কলংক পিছু ছাড়ছেনা রাঙামাটি ছাত্রলীগের

DSC_0292কলংক যেনো পিছু ছাড়ছে না রাঙামাটি জেলা ছাত্রলীগের। এর আগের সম্মেলনের ধারাবাহিকতায় এবারও রাঙামাটি জেলা ছাত্রলীগের সম্মেলনের পর কাউন্সিল না করেই রাঙামাটি ছেড়েছেন ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নেতারা। যাবার আগে জানিয়ে গিয়েছেন, বুধবার সকালে ঢাকা থেকেই ফ্যাক্সে পাঠানো হবে কমিটি। সম্মেলনের প্রথম অধিবেশন শেষে স্থানীয় নেতাদের সাথে পরামর্শ করে রাঙামাটি ছাড়েন কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতারা।

পুরো জেলার সব উপজেলা ও ইউনিট কমিটির সম্মেলন তাড়াহুড়োয় শেষ করে এবং কাউন্সিলরদের রাঙামাটি এনে জেলা সম্মেলন অনুষ্ঠিত হলেও শেষাবধি কাউন্সিল না হওয়ায় হতাশ এবং ক্ষুদ্ধ ছাত্রলীগের প্রান্তিক কর্মীরা।

এর আগেও সর্বশেষ সম্মেলনে রোকন-সাইদুল কমিটি করার সময়ও একই প্রক্রিয়ায় রাঙামাটি ছেড়ে গিয়ে ঢাকা থেকেই ঘোষিত হয় কমিটি। সেই কমিটি ঘোষণা নিয়ে নানা জলঘোলা করার পরও পরিস্থিতির পরিবর্তন হয়নি চারবছর পরও। এবারও ঢাকা থেকেই কমিটি  ঘোষণা হবে, এমন সিদ্ধান্ত জানিয়ে রাঙামাটি ছেড়েছেন দেশের অন্যতম বৃহৎ ছাত্র সংগঠনটির কেন্দ্রীয় নেতারা।

একদিন আগে খাগড়াছড়ি জেলা সম্মেলনে অনুষ্ঠিত কাউন্সিলে ভোটাভুটির মাধ্যমে নেতৃত্ব নির্বাচন নির্বাচন করায় রাঙামাটির নেতাকর্মীদেরও প্রত্যাশা ছিলো কাউন্সিলেই হচ্ছে পরবর্তী নেতৃত্ব। কিন্তু কেন্দ্রীয় নেতাদের সিদ্ধান্তে হতাশ,ক্ষুদ্ধ,বেদনাহত ছাত্রলীগের তৃণমূল নেতাকর্মীরা।

তবে সাধারন নেতাকর্মীরা এইসব কারণে দুষছেন জেলা ছাত্রলীগের সাবেক এক সভাপতিকে,যিনি বর্তমানে আওয়ামীলীগের একটি সহযোগি সংগঠনের নেতৃত্বে রয়েছেন। তাদের অভিযোগ,তিনি ও তার ঘনিষ্ঠরা ভুল তথ্য দিয়ে ও ব্যক্তিগত সম্পর্কের সূত্র ধরে বিভ্রান্ত করেছেন কেন্দ্রীয় নেতাদের। আওয়ামীলীগের সহযোগি সেই সংগঠনের শীর্ষ নেতার বিরুদ্ধে ইতোপূর্বে রাঙামাটি কলেজ কমিটি গঠনকালেও প্রভাব খাটানো এবং বিতর্কিত ভূমিকা রাখার অভিযোগ উঠেছিলো। ধারণা করা হচ্ছে,এই নেতার নির্ধারিত প্রার্থীই বুধবার হতে যাচ্ছেন রাঙামাটি জেলা ছাত্রলীগের পরবর্তী সভাপতি।

এদিকে ছাত্রলীগের বিভিন্নস্তরের নেতাকর্মীদের সাথে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় কথা বলে দেখা গেছে,তারা সবাই ক্ষুদ্ধ প্রতিক্রিয়া জানাচ্ছেন। তাদের অভিযোগ,একজন ব্যক্তি ও তার ইচ্ছার কাছে জিম্মি হয়ে পড়ছে ছাত্রলীগ। তিনি ও তার বিতর্কিত সহচররাই ছাত্রলীগের ভবিষ্যতকে কলংকিত করছেন,এমন অভিযোগ তাদের।

নানা ঢাকঢোল পিটিয়ে সম্মেলন আয়োজন করেও কাউন্সিল না করা,অতীতের মতো আবারো ঢাকা থেকে কমিটি ঘোষণার সিদ্ধান্তে রাঙামাটির ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে তীব্র হতাশা তৈরি হয়েছে বলে দাবি করেছেন এই নির্বাচনে সভাপতি ও সম্পাদক পদে প্রার্থী হওয়া বেশ কয়েকজন ছাত্রলীগ নেতা। তারা বলেন,ঢাকার ফ্যাক্সের উপরই নির্ভর করছে,কারা রাঙামাটিতে ছাত্রলীগ করবেন আর কারা করবেন না। এটা অত্যন্ত লজ্জার ও হতাশার।

রাঙামাটি জেলা ছাত্রলীগের বিদায়ী সভাপতি শাহ এমরান রোকন বলেন, আমরা কাউন্সিলের জন্য প্রস্তুত ছিলাম। কেন্দ্রীয় নেতারা ঢাকা থেকে কমিটি ঘোষণার সিদ্ধান্ত দেয়ায় আর কাউন্সিল হয়নি। তবে আমরা আশা করি,ওনারা নিশ্চয়ই দলের জন্য যেটা ভালো এবং সর্বজনগ্রাহ্য হবে এমন সিদ্ধান্তই নিবেন।

এদিকে কাউন্সিল না হওয়ায় সভাপতি ও সম্পাদক পদপ্রার্থীরা এখন নিজেদের নিয়তিকে অনেকটা ভাগ্যের উপরই ছেড়ে দিয়েছেন।  তারা প্রতীক্ষা করছেন,বুধবার সকালের সম্ভাব্য সেই কাংখিত ফ্যাক্সের, যেখানে নির্ধারিত হবে তাদের নিয়তি।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

কারাতে ফেডারেশনের ব্ল্যাক বেল্ট প্রাপ্তদের সংবর্ধনা

বাংলাদেশ কারাতে ফেডারেশন হতে ২০২১ সালে ব্ল্যাক বেল্ট বিজয়ী রাঙামাটির কারাতে খেলোয়াড়দের সংবধর্না দিয়েছে রাঙামাটি …

One comment

Leave a Reply

%d bloggers like this: