নীড় পাতা » খেলার মাঠ » কার হাতে উঠছে শিরোপা ?

কার হাতে উঠছে শিরোপা ?

cricekt-11নিয়মিত ক্রিকেট লীগ হচ্ছেনা,বয়সভিত্তিক ক্রিকেট কিংবা কোন প্রতিযোগিতা আয়োজনতো প্রশ্নই উঠেনা,ফুটবলারদের হাতেই ছিলো ক্রিকেটের গুরুভার,মাঠে ক্রিকেট না থাকায় অভিমানে ক্রিকেট ছেড়েছেন জেলা বেশ কিছু নামকরা তরুন ক্রিকেটার,এমনি এক অবস্থায় রাঙামাটি রিজিয়নের পৃষ্ঠপোষকতা ‘অপর্যাপ্ত বাজেট’ নিয়ে শুরু হয়েছিলো মৌসুমের প্রথম ক্রিকেট টুর্নামেন্ট ‘বিজয় দিবস টি-২০ ক্রিকেট’। প্রথা ভেঙ্গে মৌসুমের প্রথম এই প্রতিযোগিতাটির শেষও হবে আজ। নকআউট পদ্ধতির এই প্রতিযোগিতায় আজ রোববার মুখোমুখি হবে শহরের নামকরা ক্রিকেট ক্লাব প্রতিভা আর পেশাদার ক্রিকেটারদের নিয়ে গড়া সৌখিন দল রাঙামাটি ক্রিকেট লিজেন্ড (আরসিএল)। নিজেদের প্রতিটি ম্যাচেই প্রতিপক্ষকে গুড়িয়ে দিয়েই যোগ্য দল হিসেবেই ফাইনালে এসেছে দুটি দল।

রোববার দুপুর বারোটায় রাঙামাটির চিংহ্লা মং চৌধুরী মারি স্টেডিয়ামে শুরু হবে হাইপ্রোফাইল এই ফাইনাল ম্যাচটি। এই ম্যাচকে ঘিরে শহরের তরুন ক্রিকেটার ও ক্রীড়া সংগঠকের মধ্যে শুরু হয়েছে তীব্র বাকযুদ্ধ,সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চলছে পাল্টাপাল্টি চ্যালেঞ্জ। প্রতিভাবে ক্লাবের আবু তৈয়ব ইতোমধ্যে ফাইনালে বিজয়ী হতে খেলোয়াড়দের জন্য ঘোষণা করেছেন বিশেষ প্রণোদনা। এর মধ্যে রয়েছে প্রতিটি ছক্কার জন্য ১০০ টাকা,৫০ রান করলে ১৫০০ টাকা,৩০ রান করলে ৫০০ টাকা,৪ উইকেট পেলে ১৫০০ টাকা এবং প্রতিভা ক্লাবের বার্ষিক পিকনিকে ভিআইপি মর্যাদা। এছাড়াও সেমিফাইনালে বিজয়ী হওয়ায় দলের খেলোয়াড়দের জন্য বিশেষ পার্টিও দিয়েছে ক্লাবটি। নিজেদের দলের বিজয়ের ব্যাপারে আত্মবিশ্বাস তুঙ্গে বলে জানিয়েছেন ক্লাবের ম্যানেজার নাসের খান ও ক্লাব সভাপতি আবু তৈয়ব।

এদিকে রাঙামাটি জেলা দলের সাবেক দুই কৃতি ক্রিকেটার নাছিরউদ্দিন সোহেল ও সাইফুল আলম রাশেদের যৌথ উদ্যোগের টীম ‘রাঙামাটি ক্রিকেট লিজেন্ড’ দলটি মূলত: শহরের অভিজাত দুই ক্লাব অভিলাষ ও রফিক স্মৃতির তারকা ক্রিকেটার নিয়ে গড়া। নিজেদের তিনটি ম্যাচেই প্রতিপক্ষকে বিশাল ব্যবধানে পরাজিত করে শিরোপার প্রধান দাবিদারে পরিণত করেছে দলটি। দলের দুই কর্ণধারও জানালেন শিরোপা জয়ের ব্যাপারে শতভাগ আত্মবিশ্বাসী তারা ও তাদের দল।

ম্যাচের ভাগ্য বদলাবেন যারা

মজার ব্যাপার হলো,রোববার অনুষ্ঠিত ফাইনালে অংশ নেয়া দুটি দলের খেলোয়াড়দের বেশিরভাগই রাঙামাটি জেলা ক্রিকেট দলের খেলোয়াড়। ফলে পরস্পরের ‘যোগ্যতা’ ও ‘সামর্থ্য’ সম্পর্কে ওয়াকিবহাল সবাই। রয়েছে পারস্পরিক শ্রদ্ধাবোধও। তারপরও দুই দলের খেলোয়াড়রদের মধ্যে যাদের দিকে নজর থাকবে সবার তাদের মধ্যে আরসিএল এর দুই বাঁ হাতি স্পিনার রাজীব ও লেমন এবং অলরাউন্ডার লেথাম অন্যতম। এই তিনজনের যেকোন একজনই বদলে দিতে পারেন ম্যাচের ভাগ্য। ঈর্ষনীয় বোলিং বিভাগ নিয়েই রোববার মাঠে নামবে আরসিএল,আর বর্তমানে জেলার সেরা দুই স্পিনার হিসেবে স্বীকৃতি রাজীব ও লেমন’র দিতে তাকিয়ে আছে দলের কর্ণধাররাও।

অন্যদিকে ছেড়ে কথা বলবেনা প্রতিভাও। প্রতিভা’র পেসার ও টপঅর্ডার ব্যাটসম্যান জুয়েল,অফস্পিনার ও ওপেনিং ব্যাটসম্যান তারেক,মিডলঅর্ডারে হামিদ কিংবা রুবেল যেকেউ ঘুরিয়ে দিতে পারে ম্যাচের চিত্র।

সবমিলিয়ে জমজমাট একটি ফাইনালের প্রত্যাশা করছেন সকলেই। রোববার দুপুরের ম্যাচ দেখতে সাবেক ও বর্তমান ক্রিকেটারদের একটি বড় অংশও মাঠে যাবেন রোববার ম্যাচশেষে কার হাতে উঠে মৌসুমের প্রথম শিরোপা তার সাক্ষী হতে।

প্রসঙ্গত, এই প্রতিযোগিতার মিডিয়া পার্টনার পাহাড়ের সবার্ধিক পঠিত জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল পাহাড়টোয়েন্টিফোর ডট কম। এই প্রথম পার্বত্য চট্টগ্রামে কোন অনলাইন দৈনিক ক্রিকেট প্রতিযোগিতার মিডিয়া পার্টনার হিসেবে নিজেদের সম্পৃক্ত করে ইতিহাস গড়লো। শুরু থেকেই প্রতিদিন প্রতিটি ম্যাচের বিস্তারিত তথ্য ও ম্যাচ বিশ্লেষন পাঠকদের সামনে তুলে ধরে নিজেদের সামর্থ্যরে কথাও ক্রীড়ামুদে পাঠকদের জানিয়ে দিয়েছে অনলাইনটি।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

কাপ্তাইয়ে করোনা সংক্রমণ কমছে

প্রশাসনের কঠোর নজরদারি এবং থানা পুলিশের তৎপরতায় রাঙামাটির কাপ্তাইয়ে করোনা সংক্রমন হার কমছে। কাপ্তাই উপজেলা …

Leave a Reply