নীড় পাতা » ব্রেকিং » কমবে অপরাধচিত্র, জনজীবন হবে আরও স্বস্তির

রাঙামাটি শহরে বসছে সিসি ক্যামেরা

কমবে অপরাধচিত্র, জনজীবন হবে আরও স্বস্তির

ফাইল ছবি

রাঙামাটি জেলা প্রশাসক একেএম মামুনুর রশিদ দায়িত্ব নেয়ার পর থেকেই জেলার উন্নয়নে বেশ কিছু ব্যতিক্রমী উদ্যোগ নিয়েছেন। তাঁর এমন সৃজনশীল উদ্যোগের কারণে জেলাবাসীর পাশাপাশি অসহায় অনেক মানুষও উপকৃত হয়েছেন। সম্প্রতি তিনি ঘোষণা করেছেন রাঙামাটি শহরকে ক্লোজড সার্কিট (সিসি) ক্যামেরার আওতায় আনা হবে। জেলা প্রশাসকের এমন ঘোষনায় আরও এককবার শান্তি ও স্বস্তির নিঃশ্বাস নিলো জেলাবাসী।

বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড প্রতিরোধে একইসঙ্গে বেপরোয়া গাড়ির গতিরোধেও এ উদ্যোগ গুরুত্বপুর্ণ ভূমিকা রাখবে নিঃসন্দেহে। রাঙামাটি শহরে যানবাহনের বেপরোয়া গতি, দ্রুত গতিতে মোটর-সাইকেল চালানোর কারণে প্রায়ই ঘটছে দুর্ঘটনা। এসব ঘটনায় স্বাক্ষী প্রমাণের অভাবে অপরাধীরাও পার পেয়ে যায়। পর্যটন শহর হওয়াতে বছরের পুরোটা সময় দেশি-বিদেশি পর্যটকের আনাগোনাও থাকে রাঙামাটিতে। সিসি ক্যামেরার আওতায় আনা হলে পর্যটক হয়রানিও কমবে জেলা শহরে। এছাড়া চোরাকারবারিসহ বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে জড়িতদেরও সহজে চিহ্নিত করা যাবে। ফলে কমে আসবে অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড।

রাঙামাটি শহরের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এবং শপিংমলগুলোর সামনে বখাটে ছেলেদের আড্ডা লক্ষ্য করা যায়। অভিভাবকরাও তাদের কণ্যা সন্তানদের নিয়ে দুশ্চিন্তায় থাকেন। শহরকে সিসি ক্যামেরার আওতায় আনা হলে এ বিড়ম্বনাও কমবে অনেকাংশে। বখাটেপনা ও ইভটিজারদের চিহ্নিত করা সহজ হবে। মোট কথা শহরকে সিসি ক্যামেরার আওতায় আনা হলে একদিকে যেমন বেপরোয়া গতি, চুরি, ইভটিজিংসহ নানা অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডের মাত্রা কমে আসবে পাশাপাশি জীবনমানও শান্তির ও স্বস্তির। জেলা প্রশাসনের এই সিদ্ধান্ত দ্রুত বাস্তবায়ন হবে এমনটাই প্রত্যাশা সকলের।

Micro Web Technology

আরো দেখুন

রাঙামাটিতে এক দিনেই ১১ জনের করোনা শনাক্ত

শীতের আবহে হঠাৎ করেই পার্বত্য চট্টগ্রামের রাঙামাটি জেলায় করোনা সংক্রমণে উল্লম্ফন দেখা দিয়েছে। বিগত কয়েকদিনের …

Leave a Reply