নীড় পাতা » খাগড়াছড়ি » কাটিংটিলা-চৌংড়াছড়ি সড়কের বেহাল দশা

৪ গ্রামের মানুষের ভোগান্তি

কাটিংটিলা-চৌংড়াছড়ি সড়কের বেহাল দশা

খাগড়াছড়ির মহালছড়ি উপজেলার কাটিংটিলা হতে চৌংড়াছড়ি গুচ্ছগ্রামের রাস্তার দীর্ঘদিন যাবত বেহাল দশা। দীর্ঘদিন রাস্তাটি সংস্কার না হওয়ায় বর্ষার মৌসুমে বৃষ্টির পানিতে বড় বড় গর্ত সৃষ্টি হয়েছে। ফলে যানবাহন চলাচলে অনুপযোগী হওয়ায় যাতায়াতে ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে জনবহুল ৪ গ্রামের মানুষের।

সোমবার সরেজমিন গিয়ে জানা গেছে, রাস্তাটি খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদের অর্থায়নে সংস্কার হয়েছিলো ২০১৯-২০ অর্থবছরে। রাস্তাটি দু’পাশ থেকে মাটি কেটে সমান করার পর আর কোন কাজই করা হয়নি। তৈরি করা হয়নি রাস্তার দু’পাশে বৃষ্টির পানি নিষ্কাশনের জন্য ড্রেন। যার কারণে বর্ষা মৌসুমে বৃষ্টির পানিতে রাস্তায় বড় বড় গর্ত সৃষ্টি হয়েছে; আবার কোন কোন জায়গায় রাস্তার দু’পাশ থেকে মাটি ভেঙে পড়ে গিয়ে চলাচল অযোগ্য হয়ে পড়েছে। একমাত্র মোটরবাইক ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করতে দেখা গেছে। এ রাস্তাটি সংষ্কারের অভাবে দিন দিন ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে।

স্থানীয় মোটরবাইক চালক খোরশেদ আলম জানান, দীর্ঘদিন যাবৎ রাস্তাটি বেহাল অবস্থায় পড়ে আছে। অত্যন্ত ঝুঁকি নিয়ে এ রাস্তা দিয়ে চলাচল করতে হচ্ছে। এছাড়া গ্রামের কেউ গুরুতর অসুস্থ হলে দ্রুত উপজেলা সদর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া অসম্ভব হয়ে পড়ে। বিশেষ করে গ্রামের গর্ভবতী মেয়েদের প্রসবকালীন সময়ে কঠিন সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। এ রাস্তাটির দ্রুত সংস্কার প্রয়োজন।

এ রাস্তা দিয়ে নিয়মিত যাতায়াত করেন স্থানীয় কৃষক আবুল কাশেম। তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, মেরামত না করার আগে তো রাস্তাটি ভালো আছিলো, তখন ইচ্ছেমতো চাঁন্দের গাড়ি দিয়া যাওন যাইতো। সংস্কারের কথা কইয়া রাস্তাডারে নষ্ট কইরা দিছে। দেশের সব জায়গায় রাস্তা সুন্দর অয়, আমাগো গ্রামের রাস্তাডা সুন্দর হয়না ক্যান? এ রাস্তাটি মেরামত না হওয়ায় কৃষকের উৎপাদিত ফসল বাজারজাতকরণে ব্যাপক সমস্যার কথা জানান তিনি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদের নিবার্হী প্রকৌশলী তৃপ্তিকর চাকমা জানান, কাটিংটিলা থেকে চৌংড়াছড়ি গুচ্ছগ্রাম পর্যন্ত রাস্তা মেরামত প্রকল্প বরাদ্দ হয়েছিলো জানি। তবে আমি দায়িত্বে আসার আগেই প্রকল্পটির কাজ শেষ হয়েছে।

রাস্তাটির মেরামতে কত টাকা বরাদ্দ হয়েছিলো জানতে চাইলে তিনি বলেন, সেটা এই মুহুর্তে জানা নেই। রাস্তাটির দু’পাশে ড্রেন করে দেওয়ার প্রয়োজনের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ড্রেন না থাকায় রাস্তাটির এ অবস্থা হয়েছে। হয়তো বরাদ্দের টাকা সংকুলান না হওয়ায় ড্রেন করা সম্ভব হয়নি। কেন এমন হলো, তা তিনি খোঁজ নিয়ে দেখবেন বলে জানিয়েছেন।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

কারাতে ফেডারেশনের ব্ল্যাক বেল্ট প্রাপ্তদের সংবর্ধনা

বাংলাদেশ কারাতে ফেডারেশন হতে ২০২১ সালে ব্ল্যাক বেল্ট বিজয়ী রাঙামাটির কারাতে খেলোয়াড়দের সংবধর্না দিয়েছে রাঙামাটি …

Leave a Reply