নীড় পাতা » খাগড়াছড়ি » খাগড়াছড়ির ৭ থানায় ইউপিডিএফ’র বিরুদ্ধে ১৬ মামলা,আসামী পাঁচ শতাধিক

খাগড়াছড়ির ৭ থানায় ইউপিডিএফ’র বিরুদ্ধে ১৬ মামলা,আসামী পাঁচ শতাধিক

updf-flagগত সোমবার খাগড়াছড়ির ঐতিহাসিক স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত প্রধানমন্ত্রীর জনসভায় আসতে সাধারন মানুষ ও আওয়ামীলীগ দলীয় নেতাকর্মীদের ইউপিডিএফ কর্তৃক বাধা প্রদান, গাড়ীতে অগ্নিসংযোগ, গুলি বর্ষন, ককটেল বিষ্ফোরন, সেতুর পাটাতন উপড়ে ফেলা, হুমকি, ভাংচুর ও রাষ্ট্রীয় কাজে বাধা দেয়ার ঘটনায় জেলার ৭টি থানায় ১৬টি মামলা দায়ের করেছে পুলিশ ও ক্ষতিগ্রস্থরা। মামলাগুলোতে ইউপিডিএফের জেলা উপজেলা পর্যায়ের নেতাকর্মীদের নামসহ অজ্ঞাত ৫ শতাধিক ব্যক্তিকে আসামী করা হয়েছে।
এর মধ্যে সদর থানায় ৫টি, মহালছড়ি থানায় ১টি, দীঘিনালা থানায় ৪টি, মাটিরাঙ্গায় ১টি,  গুইমারায় ২টি, পানছড়ি থানায় ২টি মামলা রুজু হয়েছে। লক্ষ্মীছড়ি উপজেলায় একটি মামলা রুজু হবার প্রক্রিয়া চলছে বলে জানা গেছে। এদিকে আসামীদের গ্রেফতারের জন্য জোর প্রচেষ্টা চলছে বলে জানা গেছে।
খাগড়াছড়ি সদর থানার অফিসার ইনচার্জ মিজানুর রহমান জানান, প্রধানমন্ত্রীর সমাবেশের দিন গাছ কেটে রাস্তা অবরোধ, হুমকি, বাধা প্রদান, ব্রীজের পাটাতন উপড়ে ফেলাসহ বিভিন্ন অভিযোগে ইউপিডিএফ নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে বুধবার সদর থানায় পুলিশ বাদী হয়ে ৫টি মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলাগুলোতে সংগঠনটির ৫০ থেকে ৬০ জনের নাম উল্লেখ করে ১৫০/২০০ জনকে অজ্ঞাত দেখানো হয়েছে।
মহালছড়ি থানার অফিসার ইনচার্জ সেমায়ুন কবির জানান, ইউপিডিফের ১০ থেকে ১৫ জন নেতাকর্মীর নাম উল্লেখ করে আরো ১০০/১৫০ জনকে অজ্ঞাত দেখিয়ে মামলা দায়ের করা হয়েছে।
দীঘিনালা থানার অফিসার ইনচার্জ শাহাদাৎ হোসেন টিটু জানান, প্রধানমন্ত্রীর জনসভায় না আসতে ভয়ভীতি প্রদর্শন, হামলা, সরকারী কাজে বাধাদানের অভিযোগ এনে ৪টি মামলা দায়ের করেছে। মামলায় উপজেলা ইউপিডিএফের প্রায় ৩০ জন নেতাকর্মীর নাম উল্লেখ করে আরো ৪০/৫০ জনকে অজ্ঞাত দেখানো হয়েছে।
গুইমারা থানার অফিসার ইনচার্জ আবু ইউছুফ চৌধূরী জানান, সড়ক অবরোধ, জনসভায় যেতে বাধা দেয়ার অভিযোগে গুইমারা থানায় ২টি মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলায় এজাহারভুক্ত ৬জনের নাম উল্লেখজ করে ১৫/২০ জনকে অজ্ঞাত দেখানো হয়েছে।
এছাড়া মাটিরাঙ্গা থানাতেও ১টি মামলা দায়ের করা হয়েছে। অন্যদিকে গুইমারা থানায় ১টি মামলা দায়ের করার প্রস্তুতি চলছে।
খাগড়াছড়ির সহকারী পুলিশ সুপার(রামগড় সার্কেল) মোঃ শাহজান হোসেন জানিয়েছেন, সুর্নিদিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতেই মামলা রুজু করা হয়েছে। সরকার প্রধানের কর্মসূচীতে বাধা প্রদানকারীদের বিরুদ্ধে আইনী পদক্ষেপ গ্রহনে প্রশাসন কোন প্রকার শৈথিল্য দেখাবেনা। অপরাধীদের গ্রেফতারের চেষ্টাও চলছে।

উল্লেখ্য, গত সোমবার ইউপিডিএফ সমর্থিত পিসিপি পূর্ব নির্ধারিত কেন্দ্রীয় সম্মেলন করার জেলা প্রশাসন অনুমতি না দেওয়ার প্রতিবাদে সোমবার খাগড়াছড়ি জেলায় সকাল-সন্ধ্যা সড়ক অবরোধ কর্মসূচি দেয়। এর অংশ হিসেবে জেলার অভ্যন্তরে বিভিন্ন সড়কে গাছ কেটে ও বেইলী ব্রীজের পাতান খুলে সড়ক যোগাযোগে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে। সকালে পানছড়ি উপজেলার নালকাটা এলাকায় পুলিশের টহলরত একটি চাঁদের গাড়ি (গাড়ি নম্বর ঢাকা ড-২৯২৯) অবরোধকারীরা পুড়িয়ে দেয়। এছাড়াও পানছড়ি, দীঘিনালা ও মহালছড়ি উপজেলা থেকে সমাবেশে যোগদিতে আসা লোকজনের ওপর হামলার অভিযোগ পাওয়া গেছে। মহালছড়ি উপজেলা আওয়ামীলীগে সাধারণ সম্পাদক রতন শীল অভিযোগ করেন, তারা মহালছড়ি থেকে আসার পথে চারবার হামলার শিকার হয়েছিলেন।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে পুুলিশ সদস্য গ্রেফতার

খাগড়াছড়ির দীঘিনালায় শিশু ধর্ষণের অভিযোগে পুলিশের এক সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার সন্ধায়। …

Leave a Reply