নীড় পাতা » পাহাড়ের সংবাদ » কড়া পিকেটিংয়ে রাঙামাটিবাসির নাভিঃশ্বাস

কড়া পিকেটিংয়ে রাঙামাটিবাসির নাভিঃশ্বাস

shahalamবিরোধীজোটের ডাকা ৬০ ঘন্টা হরতালের দ্বিতীয় দিনও শান্তিপূর্ণভাবে পালিত হয়েছে পার্বত্য শহর রাঙামাটিতে। মঙ্গলবার সকাল থেকেই শহরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে অবস্থান নেন জোটের প্রধান দল বিএনপি ও সহযোগি সংগঠনের নেতাকর্মীরা। কড়া পিকেটিংয়ের কারণে গত দুইদিন ধরেই কার্যত অচল এবং স্থবির হয়ে পড়েছে পর্যটন শহর রাঙামাটি। অন্যান্য সময় হরতালে হাতেগোণা কিছু মোটরসাইকেল বা প্রয়োজনীয় গাড়ী চলাচল করলেও এবারের হরতালের চিত্র একেবারেই ভিন্ন। হরতালে বিরোধীজোটের পিকেটারদের ব্যাপক উপস্থিতি,সারাদেশে হরতালের সহিংসতার সংবাদ গণমাধ্যমে প্রচার এবং কড়া পিকেটিংয়ের কারণে একান্তই জরুরি প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বেরুচ্ছেনা মানুষ। তবে অফিস আর স্কুলগামী মানুষেরা পড়েছে বিপাকে। দীর্ঘপথ পাড়ি দিয়ে যেতে হচ্ছে কর্মস্থল কিংবা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে।rzb

যোগাযোগ ব্যবস্থা পুরো অকার্যকর হয়ে পড়ায় জেলার দশটি উপজেলার মানুষই হরতালের বিড়ম্বনার শিকারে পরিণত হয়েছে। লঞ্চ চলাচল বন্ধ থাকায় উপজেলাগুলো থেকে অনেকে ছোট ইজ্ঞিনচালিত ট্রলার ভাড়া করে শহরে আসলেও পায়ে হেঁটে দীর্ঘপথ পাড়ি দিয়ে যেতে হচ্ছে গন্তব্যে। এনিয়ে বিরক্তি এবং ক্ষোভ প্রকাশ করতে দেখা গেছে অনেককে।

এদিকে হরতালের দ্বিতীয় দিনেও শহরের প্রবেশমুখ মানিকছড়িতে সড়কের উপর অবস্থান নিয়ে পিকেটিংয়ে নেতৃত্ব দেন জেলা ছাত্রদলের সাধারন সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম তালুকদার । তার সাথে ছিলেন ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি ইসলাম সওদাগর,সম্পাদক রেজাউল করিম,জেলা ছাত্রদলের সহসাধারন সম্পাদক আলমগীর হোসেন,সগির,নুরুমোহাম্মদসহ বিএনপি,যুবদল ও ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা।

শহরের বনরূপা এলাকায় জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট সাইফুল ইসলাম পনিরের নেতৃত্বে পিকেটিংয়ে ছিলেন যুবদলের কেন্দ্রীয় সদস্য জীবক চাকমা,ছাত্রদলের সহসভাপতি সাইফুল ইসলাম,নাজিউদ্দিন,যুগ্ম সম্পাদক কামাল হোসেন,যুবদল নেতা আব্দুর রহিম,কলেজ ছাত্রদলের অলি আহাদ,সদর থানা ছাত্রদলের রাজু সহ বিভিন্ন অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের নেতাকর্মীরা।panir

পৌর এলাকায় জেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক মোঃ শাহ আলমের নেতৃত্বে পিকেটিং করেন জেলা বিএনপির সহসভাপতি ও বিলাইছড়ি উপজেলা বিএনপির সভাপতি রবীন্দ্র লাল চাকমা,যুগ্ম সম্পাদক আলী বাবর,আবু বক্কর,রিংকু বড়–য়া,আব্দুল কুদ্দুছ,ফয়েজুল আজিম,ছাত্রদলের সাব্বির আহম্মেদসহ সহযোগি সংগঠনের নেতাকর্মীরা।
তবলছড়ি এলাকায় পিকেটিং-এ নেতৃত্ব দেন পৌর মেয়র সাইফুল ইসলাম ভূট্টো,সদর থানা বিএনপির সভাপতি এডভোকেট মামুনুর রশীদ,জেলা যুবদলের সভাপতি সাইফুল ইসলাম শাকিল,জেলা ছাত্রদলের সভাপতি আবু সাদাত মোঃ সায়েম,সহসভাপতি আব্দুল মামুন,যুবদলের নুরন্নবীসহ নেতাকর্মীরা।

রিজার্ভবাজারে পিকেটিংএ নেতৃত্ব দেন জেলা বিএনপির আব্দুল মান্নান,ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি মাসুম,ছাত্রদলের জসীম,মৎসজীবি দলের বাঁচা মিয়াসহ দলের বিভিন্ন স্তরের নেতাকর্মীরা।

এদিকে প্রথম দিনের হরতালের পর বিকেলে রাস্তায় কোন পিকেটার না থাকলেও শহরের রাস্তায় ছিলোনা কোনো গাড়ী। এমনকি ব্যক্তিগত মোটরসাইকেলের চলাচলও ছিলো যৎসামান্য। কড়া পিকেটিং আর দেশব্যাপী আতংকের কারণেই লোকজন বের হচ্ছেনা বলেই জানা গেলো একাধিক ব্যক্তির সাথে কথা বলে।

রাঙামাটি জেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক মোঃ শাহ আলম এই প্রসঙ্গে বলেন,বিকেলে আমরা শহরে পিকেটিং করিনা,শহরবাসীর স্বার্থের কথা চিন্তা করেই। কিন্তু প্রকাশ্যে হরতাল শিথিলের ঘোষণাও দেয়া আমাদের পক্ষে সম্ভব নয়।jahangir

Micro Web Technology

আরো দেখুন

লংগদুতে ১০ কোটি টাকার উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন

খাদ্য মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও রাঙামাটির সংসদ সদস্য দীপংকর তালুকদার  রাঙামাটির লংগদু …

Leave a Reply