নীড় পাতা » ব্রেকিং » গরুশূণ্য বাজারে ক্রেতাদের হাপিত্যেস

গরুশূণ্য বাজারে ক্রেতাদের হাপিত্যেস

goru-bajarপবিত্র কোরবানীর ঈদের বাকি আর মাত্র একদিন। এর মধ্যেই গরুশুণ্য হয়ে পড়েছে রাঙামাটির একমাত্র বাজারটি। শনিবার সকাল থেকেই অনেকটা গরু শুণ্য দেখা দেয় পৌরটার্মিনালের বাজারটিতে। হাতেগোনা যে কয়টি গরু বাজারে রয়েছে, সেসব গরুর দাম হাঁকা হচ্ছে দ্বিগুন, তিনগুনের বেশি।
ফলে কোরবানীর শেষ সময়ে এসে গরু-ছাগল কিনতে গিয়ে অনেকটা হতাশ হয়েই বাড়ি ফিরছে ক্রেতারা। ক্রেতার চাহিদানুযায়ী বাজারে গরু না থাকার পেছনে জেলার বাইরে গরু নিয়ে যাওয়াকেই দুষছেন ক্রেতারা। আবার কারো কারো মতে সিন্ডিকেটের দখলে বাজার। তাই এ অবস্থা।
সকালে গরু কিনতে এসে ইঞ্জিনিয়ার কাইছার মিয়া জানান, গরু কেনার জন্য যে বাজেট করেছি,তার দ্বিগুন দাম চাচ্ছে ক্রেতারা। পছন্দসই গরু কিনতে বাজেট আরো দ্বিগুন বাড়াতে হবে। তাই এদিক সেদিক না ভেবেই যা পেয়েছি তাই নিয়ে নিয়েছি। তবে দাম একটু বেশি হয়েছে বলে দাবি তার।
ব্যবসায়ী ওবায়দুল হক ও আকরাম সওদাগর জানান, রাঙামাটির গরু অবাধে জেলার বাইরে নিয়ে যাওয়ায় এখানে গরুর সংকট দেখা দিয়েছে। প্রশাসনের উচিত হয়নি এতগুলো গরু জেলার বাইরে যেতে দেয়া। বাধ্য হয়ে লোকজনকে বেশি দামে গরু কিনতে হচ্ছে।
এদিকে লংগদু থেকে আসা গরু ব্যাপারী লেদু জানান, শুক্রবার ১৯টি গরু নিয়ে এসেছিলাম। সব কয়টি বিক্রি হয়ে গেছে। আজকে আরো ৭টি আনা হচ্ছে। দামও বেশ ভালো পাচ্ছেন বলে জানান তিনি।
একই উপজেলার চাইল্যাতলীর গরু ব্যাপারী সোলায়মান সওদাগর জানান, বৃহস্পতিবার ২১টি গরু পাঠিয়েছি রাঙামাটির বাজারে। বৃহস্পতিবার আরো ১০টি গরু পাঠিয়েছি। মোটামুটি সব কয়টি গরু বিক্রি হয়ে গেছে। দামেও সে ভালো পেয়েছে বলে জানান।
এদিকে রাঙামাটি চেম্বার অব কমার্সের পরিচালক মোঃ মনসুর আলী জানান, কোরবানীর বাজার শুরু হওয়ার পর ট্রাকে ট্রাকে গরু রাঙামাটির বাইরে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এতে প্রশাসন কোনো প্রকার বাধা দেয়নি। তাদের নীরবতায় এবং গরু ব্যবসায়ী সিন্ডিকেটের কারণেই এ সংকট দেখা দিয়েছে।
শনিবার শেষ বিকেলে দেখা গেছে গরুর খোঁজে হণ্য হয়ে ঘুরছেন ক্রেতারা। বাজারে পছন্দই দামে গরু না পাওয়ায় অনেকেই গৃহপালিত গরুর জন্য শহরতলির বিভিন্ন এলাকা চষে বেড়াচ্ছেন। গরু নিয়ে সৃষ্ট বিড়ম্ভনায় হতাশ ও ক্ষুদ্ধ রাঙামাটিবাসি।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

বিবর্ণ পাহাড়ের রঙিন সাংগ্রাই

নভেল করোনাভাইরাসের আগের বছরগুলোতে এই সময় উৎসবে রঙিন থাকতো পাহাড়ি তিন জেলা। এই দিন পাহাড়ে …

Leave a Reply