত্রিপুরা (৪৮) নামে এক ব্যক্তিকে গুলি করে হত্যা করে লাশটিও নিয়ে গেছে দুর্বৃত্তরা। দরজা ভেঙে ঘরে ঢুকে খুব কাছ থেকে হত্যা করা হয় তাকে। জেন্দ্র ত্রিপুরা (৪৮) সাবেক ইউপিডিএফ কর্মী বলে স্থানীয় বাসিন্দারা দাবি করলেও ইউপিডিএফ তা অস্বীকার করেছে।

স্থানীয় সাংবাদিকরা জেন্দ্র ত্রিপুরার ঘরে ঢুকে দেখেছেন, বর্তমানে ঘরের মেঝেতে ছাপ ছাপ তাজা রক্ত। দরজায় গুলির ঝাঝরা করা চিহ্ন। জেন্দ্র ত্রিপুরার স্ত্রী পলিন্দ্রি ত্রিপুরা জানান, গুলি করার পর লাঠি দিয়ে মাথায় আঘাত করা হয়। পরে রশি দিয়ে বেঁধে ঝুঁলিয়ে লাশটিও নিয়ে গেছে অস্ত্রধারীরা। অস্ত্রধারীরা মুখোশ পরিহিত হওয়ায় কাউকেই চিনতে পারেননি তিনি।

খবর পেয়ে মঙ্গলবার সকালে পুলিশ, নিরাপত্তাবাহিনী ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা ঘটনাস্থলে ছুটে যান। তবে আশপাশে খুঁজে লাশ পাওয়া যায়নি। এ বিষয়ে হাফছড়ি ইউনিয়ন পরিষদের ওয়ার্ড সদস্য অংগ্যজাই মারমা জানান, ‘ঘটনার পর রাতেই মোবাইলে বিষয়টি অবহিত করা হয়েছিল। সকালে এসে রক্ত দেখে দেখে প্রায় ২ কিলোমিটার এলাকা ঘুরে দেখা হয়। পরে রক্তের দাগ না পাওয়ায় আর লাশের সন্ধান মিলেনি।

স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, জেন্দ্র ত্রিপুরা ইউপিডিএফের সাবেক সদস্য। অস্ত্র আইনে জেন্দ্র ত্রিপুরার ৬ বছরের জেল হয়েছিল। জেল ফেরত ব্যক্তি আপন বড় ভাইয়ের মেয়েকে র্ধষণের অভিযোগে নারী শিশু আইনে ফের ১০ মাস জেল খাটেন। এরপর জামিনে এসে ওই সব মামলায় পলাতক আসামি ছিলো জেন্দ্র ত্রিপুরা।

ইউপিডিএফ এর স্থানীয় সংগঠক ক্যহ্লাচিং মারমা বলেছেন, ‘জেন্দ্র ত্রিপুরা খারাপ প্রকৃতির লোক ছিলেন। তার বিরুদ্ধে মামলা মোকাদ্দমাও রয়েছে। তবে এই ঘটনায় ইউপিডিএফ জড়িত নয়।’

গুইমারা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সফিকুল ইসলাম জানিয়েছেন, ‘আদৌ জেন্দ্র ত্রিপুরাকে খুন করা হয়েছে কিনা নিশ্চিত নই। তবে, এখন পর্যন্ত নিখোঁজ ব্যক্তির সন্ধান পাওয়া যায়নি। এ বিষয়ে কেউ মামলা করতেও আসেনি।’

অবশ্য সহকারী ‍পুলিশ সুপার (রামগড় সার্কেল) ফরহাদ মাজহার বলেন, ‘তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

Micro Web Technology

আরো দেখুন

নারীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় অবদান রাখবে কিশোরী ক্লাব

রাঙামাটির বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা (এনজিও) প্রোগ্রেসিভের বাস্তবায়নে ‘আমাদের জীবন, আমাদের স্বাস্থ্য, আমাদের ভবিষ্যৎ’ এই প্রকল্পের …

Leave a Reply